user-avatar

◯ Rakhee

Rakhee এর সম্পর্কে
যোগ্যতা ও হাইলাইট
নারী
জটিল সম্পর্কে আবদ্ধ
ইসলাম
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 1.78M বার দেখা হয়েছে এই মাসে 130.46k বার

সাধারণত কাঠের চিরুনি মেলাতে পাওয়া যায়।যেহেতু আপনি ঢাকাতে আছে সেখানে থেকে সহজে কাঠের চিরুনি ক্রয় করতে পারবেন   

ঢাকার যে সকল দর্শনীয় স্থান গুলা আছে সেখান খোঁজ করে দেখুন মেলা বসেছে কিনা বা কোন দোকান বসেছে কিনা তাহলে পেতে পারেন। দাম টা সঠিক জানা নাই।      

বাচ্চাদের পায়খানা কষা হলে দ্রুত নিকটতম হাসপাতালের ইমার্জেন্সি ইউনিট এ নিয়ে ডাক্তার দেখান। ডাক্তার বাচ্চার অবস্থা দেখে ওষুধ দিবে যেটা সেবন করালে দ্রুত পায়খানা হয়ে যাবে। উল্লেখ্য খেয়াল রাখবেন বাচ্চার পেট যেন না ফুলে যায় পায়খানা না হলে পেট ফুলে যায়। 

ডাক্তার না দেখিয়ে কোন ফার্মেসি থেকে ওষুধ নিয়ে এসে সেবন করাবেন না এতে ফলাফল খারাপ হতে পারে। 


বিঃ দ্রঃ 

বাচ্চাকে জোর করে পায়খানা করানোর চেষ্টা করবেন না বা চাপ দিবেন না তাহলে মলদ্বারে ক্ষতের সৃষ্টি হতে পারে। বা মলদ্বারে কোন কিছু প্রবেশ করিয়ে পায়খানা করানোর চেষ্টা করাবেন না। দেখা যায় আশেপাশের মুরুব্বি রা পরামর্শ দেন •পানের• বোটা মলদ্বারে প্রবেশ করালে পায়খানা হয়ে যায়। আসলে এট কতটুকু সত্যি আমার জানা নাই। কিন্তু এতে প্রচুর ঝুঁকি আছে। 


সচেতন হন. সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্ত নিন।                          

এর জন্য আপনাকে অবশ্যই ব্যাবসা করতে হবে এবং সেটা হালাল হতে হবে। আল্লাহ্ তালার উপর ভরসা করে আপনার পছন্দের যে কোন একটি ব্যাবসা শুরু করে দিন ইন শা আল্লাহ্ সফলতা আসবে।   

আমার মতে ঃঃ প্যাথলজি ব্যাবসা লাভজনক,ফার্মেসি র ব্যাবসা লাভজনক, কাপড়ের দোকানের ব্যাবসা লাভজনক, কসমেটিক এর ব্যাবসা লাভজনক,             

বাংলাদেশে ফার্মেসি পরিচালনা করার জন্য যে কোর্স সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হয়  তাকে সি গ্রেড কোর্স ফার্মাসিস্ট কোর্স বলা হয়। এটি ফার্মাসিস্ট ফাউন্ডেশন বা ফার্মাসিস্ট সার্টিফিকেট কোর্স ও বলা হয়। এই সার্টিফিকেট টি মূলত ড্রাগ লাইসেন্স এবং নবায়নের জন্য প্রয়োজন   হয়। এটি মূলত ৩ মাসের কোর্স৷ 

এখন কেউ যদি ফার্মেসি কোর্স করে নিজেকে ডাক্তার ভাবেন এবং প্রেসক্রিপশন প্যাড তৈরি করেন তাহলে সে অনেক বড় ভূল করছেন (অল্প বিদ্য ভয়ংকর)  এটাকেই বলে হয়তো। 

সাধারণত কোন ডিগ্রি ধারী ডাক্তার ব্যাতিত কোন ব্যাক্তি  প্রেসক্রিপশন লিখতে পারেন না। 

যারা এই কাজ টা করছে তারা মানুষ কে ধোকা দিচ্ছে। অবশ্যই এই কাজ টা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং শাস্তির যোগ্য।      

আচ্ছা কারো দিকে তাকিয়ে থাকা,কারো আশেপাশে ঘোরাঘুরি করা এই গুলা কি ভালোবাসার লক্ষণ.?

আমার মতে তো না কোন ভাবেই হতে পারে না। ভালোবাসা তো মন থেকে হয়। 

ধরুন রাস্তাতে আপনার সাথে আমার দেখা হলো আমি তাকিয়ে রইলাম আপনার দিকে তার মানে কি আমি আপনাকে পছন্দ করি বা ভালোবাসি.?

তাকিয়ে থাকা মানেই কিন্তু দেখা নয়•

কারো দিকে তাকিয়ে আছি বলেই যে তাকে দেখছি তার তো কোন মানে হয় না। ব্যাপার টা তো অন্যকিছু ও হতে পারে। 

মেয়েটি আপনার দিকে তাকিয়ে থাকতো তার মানেই সে আপনাকে পছন্দ করে এটা আপনার ভূল ধারণা।ছে,, মেয়ে এক সাথে থাকলে একটু আকর্ষণ হয় হয়তো সে জন্য সে আপনার আশেপাশে ঘোরাঘুরি করতো এটা আপনার প্রতি তার ভালোবাসা এটা ভাবা ভূল। মেয়েটি যখন ৬ এ পড়তো তখন সে অনেক ছোট ছিলো পরে সে ৮ এ উঠে। তখন আপনি তাকে প্রপোজ করেন কিন্তু ৮ পড়া কালিন মেয়েটি বুঝতে শিখে, তখন তার ভালো মন্দ বোঝার জ্ঞান হয়ে যায় হয়তো সে এই কারণেই আপনাকে এড়িয়ে চলে। আর হ্যাঁ বললেন না আপনি তাকে পাত্তা দিতেন না আসলে জানেন কি মেয়েরা খুব নরম মনের হয় এবং তাদের স্মৃতি শক্তি অনেক ভালো হয়। তারা সহজে কোন বিষয় ভূলে যায় না এবং তৎক্ষনাৎ কোন ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দেয়/নেয় না, বা তাদের কেউ অপমান করলে সাথে সাথে তার উত্তর দেয় না। তারা শুধু সুযোগের অপেক্ষাতে থাকে। যেমন টা আপনার সাথে ঘটেছে। 

মোরাল অফ দ্যা স্টোরিঃ আপনার বুঝতে একটু সমস্যা হয়েছিলো যে বিষয় গুলা দেখে আপনি ভাবছেন সে আপনাকে ভালোবাসে বা পছন্দ করে সে বিষয় গুলার একটার মাধ্যমে ভালোবাসা প্রকাশ পাই না।           

আমার জানা মতে এটা কারিগরি শিক্ষার অধিনে। 

এটা ডিপ্লোমা নয়। 

   Relating to services and professions which supplement and support medical work but do not require a fully qualified doctor.এটা একটু পড়বেন ভালো করে। প্যারামেডিকেলের ছাত্র/ ছাত্রী রা মেডিকেল এ সাপোর্টার হিসবে কাজ করে মানে ডাক্তারের সহযোগী হিসাবে কাজ করে। তাহলে তো প্রেসক্রিপশন লেখার কোন প্রশ্নই আসে না।     

আপনি আবারো ডাক্তারের পরামর্শ নিন। 

সাধারণত বাচ্চাদের জন্মের সময় পা একটু বাকা থাকে আবার কোন কোন বাচ্চার থাকে না।  বাচ্চার বয়স বাড়ার সাথে সাথে তা ঠিক হয়ে যায়।  আপনার বোনের বয়স ২ বছরের বেশি কিন্তু তার এখন ও পা বাকা আছে তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। প্রশ্ন উল্লেখ করেন নাই বাবু টা স্বাভাবিক ভাবে হাটতে পারে কিনা। উল্লেখ করলে সুবিধা হতো। 

আপনি দেরি না করে বাবু টাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান।

আর বাবু টা যদি স্বাভাবিক ভাবে হাটতে,দৌড়াতে পারে তাহলে কোন সমস্যা হবার কথা নয়।              

গালে ঘসা খাওয়ার পর সে স্থানে কালো দাগ পড়ে যায়। যেটা অনেক সময় দীর্ঘদিন ধরে থাকে, কারো কারো ক্ষেত্রে উঠে যায় আবার কারো কারো ক্ষেত্রে উঠে না। ক্ষত না শুকানো পর্যন্ত স্পর্ট উঠানোর জন্য কোন ক্রিম ব্যাবহার করা যাবে না৷ যদি আপনার গালের ক্ষত শুকিয়ে যায় তাহলে এপনার এলাকার নিটক তম হাসপাতালের আউট ডোরে টিকিত কেটে ডাক্তার দেখিয়ে নিন। গালের অবস্থা দেখে ডাক্তার স্পর্ট রিমুভ ক্রিম লিখে দিবেন সেটা ব্যাবহার করলে ঠিক হয় যাব। 

বিঃদ্রঃ বাজারে অনেক আকর্ষণীয় স্পর্ট রিমুভাল ক্রিম পাওয়া যায়। অনেক ক্রিম আবার ৭ দিনের মধ্যে কাজ করে। ভূলেও এই ক্রিম গুলা ব্যাবহার করবেন না। এতে ক্ষতি বেশি হবে।            

কাউকে ভালোবাসার & কাউকে পটানো এক জিনিস নয়। আপনি যদি কাউকে মন থেকে ভালোবাসেন তাহলে তার সাথে আপনার সম্পর্ক থাকুক বা না থাকুক,তার সাথে আপনার কথা হোক বা না হোক,তার সাথে আপনার দেখা হোক বা না হোক আপনি তাকে ভালোবেসে যাবেন নিরবে এটাকেই ভালোবাসা বলে। 

কিন্তু আপনি তো মেয়ে টাকে পটাতে চান নিজের স্বার্থসিদ্ধি করার জন্য। 

আগে কাউকে মন থেকে ভালোবাসতে শিখুন তার পর না হয় বলবেন আপনি কাউকে ভালোবাসেন। 

কেউ যখন এক বার না করে দিয়েছে তার মানে সে আপনাকে পছন্দ করে না। এখন আপনি যদি তাকে কোন ভাবে পটাতে পারেন তবে সেটাকে ভালোবাসা মনে করবেন না। সেটা অন্য কিছু। 

মেয়ে টি যখন রাজি না তখন তাকে বিরক্ত না করাটাই উত্তম।      

এখানে একটা ব্যাপার আছে। সেটা হচ্ছে এক এক জনের কাছে এক এক বিষয় খুব সহজ মনে হয়। অন্যদের পছন্দের সাথে আপনার পছন্দের মিল নাও হতে পারে।  আমি বলবো নিজের মতামত কে গুরুত্ব দিন। উল্লেখ্য আপনি কোন বিভাগ এ পড়েন বা কোন বিভাগ এ পড়তে চান সেটা জানালে ভালো হতো।      

আমার মতে আপনার চাচাতো ভাই কে কষ্ট করে হলেও  আপনার এলাকাতে যে সরকারি হাসপাতাল আছে সেখানে নিয়ে যেয়ে এক জন সার্জারী ডাক্তার কে দেখান। সার্জারী ডাক্তার দেখালে সব থেকে ভালো হবে। আমরা অনেকে আছি যারা প্রাইভেট ডাক্তারদের বেশি গুরুত্ব দেয় কিন্তু এটা ঠিক নয়। কারণ আমাদের দেশে স্যাকমো নামক ব্যাক্তিরা নিজেদের ডাক্তার হিসাবে দাবি করেন। বা তারা প্রাইভেট এ রোগী দেখেন। সো এই বিষয়  টি একটু খেয়াল রাখবেন। 

যারা সরকারি ডাক্তার হয় তারা বি সি এস পাশ করার পর ডাক্তার হয়। তাদের গুরুত্ব অবশ্যই বেশি। 

তাই দেরি না করে আগে এক জন সার্জারি ডাক্তারের পরামর্শ নিন। 


প্রথমে  বহিঃবিভাগ থেকে ৫ টাকা দিয়ে টিকিট কেটে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। সাথে ২ টেস্ট এর রিপোর্ট নিয়ে যাবেন।


আশা করছি সমাধান পাবেন।                       

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আপনার আইডি টির তথ্য গুলা যাচাই করছে। 

যেকারণে এমন টা হচ্ছে।

আপনি একটু কাষ্ট করে অপেক্ষা করুন। আশা করছি ফেসবুক আপনার আইডি ফিরিয়ে দিবে।

জব কোচিং করলে লাভ হবে ক্ষতি হবে না৷ কারণ জব কোচিং এ আপনার মত আরো অনেকে থাকবে। তারা যখন তাদের বেস্ট টা দিয়ে চেষ্টা করবে কোচিং এ ভালো ফলাফল করবে। তখন আপনার মধ্যে উৎসাহ কাজ করবে। আপনার ও পড়তে ইচ্ছা হবে । আমার জানা মতে জব কোচিং এ মাসিক/সাপ্তাহিক পরীক্ষা নেওয়া হয়। সেই পরীক্ষাতে পাশ করার জন্য হলেও বাড়িতে একটু পড়তে হয়। সেই দিক বিবেচনা করলে কোচিং করা টা অবশ্যই উপকারী।     

সহজে তো ভূড়ি কমাতে পারেন না। সে জন্য আপনাকে একটু কষ্ট করতেই হবে। 

পেটের মেদ কমানোর জন্য প্রথমে চর্বিযুক্ত খাবার সেবন করা ত্যাগ করতে হবে। কায়িকশ্রম করতে হবে। একটু ব্যায়াম করতে হবে, বুক ডাউন দিতে হবে। একটু খেলা ধুলা করতে হবে। ফ্যাট জাতীয় খাবার ত্যাগ করতে হবে যেমনঃ ভাজাপোড়া, মিষ্টি,অতিরিক্ত প্রটিন জাতীয় খাবার গুলা কম খাবেন।

     

ভর্তির সময় যে সাবজেক্ট  নিবেন৷ ভর্তির ৩ মাসের মধ্যে সেই সাবজেক্ট চেঞ্জ করতে পারবেন। তবে এটা আপনাকে নিজ দ্বায়িত্ব এ করে নিতে হবে।  

১ম এ আপনি আপনার ফেসবুক আইডি তে প্রবেশ করুন। তার পর আপনার প্রফাইল এ যান ।  সেখান থেকে Activity   Log এ ক্লিক করুন। তার পর একটা অপশন পাবেন Filters নামে সেখানে ক্লিক করলে আরো একটি অপশন পাবেন  Categories নামে সেখানে ক্লিক করলে  অনেক গুলা অপশন পাবেন তার মধ্যে Your Connections নামে যে অপশন টি পাবেন সেখানে ক্লিক করে আরো বেশ কিছু অপশন পাবেন। তখন আপনি আপনার প্রয়োজন মত অপশন এ ক্লিক করে দেখে নিতে পারবেন আপনি কাকে ফলো & কোন পেজ ফলো করছেন। 

যে কোন ব্রাউজার ব্যাবহার করে এই কাজ টি করা সহজ হবে। আপনি অপেরা মিনি ব্রাউজার টি ব্যাবহার করে কাজ টি করতে পারেন।       

আমার মতে বিয়ের ২/১ বছরের মধ্যে বাচ্চা নিয়ে নেওয়া টা ভালো। কারণ আমাদের দেশে মেয়েদের সাধারণত ৩০ বছর বয়স এর পর গর্ভধারণ করতে নানা রকম জটিলতা দেখা দেয়।তাছাড়া আরো অনেক কারণ থাকে৷ তাই ২/১ বছরের মধ্যে ১ম বাচ্চা নিয়ে নেওয়া টাই ভালো৷ তাঁর পর কয়েক বছর গ্যাপ দিয়ে ২য় বাচ্চা নেওয়ার চেষ্টা করা টাই উত্তম।       

দাউদ খুব বাজে একটা চর্ম রোগ।যেটা খুব দ্রুত শরীরের নানা অংশে ছড়িয়ে পড়ে। এটার চিকিৎসা দীর্ঘদিন ধরে করতে হয়। আপনি প্রশ্নে উল্লেখ করেছেন নানা প্রকার ওষুধ সেবন করেছেন, ইঞ্জেকশন নিয়েছেন কিন্তু কোন কাজ হয় নাই।

আমি আপনাকে যে পরামর্শ টি দিবো সেটা মেনে চলার চেষ্টা করুন আশা করছি সুস্থ হয়ে যাবেন ঃঃ 

সর্ব প্রথমে আপনি আপনার এলাকার যে সরকারি হাসপাতাল আছে সেখানে যেয়ে ৫ টাকা দিয়ে বাহির বিভাগ থেকে টিকিট কেটে চর্ম বিশেষজ্ঞ যে ডাক্তার আছেন তার পরামর্শ নিন। দাউদ খুব বেশি হলে ডাক্তার স্যার বেনজয়িক এসিড নামক একটি ক্রিম প্রেসক্রাইব করবেন। এই ক্রিম টি শুধু মাত্র হাসপাতাকেই সাপলাই থাকে। এবং অনেক কার্যকরী। দাউদ এর জন্য খুবই ভালো একটি ক্রিম। 

উক্ত ক্রিম টি যদি আপনাকে প্রেসক্রাইব করে তবে আশা করছি আপনি দ্রুত সুস্থ হয়ে যাবেন।

তাহলে দেরি না করে হাসপাতালে যেয়ে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন। 

আপনি ব্যাক্তিগত ভাবে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা অবলম্বন করুন।                        

আপনি বাহিরের দেশে পড়া শোনার উদ্দেশ্য যেতে চাইলে আপনকে কিছু প্রক্রিয়ার মাধ্যমে যেতে হবে। তার মধ্যে মেডিকেল চেকাপ অন্যতম। মেডিকেল চেকাপ এর সময় আপনার মাথার ছিদ্র ধরা না পড়লে কোন সমস্যা হবে না। আবার যিনি মেডিকেল ডাক্তার হিসাবে থাকবেন তিনি যদি মনে করেন উক্ত ছিদ্র টি কোন সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়াবে না তাহলে যেতে পারবেন হয়তো। কিন্তু যদি মেডিকেল ডাক্তার হিসাবে যিনি থাকবেন তিনি এই ছিদ্রকে ক্ষতিকর মনে করেন বা এটা থেকে ক্ষতি হতে পারে তার আশংকা করেন  তবে হয়তো আপনার ইচ্ছা পূরণ নাও হতে পারে। তবে আমি বলবো এক বার চেষ্টা করে দেখুন। যদি ভাগ্যে থাকে তবে অবশ্যই হয়ে যাবে।             

সম্প্রতি সিম কোম্পানি গুলা ফ্রি ফেসবুক বন্ধ করে দিয়েছে এক জোগে। 

আমার জানা মতে তো কোন উপায় নাই ফ্রি ইন্টারনেট ব্যাবহার করার। 

কিন্ত নান রকম ভিপিএন এর কথা শুনি। তবে জানি না কত টা কাজ হয়।    

আঁচুলির জন্য হৌমিওপ্যাথি ওষুধ সেবন করতে পারেন।নিয়ম মেনে ওষুধের সম্পূর্ণ ডোজ শেষ করলে ইন শা আল্লাহ্ আঁচুলি ভালো হয়ে যাবে। 

উচু তিল সম্পর্কে জানা নাই।তবে হৌমিওপ্যাথি ডাক্তারের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন।    

আপনি প্রশ্ন করেছেন ঃঃ এটি কিসের ব্যাথা.? 

ভাই যেখানে ডাক্তারেরা চেকাপ না করে কোন সিদ্ধান্ত নেন না সেখানে আমরা কি ভাবে আপনাকে বলতে পারি এটি কিসের ব্যাথা.?  আমাদের পক্ষে তো বলা সম্ভব নয়। অনুমান করে কথা বলাই উচিত নয় সেখানে অনুমান করে কিভাবে আপনার মাথা ব্যাথার কারণ খুঁজেবার করতে পারি.???

আপনি রাত  ১২.৩০ এর মধ্যে ঘুমাই যান। আবার সকাল ৯ টার দিকে উঠেন। এটাকে আপনি স্বাভাবিক ঘুম মনে করছেন।এক জন ব্যাক্তি ১ দিনে ৭/৮ ঘন্টা ঘুমালে সেটা স্বাভাবিক ঘুম হিসাবে ধরা হয়। 

হিসাব মত আপনি বেশি ই ঘুমান সেই হিসাবে ঘুমের সমস্যার জন্য মাথা ব্যাথা হওয়ার কারণ নাই।

কিন্তু আপনি রাতে দ্রুত ঘুমানোর অভ্যাস করুন এবং সকালে দ্রুত উঠার অভ্যাস করুন এটা স্বাস্থ্য র জন্য খুব উপকারী। 


আপনার এ সমস্যার জন্য ডাক্তারের পরামর্শ অবশ্যই নিতে হবে। খোঁজ নিয়ে দেখুন প্রাইভেট এ ডাক্তারগণ রোগী দেখছেন। আপনি এক জন ভালো ডাক্তারের পরামর্শ নিন। আশা করছি সমাধান পাবেন।                

গে বা লেসবিয়ান বলতে সমকামিতার মত জঘন্যতম পাপ কাজ কে বোঝানো হয়েছে বা সমকামিতার ইংরেজি প্রতিশব্দ গে/ লেসবিয়ান। 

গে= এক জন ছেলে হয়ে অন্য জন ছেলের প্রতি আকর্ষণ(কূ  কর্ম করার উদ্দেশ্য)     অনুভব করা। 

লেসবিয়ান = এক জন মেয়ে হয়ে অন্য জন মেয়ের প্রতি আকর্ষণ অনুভব করা। ( কূ কর্ম করার উদ্দেশ্য) 


এটা ভিশন একটি বাজে কাজ। এবং ইসলাম ধর্মে এটিকে হারাম বলা হয়েছে।

আপনি হয়ত জানেন লূত (আঃ) এর জাতির কিছু লোক এই কূ কর্মে জড়িত ছিলো। লূত (আঃ) এর স্ত্রী নিজে সমকামিতা না হলেও সমকামিদের পক্ষে ছিলেন। আল্লাহ্ তালা লূত (আঃ)  এর জাতি কে ধ্বংস করে দিয়েছিলেন। শুধু মাত্র সমকামিতাই লিপ্ত থাকার জন্য।

এখন আপনি নিজে চিন্তা করে দেখুন সমকামিতা যেটাকে ইংরেজিতে গে(পুংলিঙ্গ) লেসবিয়ান( স্ত্রীলিঙ্গ)  বলা হয় বা হচ্ছে। এটা কত বড় একটি পাপ কাজ এবং এর শাস্তি কি হতে পারে। আপনি যদি লূত (আঃ) এর জাতির বর্ণা পড়েন তাহলে খুব সহজে জানতে পারবেন গে / লেসবিয়ান দের শাস্তি কতটা ভয়ানক । আল্লাহ্ তালা লূত (আঃ) এর জাতি কে ধ্বংস করেছিলেন সমকামিতার জন্য,,,,, পৃথীবিতে এটাই তাদের শাস্তি ছিলো,,, না জানি কেয়ামত এর দিন তাদের কি শাস্তি ভোগ করতে হয়।   অন্য দিকে 


 ইবনে আব্বাস বলেন, রাসুল (স) বলেছেন, তোমরা যদি কাউকে পাও যে লুতের সম্প্রদায় যা করত তা করছে, তবে হত্যা কর যে করছে তাঁকে আর যাকে করা হচ্ছে তাকেও।" (আবু দাউদ 38:4447) 

রাসুল (সাঃ) বলেছেন যদি কেউ সমকামিতাই লিপ্ত থাকে তাকে এবং তার সঙ্গী কে হত্যা করে ফেলত । এই বিষয় টা কতটা ভয়ানক হলে রাসুলুল্লাহ্ (সাঃ) এই কথা টি বলতে পারেন।একটু ভেবে দেখবেন।      

কুরানের আয়াত ও হাদিস গুলা মনোযোগ দিয়ে পড়ুন তাহলে সব কিছু জানতে পারবেন।                        



এবং আমি লূতকে প্রেরণ করেছি। যখন সে স্বীয় সম্প্রদায়কে বললঃ তোমরা কি এমন অশ্লীল কাজ করছ, যা তোমাদের পূর্বে সারা বিশ্বের কেউ করেনি ? তোমরা তো কামবশতঃ পুরুষদের কাছে গমন কর নারীদেরকে ছেড়ে। বরং তোমরা সীমা অতিক্রম করেছ।" (আরাফ ৭:৮১-৮২)

• "সারা জাহানের মানুষের মধ্যে তোমরাই কি পুরূষদের সাথে কুকর্ম কর?
এবং তোমাদের পালনকর্তা তোমাদের জন্য সঙ্গিনী হিসেবে যাদের সৃষ্টি করেছেন, তাদেরকে বর্জন কর? বরং তোমরা সীমালঙ্ঘনকারী সম্প্রদায়।" (শুয়ারা ২৬:১৬৫-১৬৬)

• "স্মরণ কর লূতের কথা, তিনি তাঁর কওমকে বলেছিলেন, তোমরা কেন অশ্লীল কাজ করছ? অথচ এর পরিণতির কথা তোমরা অবগত আছ! তোমরা কি কামতৃপ্তির জন্য নারীদেরকে ছেড়ে পুরুষে উপগত হবে? তোমরা তো এক বর্বর সম্প্রদায়। উত্তরে তাঁর কওম শুধু এ কথাটিই বললো, লূত পরিবারকে তোমাদের জনপদ থেকে বের করে দাও। এরা তো এমন লোক যারা শুধু পাকপবিত্র সাজতে চায়। অতঃপর তাঁকে ও তাঁর পরিবারবর্গকে উদ্ধার করলাম তাঁর স্ত্রী ছাড়া। কেননা, তার জন্যে ধ্বংসপ্রাপ্তদের ভাগ্যই নির্ধারিত করেছিলাম।" (কুরআন 27:54-57)

• "আমার প্রেরিত ফেরেশতাগণ সুসংবাদ নিয়ে ইব্রাহীমের কাছে আগমন করল, তখন তারা বলল, আমরা লুতের জনপদের অধিবাসীদেরকে ধ্বংস করব। নিশ্চয় এর অধিবাসীরা অপরাধী।" (২৯:৩১)

এবার হাদিস দেখুনঃ

# "ইবনে আব্বাস বলেন, রাসুল (স) বলেছেন, তোমরা যদি কাউকে পাও যে লুতের সম্প্রদায় যা করত তা করছে, তবে হত্যা কর যে করছে তাঁকে আর যাকে করা হচ্ছে তাকেও।" (আবু দাউদ 38:4447)

# "আবু সাইদ আল খুদ্রি বলেন, রাসুল (স) বলেছেন, একজন পুরুষ আরেক পুরুষের যৌনাঙ্গ দেখবে না। এক নারী আরেক নারীর যৌনাঙ্গ দেখবে না। এক পুরুষ আরেক পুরুষের সাথে অন্তত undergarment না পরে একই চাদরের নিচে ঘুমাবে না। এক নারী আরেক নারীর সাথে কখনও অন্তত undergarment না পরে একই চাদরের নিচে ঘুমাবে না।" (আবু দাউদ, 31:4007)

# "আবু হুরাইরা (রা) থেকে বর্ণিত, রাসুল (স) বলেন, এক পুরুষ আরেক পুরুষের সাথে বা এক নারী আরেক নারীর সাথে ঘুমাতে পারবে না লজ্জাস্থান ঢাকা ব্যতীত। তবে ব্যতিক্রম করা যাবে, শিশু আর পিতার ক্ষেত্রে... রাসুল (স) ৩য় আরেকজনের কথা বলেছিলেন কিন্তু আমি ভুলে গিয়েছি।" (আবু দাউদ, 31:4008)


তথ্যসূত্রঃ AskIslam website..    


ধর্ম সম্পর্কে আমার জ্ঞান সীমিত। অনেক কিছুই জানি না। তবে যে টুকু জেনেছিলাম তার আলোকে উত্তর দেওয়া চেষ্টা করেছি।   

বাচ্চা নেওয়ার ক্ষেত্রে বয়স টা একটু প্রিফার করে।মানে বয়স বেশি হয়ে গেলে বাচ্চা কনসেপ্ট হতে চাই না। কিন্তু আল্লাহ্ যদি চান তাহলে আপনারা বাচ্চার মা,বাবা হতে পারেন। সে জন্য আপনাদের আল্লাহ্ তালার কাছে ফরিয়াদ করতে হবে এবং চেষ্টা করে যেতে হবে। এই বিষয় এ বিস্তারিত জানার জন্য প্রথমে এক জন মহিলা গাইনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। আশা করছি সমাধান পাবেন।         

আপনার সিমে সম্ভবত কোন সার্ভিস চালু আছে। সিম কোম্পানি গুলা নানা রকম সার্ভিস চালু করে রাখে তাদের সিমে। অনেক সময় ভূলবসত সেই সার্ভিস গুলা আমরা নিজেদের সিমে চালু করে ফেলি যার ফলে অযথা টাকা কেটে নেয়।

এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আপনি গ্রামীণফোনের ফেসবুক পেজে আপনার সমস্যার বর্ণনা দিয়ে কমেন্ট করুন।তারা আপনাকে সমাধানের উপায় বলে দিবে।অথবা আপনার এলাকাতে অবস্থিত গ্রামীণ ফোনের কাস্টমার কেয়ার এ যেয়ে পরামর্শ নিন।আশা করছি তারা সমাধান করে দিবে।          

বিকাশ লেনদেন সম্পর্কে কিছু জানতে চাই? বিকাশে ক্যাস ইন করতে কোন চার্জ লাগে?? সেন্ড মানি করতে কত করে চার্জ নেওয়া হয়.?? ক্যাস আউট করতে কত করে চার্জ নেওয়া হয়.???
আমার একটি সিমে রকেট একাউন্ট খোলা আছে সেই সিমে কী বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবো.?? বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন??
জ্বি আপনি সত্যি এই টাকা পাবেন। তবে টাকা উঠাতে হলে মিনিমাম ১০০ টাকা হতে হবে তবেই আপনি টাকা উঠাতে পারবেন। টাকা উঠানোর জন্য Withdraw তে ক্লিক করুন & পরবর্তী নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করুন তাহলে টাকা উঠাতে পারবেন। আপনি উক্ত টাকা বিকাশ, নগদ,রকেট ইত্যাদি র মাধ্যমে নিতে পারবেন।