MHNobab

MHNobab

MHNobab

About MHNobab

Experience and Highlight
Lives in Dhaka 2019–present
Male
Single
Islam
Work Experiences
Assistant Engineer at Dream Touch Architect Limited 2020–2021
Skills
Language
English Bangla
Trainings
Education
Stamford University Bangladesh
  • BSc Engineering
  • Civil Engineering
  • 2021-
Social Profile
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 1.18k বার দেখা হয়েছে এই মাসে 73 বার
0 টি প্রশ্ন দেখা হয়েছে 16 বার
31 টি উত্তর দেখা হয়েছে 1.16k বার
1 টি ব্লগ
0 টি মন্তব্য
টাইমলাইন

বাঁচার একমাত্র উপায় তাওবা করা। হারাম পথে অর্থ উপার্জন করে সেই অর্থ দান করে খুব বেশি বাঁচা যাবে বলে মনে হয় না। আল্লাহর কাছে তাওবা করতে হবে। আল্লাহ কে বলতে হবে আমি ভুল করেছি হারাম কাজ থেকে অর্থ উপার্জন করেছি আমি আর কখনো হারাম পথে অর্থ উপার্জন করবো না তোমার কাছে ক্ষমা চাই তাইলে আল্লাহর যদি দয়া করেন তাহলে আপনি মাফ পেয়ে যেতে পারেন। 

সূরা আল আনফাল (الأنفال), আয়াত: ২৪ يَٰٓأَيُّهَا ٱلَّذِينَ ءَامَنُوا۟ ٱسْتَجِيبُوا۟ لِلَّهِ وَلِلرَّسُولِ إِذَا دَعَاكُمْ لِمَا يُحْيِيكُمْ وَٱعْلَمُوٓا۟ أَنَّ ٱللَّهَ يَحُولُ بَيْنَ ٱلْمَرْءِ وَقَلْبِهِۦ وَأَنَّهُۥٓ إِلَيْهِ تُحْشَرُونَ উচ্চারণঃ ইয়াআইয়ুহাল্লাযীনা আ-মানুছতাজীবূলিল্লা-হি ওয়ালিররাছূলি ইযা-দা‘আ-কুম লিমাইউহয়ীকুম ওয়া‘লামূআন্নাল্লা-হা ইয়াহূলুবাইনাল মারয়ি ওয়া কালবিহী ওয়া আন্নাহূইলাইহি তুহশারূন। অর্থঃ হে ঈমানদারগণ, আল্লাহ ও তাঁর রসূলের নির্দেশ মান্য কর, যখন তোমাদের সে কাজের প্রতি আহবান করা হয়, যাতে রয়েছে তোমাদের জীবন। জেনে রেখো, আল্লাহ মানুষের এবং তার অন্তরের মাঝে অন্তরায় হয়ে যান। বস্তুতঃ তোমরা সবাই তাঁরই নিকট সমবেত হবে। Playstore Link: https://play.google.com/store/apps/details?id=com.muslim.quran_bangla

হারাম পথে অর্থ উপার্জন মানেই আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের আদেশ অমান্য করা। আল্লাহ বলেছেন তোমরা অর্থ উপার্জন করো হালাল পথে। 

তাই বলা বাহুল্য আল্লাহর কাছে তাওবা করুন।

আমি আপনাকে একটি একাউন্ট অপেন করে দিতে পারি। ১ লেভেলের টাউনহল থাকবে। 

বিদ্রঃ এই অনলাইন গেমিং করে জীবনের জন্য কোন লাভ হবে না। শুধু শুধু টাইম ওয়েস্ট হবে, ডেটা নষ্ট হবে, মোবাইল ফোন নষ্ট হবে। যাইহোক এগুলো আপনার ব্যক্তিগত বিষয়।

অতিরিক্ত হস্তমৈথুনের ফলেই এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। আপনি চর্ম ও যৌন রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এর পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক নিয়মে ঔষধ খান ঠিক হয়ে যাবে। 

অতিরিক্ত কোন কিছুই ভালো নয়। হস্তমৈথুনের করা থেকে বিরত থাকুন আস্তে আস্তে সব ঠিক হয়ে যাবে। 

আশা করি বুঝতে পেরেছেন। 

কিছু দিন আগের কথা। আমি একদিন বৃষ্টিতে অল্প একটু  ভিজেছিলাম। বৃষ্টিতে ভেজার কারনে হালকা একটু জ্বর জ্বর অনুভূতি হয় । রাতে ঘুমানোর সময় নাপা ট্যাবলেট খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ি। মাঝ রাতে একটি স্বপ্ন দেখি। স্বপ্নে দেখতে পাই আমার করোনা হয়েছে। করোনার সিমটম গুলো আছে গলা ব্যাথা, জ্বর। স্বপ্ন ভেঙ্গে যাবার পর খুব ভয় হয় এবং স্বাভাবিক হয়েই ঘুমিয়ে পড়ি। সকালে ঘুম ভাঙতেই অনেক গলা ব্যাথা হয় আর গায়ে জ্বর চলে আসে মাথায় হালকা হালকা ব্যাথা অনুভূতি হয় আমি একপর্যায়ে খুব ভিতু হয়ে পড়ি। সকালে ঘুম ভাঙে আর বিকেলের দিকেই বুঝতে পারি আল্লাহর রহমতে করোনা হয়নি আমার।

 রাতে স্বপ্ন দেখা আর দিনে সেটাই ঘটে যাওয়া ব্যাপারটিই আমার জীবন সবচেয়ে ভীতিকর। 

আল্লাহর অশেষ রহমতে করোনা ভাইরাস আমাকে আক্রমণ করতে পারেনি।

একজন সফল ইঞ্জিনিয়ার হওয়া।

অবশ্য ছোট থেকে ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার স্বপ্ন ছিলো না। ছোট থেকে একটাই স্বপ্ন দেখতাম আর্মি অফিসার হবো। এসএসসি পাশ করার পর কলেজে ভর্তি হতে চেয়েছিলাম কিন্তু আমার বাবা আমাকে ভর্তি হতে দেয়নি। বাবার স্বপ্ন তার তিন ছেলের মধ্যে একজন কে ইঞ্জিনিয়ার বানাবে। আমার বড় দুই ভাই তখন ইউনিভার্সিটিতে পড়তো তাই আমাকে ইন্টার ইমিডিয়ে কলেজে ভর্তি হতে দেয়নি। আমাকে ভর্তি করে পাবনা সরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এ ডিপ্লোমা ইন্জিনিয়ারিংএ। ডিপ্লোমা ইন্জিনিয়ারিংএ ভর্তি হবার কিছুদিন পড়ে আমি নাটোর কাদিরাবাদ ক্যান্টনমেন্ট এ আর্মিতে নিয়োগের জন্য যাই এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে একজন সৈনিক হিসেবে নিয়োগ পাই। তখন অনেকেই গল্প শুনালো সেনাবাহিনীতে অনেক পরিশ্রম করতে হয়। আমি তখন চিন্তা করলাম বাবা যেহেতু চায় আমি ইঞ্জিনিয়ার হই তাহলে সেটাই আমার জন্য ভালো হবে শুধুশুধু সৈনিক হয়ে কষ্ট করে আর কি হবে।

আমি ডিপ্লোমা ইন্জিনিয়ারিং শেষ করে এখন বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং পড়িতেছি। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন আমি যেন একজন সফল ইঞ্জিনিয়ার হয়ে আমার বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে পারি এবং বাংলাদেশের একজন গর্বিত ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে নিজেকে আত্মনিয়োগ করতে পারি। 

জীবনে ভালো থাকাটা খুব একটা সহজ নয়। থাকতে পারলে সেটা খুবই গৌরবের এবং গর্বের। সময়ের কাছে আমরা বড়ই অসহায়। সময় কিন্তু আমাদেরকে মাঝে মাঝে কবি, সাহিত্যিক, দার্শনিক, ভালো মানুষ এবং বন্ধু মানুষ এ পরিণত করে। প্রত্যেকটা মানুষের জীবনেই একটা খারাপ সময় আসে। আর সেই খারাপ সময়টাতে আসলে ভালো থাকার জন্য না সময়টা অতিক্রম করার জন্যই যুদ্ধ করতে হয়। খারাপ সময়ের কাছে আত্মসমর্পণ করে যুদ্ধ থামিয়ে দিলেই কিন্তু খারাপ সময়টা চলে যাবে না বরং আরো দীর্ঘস্থায়ী হবে। 

আমি ভালো থাকার চেষ্টা করি ইনফ্যাক্ট আমরা সবাই করি, করতে হয়।