সুমন

সুমন

Shumon2021

About সুমন

My 2nd Facebook Id link is https://www.facebook.com/shumon.chowdhury.1420
Experience and Highlight
Lives in Dhaka 2020–present
Male
Single
Islam
Work Experiences
Language
Bengali/Bangla
Trainings
Education
Social Profile
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 8.52k বার দেখা হয়েছে এই মাসে 1.08k বার
2 টি প্রশ্ন দেখা হয়েছে 46 বার
419 টি উত্তর দেখা হয়েছে 8.47k বার
1 টি ব্লগ
19 টি মন্তব্য
টাইমলাইন

বিদায় বিস্ময়!?

সুমন
Shumon2021
Dec 2, 10:37 PM

এখানে অনেক বড় মাপের হাতুড়ে ডাক্তার আছে।  তাদের দেখে হতবাক আমি।  

এসেছিলাম হেল্প করতে।  কিন্তু তা আর পসিবল হলো না। 

স্বাস্থ্য বিভাগে অনেকেই ভুল উত্তর দিয়ে থাকে। একজন PCP হিসেবে চেষ্টা করেছিলাম সঠিক জবাব দেয়ার। 

কিন্তু এখানকার কতিপয় হাতুড়ে ডাক্তার এর মনোভাব / কথার ধরণ দেখে আর থাকতে ইচ্ছে করলো না। 

সব রোগীদের বলছিঃ কোন রোগ হলে সরাসরি ডাক্তার দেখাবেন। 

বিদায়! 

অতি দ্রুত একজন মেডিসিন বিভাগের ডাক্তার দেখান।  অথবা নিকটস্থ উপজেলা স্বাস্থ্য কম্পেলেক্সে যান।  

যাতে করে, হেপাটাইটিস বি না হয় সেজন্য এই টীকা দেয়া হয়। বা হয়ে গেলেও যাতে এই ভাইরাসটি বড় কোন ক্ষতি না করতে পারে সেজন্যও বি ভ্যাক্সিন দেয়া হয়। 

ভিতরে আঘাত লাগতে পারে।  আর দু একবার দেখুন কি হয়। ব্লাড আসলে গাইনি বা মেডিসিন বিভাগের ডাক্তার দেখান।  

সংক্রমণ আছে।  এন্টি হিস্টামিন লাগবে।  সাথে আরো কিছু ওষুধ লাগবে। 

Tab. Filmet 400 mg দিনে ৩ টা করে ৫ দিন খাবেন।  পাশাপাশি,  Tab. Rupadin 10 mg খাবেন দিনে ১ টা করে ১০ দিন। 

৩/৪ দিনের মধ্যে কোন উন্নতি না হলে অবশ্যই একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ বা গাইনি ডাক্তার দেখাবেন। 

আপনি আগে সিমেন এনালাইসিস টেস্ট করে দেখেন।  কোন সমস্যা আছে কি না। এই টেস্ট করার জন্য ৪/৫ দিন সহবাস থেকে বিরত থাকতে হবে। 

প্রয়োজনে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই গাইনি ডাক্তার দেখান।  

রিটেনশন অব ইউরিন / প্রস্রাব আটকে যাওয়া: 

প্রস্রাবের থলিতে প্রস্রাব জমা হওয়া সত্ত্বেও প্রসাব করা যায় না, তখন ঐ অবস্থাকে রিটেনশন অব ইউরিন বলে। এসব ক্ষেত্রে অনেক সময় প্রস্রাবের দ্বারে ক্যাথিটার ঢুকালে প্রস্রাব হয়। 


কারণঃ 

১. বৃদ্ধ লোকের প্রোস্টেট গ্লান্ড বড় হলে প্রস্রাব বন্ধ হয়। 

২. Renal Artery Stenosis হলে প্রস্রাব কমে যায় বা প্রস্রাব বন্ধ হয়। 

৩. পূর্ণ বয়স্ক লোকদের প্রস্রাবনালির ছেঁদ প্রদাহের কারনে সরু হলে এ রোগ হতে পারে। গনোরিয়া রোগে ভুগলে এমন পর্যায় সৃষ্টি হতে পারে। 

৪. প্রস্রাব নালিতে পাথর আটকে গেলে প্রস্রাব বন্ধ হতে পারে। 

৫. Bladder-এর মধ্যে রক্ত জমাট হয়ে মূত্রনালির ভিতরের মুখ বন্ধ হলে প্রস্রাব বন্ধ হয়। 

৬. গর্ভবর্তী বা বৃদ্ধা মহিলাদের জরায়ু পিছনের দিকে ঝুলে যদি ইউরিথ্রা (Urethra)-তে চাপ পড়ে। 

৭. যৌন অঙ্গে অত্যধিক আঘাত লাগলে প্রস্রাব আটকে থাকতে পারে। 

৮. প্রস্রাব নালির বাইরে অর্থাৎ মূত্র বের হওয়ার মুখে লিঙ্গের চামড়া আটকে গেলে অর্থাৎ ফাইমোসিস হলে 

৯. হিস্টিরিয়া রোগ হলে এবং উচ্চ রক্তচাপ জনিত স্ট্রোক হলে। ১০. শক্ত পায়খানার জন্য ইউরিথ্রিয়ায় চাপ পড়ে প্রস্রাব আটকে যেতে পারে। 

১১. মেরুদণ্ডে রোগ হলে বা আঘাত লাগলে প্রস্রাব আটকাতে পারে। 

১২. পূর্ণগর্ভবতী স্ত্রী লোকদের পেটে বাচ্চার মাথার চাপেও প্রস্রাব বন্ধ হতে পারে। 

লক্ষণ

১. মুত্রথলিতে প্রস্রাব জড়ো হয়ে ঐ স্থান টনটন করে এবং প্রস্রাব না করতে পারলে অস্বস্তিবোধ করে। 

২. যেখানে Bladder (ব্লাডার) অবস্থিত ঐ স্থান ফুলে উঠে। 

ল্যাব: পরীক্ষা (1) Urine R/M/E (2) Blooc C/P. (3) Cholesterol. (4) U.S.G of KUB & Hbs (5) Renogramine 

চিকিৎসা

১। সঠিক কারণ জেনে চিকিৎসা করতে হবে। 

২। মুত্রথলির উপরে hot water bag দ্বারা সেঁক দিলে প্রস্রাব হতে পারে। একটি বোতলে গরম পানি ঢেলে সেঁকের কাজ করা যেতে পারে। 

৩। কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য প্রস্রাব বন্ধ হলে কিছু হালকা গরম পানির সাথে গ্লিসারিন বা Soft Soap Water দ্বারা ডুস করলে পায়খানা এবং প্রস্রাব উভয়ই হতে পারে। 

৪। উপরোক্ত কোনো পদ্ধতিতে প্রস্রাব না হলে মূত্রনালিতে ক্যাথিটার (Catheter) ঢুকিয়ে প্রস্রাব করানোর চেষ্টা করতে হবে। রোগী হিসেবে এক একজনের এক এক নং-এর ক্যাথিটার লাগতে পারে। এ ব্যাপারে অভিজ্ঞ চিকিৎসক বা হাসপাতালের শরণাপন্ন হতে হবে। 

৫. মূত্রনালীতে পাথর হলে বা ফাইমোসিস হলে সার্জিক্যাল অপারেশন এর প্রয়োজন হতে পারে। 

মোটকথা, এমন সমস্যা দেখা দিলে অবশ্যই  একজন Urologist এর শরণাপন্ন হতে হবে।