user-avatar

Kamil Ahmad

Kamil99

Kamil99 এর সম্পর্কে
Assalamu alaikum.I'm student.I read in class 10.I want to be a freelancer in the future.
যোগ্যতা ও হাইলাইট
Sylhet এ/তে থাকেন 2020–বর্তমান
পুরুষ
অবিবাহিত
ইসলাম
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 78.09k বার দেখা হয়েছে
জিজ্ঞাসা করেছেন 7 টি প্রশ্ন দেখা হয়েছে 2.44k বার
দিয়েছেন 96 টি উত্তর দেখা হয়েছে 75.65k বার
0 টি ব্লগ
7 টি মন্তব্য

অাজ সকালে অামার ফ্রি ফায়ার একাউন্ট লগ অাউট করে অন্য অাইডি লগ ইন করেছিলাম। একন অামার মেইন অাইডি লগ ইন করতে গিয়ে দেখি লগ ইন হওয়ার পরিবর্তে গুগল ক্রোম ব্রাইউজারে নিয়ে যাচ্ছে।সেখানে লগিন করলে লগিন হচ্ছে না।ফ্রি ফায়ার ডাটা রিসিট করে ট্রাই করেছি।হয় নি।


(বিঃদ্রঃ)অামার মেইন অাইডি ব্যতিত অন্য সকল অাইডি লগিন হচ্ছে

মধু সর্ব রোগের মহাওষুধ কথাটি বলার কারণ-----

মধুতে গ্লুকোজ ও ফ্রুকটোজ নামক দুই ধরনের সুগার থাকে। অবশ্য সুক্রোজ ও মালটোজও খুব অল্প পরিমাণে আছে। মধু নির্ভেজাল খাদ্য। এর শর্করার ঘনত্ব এত বেশি যে, এর মধ্যে কোনো জীবাণু ১ ঘণ্টার বেশি সময় বাঁচতে পারে না। এতে ভিটামিন এ, বি, সি প্রচুর পরিমাণ বিদ্যমান। অনেক প্রয়োজনীয় খাদ্য উপাদানও আছে। যেমন- এনজাইম বা উৎসেচক, খনিজ পদার্থ (যথা পটাশিয়াম, ক্যালশিয়াম, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ), এছাড়াও প্রোটিন আছে। মধুতে কোনো কোলস্টেরল নেই। সুস্থ অসুস্থ যে কেউ মধু খেতে পারেন। সুস্থ মানুষ দিনে দু’চা-চামচ মধু অনায়াসে খেতে পারেন। বেশি খেতে চাইলে শর্করা জাতীয় খাদ্য ভাত, রুটি, আলু কমিয়ে খেতে হবে। অন্যথা মোটিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। তবে পরিমিত পরিমাণ খেলে মোটা হওয়ার ভয় নেই। হজমের গোলমাল, হার্টের অসুখ, ডায়াবেটিস প্রভৃতিরোগে আধা চা-চামচ এর বেশি মধু না খাওয়াই ভালো। পোড়া, ক্ষত ও সংক্রমণের জায়গায় মধু লাগালে দ্রুত সেরে যায়। আল্লাহতায়ালা মধুর ভিতরে প্রচুর কর্মশক্তি রেখেছেন। সুত্রঃউইকিপিডিয়া

ফসল উৎপাদন,পশুপাখি পালন ও মৎস্য চাষে মাটির জৈবিক ব্যবহার ও ব্যবস্থাপনাকে কৃষি বলে।

যে সকল শিশু কোনো-না-কোনো অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের সঠিকভাবে সঞ্চালনে অক্ষম তারা শারীরিক প্রতিবন্ধী। এই ত্রুটি জ্ঞানেন্দ্রিয়, কর্মেন্দ্রিয়, বাগযন্ত্রের যে কিছু হতে পারে।

বিস্তারিত বলবেন।

turbo vpn lite দিয়ে ট্রাই করেছি। হয় নি।

আবাসিকঃ যেখানে পড়াশোনা বা কাজের পাশাপাশি একজন দিন রাত ওখানেই থাকতে পারে , এমন ব্যবস্স্থা । যেমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের থাকার জন্য হোস্টেল থাকে । এটা আবাসিক । 

অনাবাসিকঃ যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের থাকার ব্যবস্থা নেই বা হোস্টেলে থাকা বাধ্যতামূলক নয় । 

ডে কেয়ারঃ প্রতিষ্ঠানটি এর শিক্ষার্থীদের পুরো দিন নিরাপত্তা দান বা অভিভাবক এর দায়িত্ব পালন করবে ।

যাবে না।এটি হারাম এবং নিষিদ্ধ কাজ।কবরের উপর যেকোনো ধরনের নির্মাণ করাকে রাসুল (সা.) নিষেধ করেছেন। 

عَنْ جَابِرٍ، قَالَ: «نَهَى رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ أَنْ يُجَصَّصَ الْقَبْرُ، وَأَنْ يُقْعَدَ عَلَيْهِ، وَأَنْ يُبْنَى عَلَيْهِ 

অর্থঃ হযরত জাবির (রা.) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেছেন, রাসূল (সা.) কবরে চুনকাম করতে, কবরের উপর গৃহ নির্মাণ করতে, এবং কবরের উপর বসতে নিষেধ করেছেন। (সহীহ মুসলিম, হাদীস নং-৯৭০) 


عَنْ أَبِي الْهَيَّاجِ الْأَسَدِيِّ، قَالَ: قَالَ لِي عَلِيُّ بْنُ أَبِي طَالِبٍ: أَلَا أَبْعَثُكَ عَلَى مَا بَعَثَنِي عَلَيْهِ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ؟ «أَنْ لَا تَدَعَ تِمْثَالًا إِلَّا طَمَسْتَهُ وَلَا قَبْرًا مُشْرِفًا إِلَّا سَوَّيْتَهُ 

অর্থঃ হযরত আবুল হাইয়াজ আসাদী হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, একবার হযরত আলী (রা.) আমাকে বলেন, আমি কি তোমাকে সেই কাজে পাঠাবো না, যে কাজে রাসূল (সা.) আমাকে পাঠিয়েছিলেন? ঐ কাজ এই যে, কোনো মূর্তি দেখলে তা নষ্ট করে ফেলবে, আর কোনো উঁচু কবর দেখলে তা সমান করে দিবে। (মুসলিম, হাদীস নং-৯৬৯)


সেই সাথে সবচেয়ে’ বড় কথা হলো, যেসব মনীষীদের কবরকে পাকা করা হয়েছে, তারা নিজেরা কি কখনো তাদের পূববর্তী কোনো বুযুর্গের কবরকে পাকা করেছেন? কিংবা তারা কি তাদের কবরকে পাকা করতে নির্দেশ দিয়েছেন?

প্রথমেই বলি ইসলামি শরিয়া মোতাবেক কোনো মেয়েকে ভালোবাসা অবৈধ এবং কবিরা গোনাহ। তাই কোনো মেয়েকে ভালোবাসার বিষয়টি এড়িয়ে চলাই উচিত।

 একান্তই যদি কেউ কারো প্রেমে পড়ে যান, তবে তাকে একটি আমল করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশ্বের অন্যতম এক দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ফতোয়া বিভাগ। আর তাহলো-

 যে ব্যক্তি কোনো মেয়েকে ভালোবাসে তাকে শুক্রবার মধ্যরাতে উঠতে হবে এবং আল্লাহর কাছে সাহায্য কামনা করতে হবে। মনের আশা পূরণের নিয়তে এ দোয়াটি পড়া যেতে পারে-

 فَإِن تَوَلَّوْاْ فَقُلْ حَسْبِيَ اللّهُ لا إِلَـهَ إِلاَّ هُوَ عَلَيْهِ تَوَكَّلْتُ وَهُوَ رَبُّ الْعَرْشِ الْعَظِيم ِ

উচ্চারণ : ‘ফা ইং তাওয়াল্লাও ফাকুল হাসবিয়াল্লাহু লা ইলাহা ইল্লা হুয়া আলাইহি তাওয়াক্কালতু ওয়া হুয়া রাব্বুল আরশিল আজিম।’ (সুরা তাওবা : আয়াত ১২৯) 

অর্থ : এ সত্ত্বেও যদি তারা বিমুখ হয়ে থাকে, তবে বলে দাও, আল্লাহই আমার জন্য যথেষ্ট, তিনি ব্যতীত আর কারো বন্দেগী নেই। আমি তাঁরই ভরসা করি এবং তিনিই মহান আরশের অধিপতি।

 এ বিষয়ে বিস্তারিত পড়তে আল্লামা কাশ্মীরি রহ. রচিত কিতাব গাঞ্জিনা ই আসরার পড়ার পরামর্শও দিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটি। 

wisdom meaning in bengali?

Kamil99
Dec 7, 05:05 PM

wisdom meaning in bengali is...... প্রজ্ঞা

womanlike meaning in bengali?

Kamil99
Dec 7, 05:01 PM

womanlike meaning in bengali is... মহিলার মত

wrong doing meaning in bengali?

Kamil99
Dec 7, 04:58 PM

wrong doing meaning in bengali is কুক্রিয়.ভুল করছেন

word meaning in bengali?

Kamil99
Dec 7, 12:16 PM

শব্দ

অামি মাইক্রোওয়ার্কার.কম এ কাজ করতে চাই।

অামার কাছে কম্পিউটার নেই।

দ্বিপ ও দ্বীপপুঞ্জ বলতে কি বুৃঝ