Tasnuva Mehjabin

Tasnuva Mehjabin

Mehjabin

About Tasnuva Mehjabin

যোগ্যতা ও হাইলাইট
Khulna এ/তে থাকেন 2020–বর্তমান
নারী
Single
Islam
Work Experiences
Cantonment Public School, Jahanabad, KhulnaStudent 2012–বর্তমান
Bissoy.comSpacialist 2018–বর্তমান
hello.bdnews24.comChild Journalist 2017–বর্তমান
Language
Bengali/Bangla English Hindi Italian
Trainings
Hello.bdnews24.com
  • Child Journalist Training
  • 1/8/2017 - 2/8/2017
Education
Social Profile
Add social profile
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 2.65M বার দেখা হয়েছে এই মাসে 135.10k বার
208 টি প্রশ্ন দেখা হয়েছে 233.14k বার
2.01k টি উত্তর দেখা হয়েছে 2.42M বার
3 টি ব্লগ
2 টি মন্তব্য
টাইমলাইন

.zip ফরম্যাটে না দেয়াই ভালো। যেহেতু ফাইল দিতে হবে সম্ভব হলে তা .pdf ফরম্যাটে দিন। আর তা নাহলে .jpg ফরম্যাটে দিন, তবে কম্প্রেসসড ফরম্যাটে দেওয়া গ্রহণকারীর জন্য অতিরিক্ত ঝামেলা হয়ে যাবে। 

আপনার আইডি ১৮+ এবং লক করা না হলে সেক্ষেত্রে ফলোয়ার এনাবল করে দেওয়া যায়, এতে আপনাকে সবাই ফলো করতে পারে অর্থাৎ ফ্রেন্ড না হয়েও আপনার পোস্ট তার টাইমলাইনে যাবে। 

এটির সুবিধা হচ্ছে আপনার পোস্টে রিচ বেশি পাবে, রিয়েক্ট কমেন্ট বেশি আসবে। 

অসুবিধা হচ্ছে আপনি পাবলিক পোস্ট করলে তার কোনো প্রাইভেসি থাকবে না। আপনি যদি প্রাইভেসি চান তাহলে ফলোয়ার এনাবল না করাই বেটার। আর সাধারণ মানুষেরা যে ফলোয়ার পেয়ে থাকে তা আসলে পোস্টে রিচ আনার জন্য একটুও কাজে লাগে না, সেলেবদের ব্যাপারটা আলাদা। 

https://m.facebook.com/friends/center/requests/outgoing/

উপরের লিংক থেকে আপনি কাদের রিকয়েস্ট দিয়েছেন কিন্তু তারা এক্সেপ্ট বা ডিক্লাইন করে নাই সেটা দেখতে পাবেন। পুরোপুরি বুঝতে না পারলেও কারা ডিক্লাইন করেছে সেটার একটা ধারণা পেতে পারেন।

লরিন শব্দটি ল্যাটিনউদ্ভুত একটি নাম যা মূলত খ্রিস্টান মেয়েদের নামের জন্য ব্যবহার করা হয়। ইতিহাসে এটি সারনেম হিসেবেও ব্যবহার হতে দেখা গিয়েছে। 

মূলত এটার অর্থ বিজয়ী, তবে বিশ্লেষণে আরো কিছু উপঅর্থ বের করা যায়। 

বাংলাতে এরকম উল্লেখযোগ্য কোনো সাইট নেই। ফেসবুকের বিভিন্ন গ্রুপ (বইপোকা, ক্যানভাস) এ দেখেছি মাঝে মাঝে কিছু লেখকদের হায়ার করতে। তবে নিজস্ব সাইট তৈরি করে সেক্ষেত্রে আয়ের সুযোগ রয়েছে। অখ্যাত, নতুন শুরু হওয়া সাইটগুলো অনেকসময় লেখার বিপরীতে টাকা অফার করে থাকে তবে তার পরিমাণ মোটেও 'আয়' বলার যোগ্য নয় সম্মানী বলাটাই সই। আবার গল্প লেখার প্রতিযোগিতাগুলোতেও অনেকসময় পুরষ্কারে অর্থমূল্য দেওয়া হয়ে থাকে। 

তবে ইংরেজিতে এক্ষেত্রে অনেক সাইট রয়েছে, কিন্তু পেমেন্ট সিস্টেমের ঝামেলার কারণে আমাদের দেশের মানুষেরা সে সুবিধাটা নিতে পারে না। 

Question: Write a dialogue between you and your friend about importance of learning English.

Answer:

Myself: Good evening? How are you?

My friend: I am fine. What about you?

Myself: I am also well. Why are you looking sad? Is anything wrong?

My friend: I have gotten my results today. I am just worried about. I am not satisfied with wit. I have gotten poor marks on English.

Myself: That's not good. Don't you study English properly. You must pay more attention to it.

My friend: I try to read it properly. But I find it so difficult that I can't get good marks on it.

Myself: English is not a subject. It is an international language. You can't prosper in life without getting the practical knowledge of English.

My friend: Why?

Myself: You need English in every walk of life. To get higher education, use computer, communicate with the world you have to know English properly. Besides, if you learn english properly you can get a good job with better sallery.

My friend: I know, you are right. But I think it is not possible for me to learn English perfectly. Can't I avoid it?

Myself: If you avoid English, then the success of life will avoid you. The world seeks for the person who knows English. Without English you can't even touch modernity. Do you want to live a back-dated life?

My friend: Certainly not. Thank you for your all words. I am grateful to get a friend like you.

Myself: You are most welcome.  

আমার বুকশেলফ

Tasnuva Mehjabin
Mehjabin
Mar 2, 09:53 AM

বুকশেলফ, অর্থাৎ বই রাখা শেলফ বা আলমারি। সবার বাসায় কমপক্ষ একটা হলেও বুকশেলফ থাকে যেখানে বইপত্র রাখা হয়। কারো বাসায় থাকে গল্পের বই, উপন্যাস, কবিতার বইয়ের জন্য আবার কারো থাকে পাঠ্যবই রাখার জন্য। 

আমার বাসায়ও একটি বুকশেলফ আছে। আসলে একটি না, তিনটি বুকশেলফ আছে যার ভেতরে একটি আমার। বাকি দুটিতে অন্যান্যদের জিনিস রাখা হয়। 

আমি যখন ক্লাস থ্রিতে পড়ি তখন আমার জন্য প্রথম বুকশেলফটি কেনা হয়। অনেক ছোট থেকেই আমার বই পড়ার খুব শখ। খুব সামান্য বইয়ের কালেকশন ছিল যা রাখার জন্য একটা বুকশেলফ কিনতে চাইলাম। ব্যস কিনে দেওয়া হলো।

প্রথমে বুকশেলফটি রেখেছিলাম আমার কম্পিউটারের কাছে। আমার বই এত বেশিই ছিল যে প্রথম তাক ছাড়া বই রাখার প্রয়োজন হয় নি। এরপরের দুটি তাক বোঝাই করে রাখতাম রস+আলো আর ছুটির দিনে। আগে এদুটি ক্রোড়পত্র প্রথম আলো বের করত, সিলেবাসের সাইজে। দুই তাক বোঝাই করে শুধু এগুলো থাকত। 

এরপরে আগামী বছর এলো। আমার মনে আছে বই মেলা থেকে দুটো বই কিনেছিলাম। সেই দুটো বইয়ের জায়গা হলো শেলফে। আর মায়ের পুরনো বই ঘেঁটে কয়েকটা বই বের করলাম। সব কিছু মিলিয়ে একটু ফাঁকা ফাঁকা করে দ্বিতীয় তাকটি মহা কষ্টে পূর্ণ করলাম। আর নিচে যথারীতি অন্যান্য বই। 

এরপরের বছর বইমেলা থেকে অনেক বই কিনলাম। এছাড়া জন্মদিনের উপহার, এমনি কেনাকাটা মিলিয়ে দ্বিতীয় তাক পুরোপুরি ভরে গেল। একদম টাইট ফিটিং। এবার শেলফ নিয়ে গেলাম পড়ার টেবিলের কাছে। প্রথম কয়েকদিন এমনি থাকল তারপরে পড়ার বই কিছু রাখলাম। 

এবার উঠলাম হাই স্কুলে। বুকশেলফের শেষের তিন তাকে গল্পের বই আর ওপরের তাক জুড়ে পড়ার বই রাখলাম। কিন্তু তারপরও ধরে না। বইমেলা থেকে অনেক বই কিনে রাখার জায়গা নেই, কিছু বই অন্যান্য শেলফে রাখলাম। ঐ বছর সব মিলিয়ে বইয়ের সংগ্রহ বাড়ল ৩৬টি। 

ক্লাস সেভেনে উঠে বইগুলো সব বড় আলমারিতে ট্রান্সফার করে দেওয়া হলো। বুকশেলফ ভরতি শুধু পড়ার বই। প্রচুর বই কিনলাম ঐ বছর। আলমারি প্রায় ভর ফেললাম। 

এই বছর শেষ হলো বই মেলা। বইমেলা থেকে সংগ্রহ ২৮টি। সামনে আরো সময় বাকি। বইয়ের শেলফে গল্পের বইয়ের আর জায়গা নেই। জেএসসির জন্য একগাদা বই দিয়ে শেলফ ভরা। আর আলমারিতে ভরা বই। 

এভাবে একে একে আমার বইগুলোর সংখ্যা বৃদ্ধি ও স্থানান্তর হলো। কিন্তু সব শেষে বই পড়ার ইচ্ছা, নেশা বা ভালোবাসা যাই বলি সব অপরিবর্তিত। এভাবে সবারই জীবনের ছোট ছোট বিষয়াবলি পরিবর্তন হয়ে একসময় আলাদা হয়ে যায়। তারই সামান্য প্রতীক, আমার বইগুলি।