user-avatar

Atikul Islam

◯ AtikulIslam

এটার জন্য আপনি দ্রুত রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর চিকিৎসা গ্রহণ করতে পারেন। আর দৃঢ় সংকল্প করতে হবে যে আর কখনো উক্ত কাজটি করব না। এটা করতে থাকলে কোন পদ্ধতি কার্যকরী হবে না।

শরীরের প্রতি যত্নশীল হবেন। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ডিম, দুধ, কলা, ডাব, মাছ,  মাংস, দেশি ফল, খেজুর, মধু, কালোজিরা, সবজি, ইত্যাদি রাখবেন। এসব খাবার রুটিন মেনে খেতে থাকুন। এগুলো দৈহিক ঘাটতি পূরণে সহায়তা করবে।

নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে হবে। ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলতে হবে। আর সম্ভব হলে তাড়াতাড়ি বিয়ে করে নিতে পারেন। বিয়ে আপনাকে এই পাপাচার থেকে রক্ষা করবে। 

এগুলো দুধ দাঁত। অনেকের দুধ দাঁত আঁকাবাঁকা হয়ে থাকে। তবে দুধ দাঁত উঠে ভালোভাবে দাঁত বেরিয়ে থাকে। কিন্তু এটা খুব সমস্যা মনে করলে ডেন্টাল বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এর পরামর্শ নিতে পারেন।                      

আঁচিলের জন্য সবচেয়ে ভালো চিকিৎসা হচ্ছে হোমিওপ্যাথি। হোমিওপ্যাথিতে সঠিক চিকিৎসা পেলে আশা করি দ্রুত আঁচিল সেরে যাবে। এজন্য অবশ্যই রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর পরামর্শ নিতে হবে।                           

রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর পরামর্শ নিলে সম্পূর্ণ আরোগ্য লাভ করা যায়। এখানে সাইড ইফেক্টের মাত্রা ও কম। তবে ধৈর্য্য আর সময়ের প্রয়োজন। ডাক্তারের নির্দেশনা সঠিকভাবে মেনে চলা প্রয়োজন। আর যেই চিকিৎসা গ্রহণ করেন না কেন রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তারের চিকিৎসা গ্রহণ করবেন।                  

আপনি রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর পরামর্শ নিতে পারেন। সঠিক চিকিৎসা পেলে আশা করি সম্পূর্ণ সুস্থ্য হয়ে যাবেন।                

আপনি আর কোন ধরনের নেশা জাতীয় দ্রব্য গ্রহণ করবেন না। নিজের স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হবেন। আর কিছুদিন নিয়মিত একটা করে ডাব খেতে থাকুন। এটা আপনার খুব উপকারে আসবে। টেস্টের আগে অবশ্যই ডাবের পানি পান করে ঢুকবেন। আশা করি কোন সমস্যা হবে না। প্রয়োজনে চিকিৎসক এর পরামর্শ নিয়ে পারেন।                                         

Coralcal-D হচ্ছে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি এর ঔষধ। এটা খেলে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি এর অভাবজনিত সমস্যার সমাধান হবে। তবে সরাসরি সেক্স এর বিষয়ে সাহায্য করবে না। কিন্তু ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি এর অভাবজনিত সমস্যার সমাধান হলে সেক্স এর বিষয়ে উপকৃত হবেন ইনশাআল্লাহ।        

প্রথমে বাজে অভ্যাস গুলো সম্পূর্ণ পরিহার করতে হবে। এই অভ্যাস ত্যাগ ছাড়া সমস্যার সমাধান হবে না। আর ভালো কোন রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর নিকট চিকিৎসা গ্রহণ করবেন। পাশাপাশি স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নশীল হবেন। নিয়মিত সূষম ও পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণ করবেন। আশা করি দ্রুত আরোগ্য লাভ করবেন।                                

এই বাজেটের মধ্যে ওয়ালটন প্রিমো এফ ৯ ফোনটি দেখতে পারেন।    

নান্দনিক ডিজাইনের প্রিমো এফ ৯ ফোনটিতে রয়েছে আধুনিক সব বৈশিষ্ট্য। কম দামের মধ্যেই এই ফোনে রয়েছে উন্নতমানের অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড ৯ পাই গো এডিশন। ওয়ালটনের এই ফোনটিতে রয়েছে ২,৫০০ এমএইচের শক্তিশালী লি-অন ব্যাটারি এবং ৫.৪৫ ইঞ্চির উজ্জ্বল ডিসপ্লে। এই ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে ১ জিবির ডিডিআরথ্রি র‌্যাম ও ১৬ জিবি রম।

এছাড়া মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করে এর স্টোরেজ বাড়ানো যাবে ৬৪ জিবি পর্যন্ত। এই ফোনের সামনে ও পেছনে রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা। ওয়ালটন প্রিমো এফ ৯ এখন বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ৪,৯৯৯ টাকায়।


পিটুইটারি গ্রন্থি মস্তিষ্কের নিচের অংশে অবস্থিত। দেহের সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ নালিবিহীন গ্রন্থি হলেও এটি আকারে সবচেয়ে ক্ষুদ্র। এই গ্রন্থি থেকে গোনাডোট্রপিক, সোমাটোট্রপিক, থাইরয়েড উদ্দীপকে হরমোন, এডরেনোকর্টিকোট্রপিন ইত্যাদি হরমোন নিঃসৃত হয়। এই গ্রন্থি থেকে নিঃসৃত হরমোন সংখ্যায় যেমন বেশি, অপরদিকে অন্যান্য গ্রন্থির ওপর এসব হরমোনের প্রভাবও বেশি। এজন্য পিটুইটারি গ্রন্থিকে প্রধান বা প্রভু গ্রন্থি বলা হয়।

বিতর নামাজ অন্যান্য ফরজ নামাজের ন্যায় দুই রাকাআত নামাজ পড়ে প্রথম বৈঠকে বসে তাশাহহুদ পড়া। তারপর তৃতীয় রাকআত পড়ার জন্য উঠে সুরা ফাতিহার সঙ্গে অন্য কোনো সুরা বা আয়াত মিলানো। কিরাআত (সুরা বা অন্য আয়াত মিলানোর পর) শেষ করার পর তাকবির বলে দু’হাত কান পর্যন্ত উঠিয়ে তাকবিরে তাহরিমার মতো হাত বাঁধতে হয়। তারপর নিঃশব্দে দোয়া কুনুত পড়া। দোয়া কুনুত পড়ে পূর্বের ন্যায় রুকু, সিজদার পর শেষ তাশাহহুদ, দরূদ, দোয়া মাছুরা পড়ে ছালাম ফিরানোর মাধ্যমে বিতরের নামাজ সমাপ্ত করতে হয়।

ফার্মেসি তে বিভিন্ন কোম্পানির কৃমিনাশক ঔষধ পাওয়া যায়। তবে বহুল প্রচলিত কিছু ঔষধ হচ্ছে  Almex, Ben-A, Alben DS, Solas ইত্যাদি। এগুলো ডাক্তার এর পরামর্শ নিয়ে খাওয়া উচিত।        

Asset এর শুদ্ধ বানান হচ্ছে অ্যাসেট্। বিস্তারিত দেখুন https://www.english-bangla.com/dictionary/asset 

কিছুদিন কাশ?

AtikulIslam
Sep 22, 04:19 PM

এক নাগাড়ে ৩ সপ্তাহের বেশি কাশি থাকলে অবশ্যই কফ পরীক্ষা করান। রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তার এর পরামর্শ ছাড়া কোন ঔষধ খাবেন না। দৈনিক তিনবেলা গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে গরগড়া করবেন। কিছুদিন নিয়মিত গরম পানি পানের চেষ্টা করবেন। সরাসরি ফ্রিজের কোন খাবার খাবেন না। আশা করি কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন। আর দ্রুত রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তার এর নিকট চিকিৎসা গ্রহণ করবেন।                           

  1. চানাচুর, 
  2. চিপস জাতীয় খাবার, 
  3. কাচা মরিচ দিয়ে ঝাল মুড়ি ও ভর্তা, 
  4. ঝাল - মশলাযুক্ত খাবার
  5. বাসি পঁচা খাবার
  6. চর্বি ও তেল যুক্ত খাবার
  7. ফাস্ট ফুড ইত্যাদি খাবার খাবেন না। কারণ এসব খাবার রোগের উপসর্গ বাড়িয়ে দেয়।    

অধ্যাপক গার্নার (Garner)। তাঁর মতে, “রাষ্ট্র হল বহুসংখ্যক ব্যক্তি নিয়ে গঠিত এমন এক জনসমাজ, যা নির্দিষ্ট ভূখন্ডে স্থায়ীভাবে বসবাস করে, যা বহিঃশক্তির নিয়ন্ত্রণ হতে মুক্ত এবং যাদের একটি সুসংগঠিত সরকার আছে, যার প্রতি ঐ জনসমাজ স্বভাবতই অনুগত।”

কোম্পানি ও ঔষধের মানভেদে বিভিন্ন দাম হয়ে থাকে। তবে ৪-৮ টাকার (প্রতিপিস) মধ্যে ঘুমের ঔষধ পাওয়া যাবে।      

এম এম কিট বক্সে মোট পাঁচটি পিল থাকে ৷ একটি বড় পিল যা মিফেপ্রিস্টন দিয়ে তৈরি ৷  আর চারটি ছোট পিল যা মিসোপ্রোস্টল দিয়ে তৈরি ৷  

বড় পিলটি প্রথম দিন রাতে খেতে হবে ৷ পরের দিন রাতে দুই গালের ভিতরে দুটি করে চারটি ছোট পিল প্রায় আধ ঘন্টা ধরে রাখতে হবে ৷ এ সময় থুথু ফেলা যাবে না ৷ তবে আধ ঘন্টা পর ধরে রাখতে না পারলে  পানি দিয়ে খেয়ে নিতে হবে ৷

এছাড়া ডাক্তারের কাছ থেকে ভালোভাবে খাওয়ার নিয়ম জেনে নিতে পারবেন ৷ কিংবা  প্যাকেটের মধ্যে থাকা নির্দেশনাবলী ভালো ভাবে পড়ে নিবেন ৷ তবে ডাক্তার এর পরামর্শ নিয়ে সেবন করা উত্তম। এতে অনেকটা ঝুঁকি মুক্ত থাকা যায়। 

এম এম কিট বক্সে মোট পাঁচটি পিল থাকে ৷ একটি বড় পিল যা মিফেপ্রিস্টন দিয়ে তৈরি ৷  আর চারটি ছোট পিল যা মিসোপ্রোস্টল দিয়ে তৈরি ৷  

বড় পিলটি প্রথম দিন রাতে খেতে হবে ৷ পরের দিন রাতে দুই গালের ভিতরে দুটি করে চারটি ছোট পিল প্রায় আধ ঘন্টা ধরে রাখতে হবে ৷ এ সময় থুথু ফেলা যাবে না ৷ তবে আধ ঘন্টা পর ধরে রাখতে না পারলে  পানি দিয়ে খেয়ে নিতে হবে ৷

এছাড়া ডাক্তারের কাছ থেকে ভালোভাবে খাওয়ার নিয়ম জেনে নিতে পারবেন ৷ কিংবা  প্যাকেটের মধ্যে থাকা নির্দেশনাবলী ভালো ভাবে পড়ে নিবেন ৷ তবে ডাক্তার এর পরামর্শ নিয়ে সেবন করা উত্তম। এতে অনেকটা ঝুঁকি মুক্ত থাকা যায়।            

 এটা স্থায়ীভাবে হতে থাকলে অবশ্যই সমস্যা। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হলে চিকিৎসা গ্রহণ করা আবশ্যক। এজন্য রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন। নিয়মিত স্থায়ীভাবে কিছুদিন চিকিৎসা নিলে আশা করি দ্রুত আরোগ্য লাভ করবেন। আর হস্তমৈথুনের অভ্যাস থাকলে অবশ্যই পরিহার করতে হবে। বাজে অভ্যাসগুলো পরিহার না করলে উত্তম ফলাফল পাওয়া সম্ভব নয়।                                         

এভাবে সাময়িক  পলিপাস দুর করা যাবে না। যদি জরুরি ভিত্তিতে পলিপাস অপসারণ করতে চান তাহলে অপারেশন করে নেওয়া ভালো হবে।              

আপনি দ্রুত রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর ট্রিটমেন্ট গ্রহণ করেন। নিয়মিত কিছুদিন চিকিৎসা গ্রহণ করলে যেকোন আঁচিল থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।                 

রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শ নিলে আরোগ্য লাভের সম্ভাবনা অনেক বেশি। তাই রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকের পরামর্শ নিলে আশা করি আরোগ্য লাভ করবেন।        

আমার মতে বর্তমানে বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় পেশা হচ্ছে শিক্ষক ও ডাক্তার। এই দুটি পেশা সবচেয়ে সম্মানজনক।         

এ জন্য দ্রুত কোন ডেন্টাল বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। যত দেরি করবেন সমস্যা ততই বাড়তে থাকবে। আর প্রতিদিন সকালে ও রাতে দাঁত ব্রাশ করা আবশ্যক। নিমের ডালের দাঁতন বা পিয়ারা পাতা দিয়ে দাঁত পরিস্কার করতে পারেন। এতে দাঁতের যেকোনো ব্যাধি দুর হয়।                                

বর্তমান বিশ্বে 'নিউ সিল্ক রোড 'এর প্রবক্তা চীন। 

বর্তমান বিশ্বের জাপানের সংবিধানকে ' শান্তি সংবিধান ' বলা হয়। 

জাতিসংঘের বর্তমান মহাসচিব এর নাম 'আন্তোনিও গুতেরেস"। 

সঠিকভাবে চিকিৎসা গ্রহণ না করলে এই রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব নয়। এ জন্য দ্রুত কোন রেজিস্ট্রার্ড চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ/হোমিওপ্যাথিক ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। ডাক্তারকে রোগের পুরো হিস্ট্রি খুলে বলতে হবে। আক্রান্ত স্থান যতটা সম্ভব চুলকানো থেকে বিরত থাকতে হবে। শরীর ও পোশাক পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। আর যতটা সম্ভব আন্ডারওয়্যার পরিহার করে ঢিলা পোশাক পরিধান করার চেষ্টা করতে হবে।                                                 

এমতাবস্থায় বাচ্চাটিকে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা দেওয়া দরকার।  বাচ্চাটিকে নিয়ে সরাসরি রেজিস্ট্রার্ড হোমিওপ্যাথিক ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। আশা করি দ্রুতই আরোগ্য লাভ করবে।