AlNomanrand1r1 (@AlNomanrand1r1)

হিজবুল্লাহ স্বাস্থ্য বিভাগে যে উত্তরগুলো প্রদান করে তার সবগুলোই কপি করা। আমি মনে করি, অন্তত স্বাস্থ্য বিভাগে কোন কপি উত্তর চলবে না। আমরা যারা চিকিৎসা বিজ্ঞান জানি, অধ্যয়ন করি তারা ভাল পরামর্শ দিতে পারবো। হিজবুল্লাহ কে আমি বহুবার সতর্ক করেছিলাম তার ভুল ও কপি উত্তরের জন্য। কিন্তু সে ভয় পেয়ে লজ্জায় সতর্কতা মুক্ত করেছে নিজেকে। এটি কী অন্যায় নয়? সে যে ভুল উত্তর দেয় তার প্রমাণ আমি একজন সমন্নয়ক কে দিয়েছি গতকাল। যাহোক, আমি আবার ফিরে এসেছিলাম সেবা করার জন্য। কিন্তু এসে দেখি এখানে অনেক বড় বড় কপিবাজ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ বসে আছে। তাই, এখানে সেবা প্রদান করা আমার পক্ষে আর সম্ভব নয়।  আমাকে আপনারা বহুবার ব্লক করেছিলেন। আবার আপনারা নিজেরাই আমাকে আনব্লকও করেছেন। এজন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি আপনাদের প্রতি। আসলে, আমার কোন ভয় নেই। আমি সৎ আছি। আমি বাস্তব জীবনে যা জানি তাই শেয়ার করি। না জেনে কপি করি না কখনো। আবারো যদি আমাকে আপনারা ব্লক করেন আমার কোন আফসোস ই থাকবে না। কারন, আমি তো আপনাদের কে কস্মিনকালেও অনুরোধ করবো না আনব্লক করতে। যা আমি ইতিপূর্বে করেছি। আরো কিছু কথা বলে যাই: মাঝপথে বিস্ময় থেকে দু একজন মূর্খ সমন্নয়ক এর কারনে আমাকে হারিয়ে যেতে হয়েছে কয়েকবার। আমি দেখলাম শুধু আমি নয় বরং আরো কয়েকজন ভাল ভাল ইউজার হারিয়ে গেছে। এই হারিয়ে যাওয়ার পিছনে দু তিনজন সমন্নয়ক ১০০% দায়ী। এদের এই কয়েকজনের কোন যোগ্যতাই নেই। আমি প্রাইভেসির কারনে তাদের নাম বলতে পারছি না বলে দুঃখিত!! যাহোক, আমার প্রিয় বিভাগ ছিলো স্বাস্থ্য বিভাগ। এখানে উত্তর দিতে ভাল লাগতো। এখন হতে আর দিবো না। কারন, এই বিভাগে কপিবাজ বিশেষজ্ঞ বসে আছে তথা হিজবুল্লাহ বসে আছে। আমি আশা করি, এই কপিবাজরা আরো ভাল করবে। সবশেষে,  বিস্ময় কে বলছি: দয়া করে, স্বাস্থ্য বিভাগে কোন কপি উত্তর অনুমোদন করবেন না। সামান্য ভুল পরামর্শের জন্য অনেকের জীবন বিপন্ন হতে পারে। ভাল থাকবেন...  ভাল রাখবেন।  বিদায় বিস্ময়! জয়ী হোক কপিবাজরা ও দু তিনজন মূর্খ সমন্নয়ক রা )  ( ব্লক এর ভয় অন্তত আমি নোমান সাহেব করি না ) 

নিচের টেস্টগুলো করে রিপোর্ট গুলো আমাকে পাঠাবেন অথবা একজন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ কে দেখান।


  • Urine R/M/E
  • SGPT
  • S.Bilirubin

দিনে ১০/১২ গ্লাস ঠান্ডা পানি খাবেন।

ব্যায়াম করবেন নিয়মিত।

মুখে রুচি নেই, ভাল একটা ঔষধের নাম বলুন ?

AlNomanrand1r1
Sep 10, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
Tab. Omidon 10 mg ১+১+১ খাবার গ্রহণের ২৫ মিনিট আগে খাবেন ১৫ দিন। Tab. Zymet  ১+১+১ ভাত খাওয়ার পরপরই খাবেন ১ মাস। ভাল হবে যদি চিকিৎসক এর দ্বারস্থ হোন। 
আপনার শরীরে ভিটামিন স্বল্পতা রয়েছে। প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করবেন। বদঅভ্যাস থাকলে তা পরিহার করবেন। আমাকে ফেসবুকে মেসেজ করতে পারেন।  এখানে ডিটেইলস বলা সম্ভব নয়। 
ক্ষতি যে হবেই এমন কোন কথা নেই। তবে, যেকোন ফোন বা টিভি স্ক্রিণে অনবরত চোখ রাখলে ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা অনেকাংশেই বৃদ্ধি পায়। 

স্ক্যাবিস রোগ,, চুলকানি?

AlNomanrand1r1
Sep 10, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
সারাজীবন থাকবে না। চিকিৎসা নিলে এটি ভাল হয়ে যাবে। আমি জানি না, আপনার আক্রান্ত জায়গাগুলোতে পুঁজ বা ঘা আছে কিনা। যদি থাকে তাহলে এন্টিবায়োটিক ব্যবহার করে তা শুকাতে হবে। তারপর স্কেবিস এর ওষুধ ব্যবহার করতে হবে।  এটি কিন্তু ছোঁয়াচে রোগ। আপনার পোশাক যেন অন্য কেউ না পরে বা স্পর্শ করে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। আপনার পোশাকগুলো গরম পানিতে সেদ্ধ করে রোদে শুকিয়ে ইস্ত্রি করবেন।  এমনকি আপনার বিছানার চাদর, বালিশ কভার, গামছা এগুলোও গরম পানিতে সেদ্ধ করে রোদে শুকিয়ে ইস্ত্রি করবেন। যেদিন এগুলো ধুবেন সেদিন অবশ্যই অন্য কোন পরিষ্কার কাপড় পরবেন। এবং ধোয়া কাপড়গুলো ইস্ত্রি করার পর যেকোন একটি পরবেন। তথা গোসল করে ওগুলোর কোন একটা পরবেন এবং অন্য যে কাপড়টা পরেছিলেন সেটিও আবার আগের নিয়মে পরিষ্কর করবেন। কিছু ক্রীম আছে যা ব্যবহার করলে স্কেবিস থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে। কতিপয় কারনে আমি সেসব ক্রীমের নাম বলতে পারছি না বলে দুঃখিত।  এসব ক্রীম গলা থেকে পায়ের পাতা পর্যন্ত সবখানে লাগাতে হয়। চুলকানি থাকলে এন্টিহিস্টামিন খেতে হবে। আমি অনুরোধ করছি: দয়া করে একজন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ কে অতি দ্রুত দেখাবেন। যদি আশেপাশে কোন চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ না পান তাহলে একজন অভিজ্ঞ মেডিসিন বিশেষজ্ঞ কে দেখাবেন। মোটকথা, আপনাকে চিকিৎসক এর শরণাপন্ন হতেই হবে। আরেকটি কথা: বাড়ীতে এই রোগটি একজনের হলে ধীরেধীরে অন্যদেরও হতে পারে। তাই,  খুব সতর্ক থাকবেন। এবং অবশ্যই চিকিৎসা নিবেন। ভুলেও হোমিও বা অন্য কোথাও ট্রিটমেন্ট নিবেন না।

খেলে কি কি উপকার পাওয়া যায়।?

AlNomanrand1r1
Sep 10, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন

যারা অক্ষম ( সহবাসে )  তাদের জন্য এই ওষুধ টি ভারতের একটি কোম্পানি বাজারজাত করেছে।

জ্বী, শুক্রাণু বাড়াতে পারে।


তবে, আমি ভারতের অনেক লোককেই এই ওষুধের ব্যাপারে প্রশ্ন করেছিলাম যে ওষুধটির কার্যকারিতা কেমন। তারা খুব একটা ইতিবাচক উত্তর আমাকে প্রদান করতে পারেন নি।

তথা, এটি সেবনে তাদের অনেকেরই তেমন কোন উন্নতি হয় নি।


বলে রাখি, এই ওষুধ টি কিছু ভিটামিনের সমষ্টি।

বিভিন্ন প্রকার মূল্যবান ভিটামিন দিয়ে এটি তৈরি করা হয়েছে।


আমার মতে, এসব ওষুধ না খাওয়াই ভাল। কারন, কোম্পানি তো অখ্যাত!

যৌন সমস্যা থাকলে একজন যৌনরোগ বিশেষজ্ঞ কে দেখালেই উপকার পাওয়া যাবে।


এক্সট্রা টিপস:

মসলা জাতীয় খাবারগুলো খেলে আমাদের ছেলেদের যৌনশক্তি বৃদ্ধি পায়। শুক্রাণুও বৃদ্ধি পায়।

কালিজিরা, রসুন, আদা, দারচিনি, লবঙ্গ, গোলমরিচ...  এগুলো প্রতিদিন নিয়ম মেনে অল্প পরিমাণে খেলে উপকার পাওয়া যাবে। 

ভুলেও বেশি খাওয়া যাবে না।

তাছাড়া, ব্যায়াম করলেও যৌনশক্তি বাড়ে। 

ডেপোটিন কি সেক্সের স্থায়ীভাবে কাজ করে?

AlNomanrand1r1
Sep 10, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
না, এটি অস্থায়ীভাবে কাজ করে। এসব ওষুধ নিজ ইচ্ছায় কখনই সেবন করা যাবে না। প্রয়োজনে রেজিস্টার্ড এমবিবিএস ডিগ্রিধারী ডাক্তার কে দেখাতে হবে।
হ্যাঁ, অনেকের যেতে পারে।

সকালে ভোরের বাতাস হজমশক্তি বাড়ায়। ফলে অনেকের এতে ওজন কমতে পারে।


সকালের বাতাস রক্তচাপ ও হার্টবিট স্বাভাবিক রাখে।


সকালের বাতাস সিরোটনিন নামক হরমোন তৈরি করতে পারে যার ফলে একজন মানুষ সুখি হতে পারে।


সেই ভোরের বাতাস আমাদের ফুসফুস কে পরিষ্কার রাখে। ফলে, ফুসফুস এর বিভিন্ন রোগ হতে রেহাই পাওয়া যায়।


সকালের বাতাস আমাদের শরীরের শ্বেত রক্ত কণিকা কে অনেকাংশে সাহায্য করতে পারে এবং এর ফলে সেই শ্বেত রক্ত কণিকা বিভিন্ন জীবাণু বা ব্যাকটেরিয়ার বিরুদ্ধে লড়তে পারে। এতে শরীর ইনফেকশন মুক্ত থাকে।


ভোরের সেই বাতাস আমাদের মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়াতেও পারে।


কোন নিরিবিলি/ কোলাহল মুক্ত জায়গায় ভোরের বাতাস উপকারে আসতে পারে।

শহরে তেমন একটা উপকার পাওয়া যাবে না। 

আশা করি, বুঝতে পেরেছেন। 

শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দিলে চোখ মুখ ফ্যাকাশে দেখাতে পারে। তাছাড়া, দুর্বলতা,  মাথাঘোরা,  মাথাব্যথা, ঝাপসা দেখা, ঠোঁটে মুখে ঘা ইত্যাদি হতে পারে। রক্তশূন্যতা খুব বেশি পরিমাণে থাকলে বুক ধড়পড় করতে পারে, শ্বাসকষ্ট হতে পারে। এমনকি হার্টের জটিল  রোগও হতে পারে।

একটা বিশাল সমস্যায় ভুগছি!?

AlNomanrand1r1
Sep 9, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
এটি এক প্রকার মানসিক সমস্যা। তবে, তার পেনাইল টিস্যুর ওপর চাপও পড়তে পারে। একারনে এরকম সমস্যা হতে পারে। এ সমস্যা হতে পরিত্রাণ পেতে হলে তাকে অবশ্যই পর্ণ দেখা হতে বিরত থাকতে হবে। এবং অবশ্যই হস্তমৈথুন পরিহার করতে হবে। নিয়মিত ব্যায়াম করতে হবে। ধর্মীয় নিয়মকানুন মেনে চলতে হবে। পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। মসলাজাতীয় খাবার যেমন, আদা, রসুন, কালজিরা, দারচিনি, লবঙ্গ প্রতিদিন অল্প অল্প করে খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। E-cap 400 প্রতি রাতে ০১ টি করে ০৩ মাস খেতে বলবেন। চিন্তার কোন কারন নেই। এসব নিয়ম পালন করলে সে ভাল হবে।

প্রতি ৬ মাস পরপর অভিজ্ঞ চক্ষু বিশেষজ্ঞ কে দেখাবেন।

কম আলোতে পড়বেন না।

চোখের ব্যায়াম করবেন। ইউটিউব এ চোখের ব্যায়ামগুলো পাবেন।

Eye exercise লিখে সার্চ করলেই পাবেন।

পুষ্টিকর খাবার খাবেন।

মোবাইল বা টিভি স্ক্রিণের দিকে বেশিক্ষণ তাকাবেন না। বরং এগুলো যতটা পারেন কম ইউজ করবেন।

শুধুমাত্র গোসল ও ঘুমানোর সময় ছাড়া সবসময় চশমা ব্যবহার করবেন।

কোন টেনশন করবেন না।

সিগারেট বা কোন নেশা করবেন না। এগুলো চোখের অনেক ক্ষতি করে।


রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে দু পায়ের পাতায় সরিষা বা অন্য কোন তেল হালকা করে ম্যাসাজ করে ঘুমিয়ে পড়বেন। এটি প্রতিদিন করবেন।

নাকের হাড় বাঁকা, মাংস বাড়া বা টিউমার হওয়া কে এক কথায় পলিপাস বলে না। বরং এগুলো একেকটি রোগের নাম। পলিপ প্রায় মাংসপিণ্ডের মত যা আমাদের নাকের ভিতরে থাকে। নাকের বা নাকের আশেপাশের সাইনাস অঞল থেকে ঝুলে পড়া ফোলা ফোলা mucosa ( শ্লৈষ্মিক ঝিল্লি )   কে নাকের পলিপ বলে। এই পলিপের ভেতর কোন এলার্জি, ইনফেকশন বা প্রদাহ হলে তাকে পলিপাস বলে।

ক্রোমটিড কাকে বলে?

AlNomanrand1r1
Sep 9, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন

কোষ বিভাজনের প্রফেজ ধাপে প্রত্যেকটি ক্রোমোজোম লম্বালম্বিভাবে আলাদা হয়ে যে সমান আকৃতির দুটো সুতার মতো অংশ গঠন করে, তাকে ক্রোমাটিড বলে।


পুরো CBC রিপোর্ট টা দেখা লাগতো।


যাহোক, প্লাটিলেট স্বাভাবিক আছে।

আপনার ডেঙ্গু নেই বা হবার তেমন সম্ভাবনা নাই।


বলে রাখি, ডেঙ্গুজ্বর হলে প্লাটিলেট কমে যায়। 

কিন্তু, প্লাটিলেট কমে যাওয়া মানেই ডেঙ্গুজ্বর নয়।

বিভিন্ন কারনে প্লাটিলেট কমে যেতে পারে।


ধরুন, কারো ডেঙ্গুজ্বর হলো। এখন তার প্লাটিলেট যদি ১ লাখ এর নিচে আসে তাহলে প্রোপার ট্রিটমেন্ট গ্রহণ করতে হবে।

আবার, প্লাটিলেট যদি ৫০ হাজারের নিচে আসে তাহলে বিষয়টিকে সিরিয়াসলি নিতে হবে। তখন হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার প্রয়োজন হতে পারে।

আশা করি, বুঝতে পেরেছেন।

শরীরে রোগ থাকলে বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিবে।

তবে, অনেক সময়ে কিছু রোগে কোন উপসর্গ দেখা নাও দিতে পারে।


শরীরে কোন রোগ আছে কিনা তা জানার জন্য অনেক কয়েকটি টেস্ট করতে হয়।

তবে, নিচের এই কয়েকটি টেস্ট করলেই শরীর সম্পর্কে একটা মোটামুটি ধারণা পাওয়া যায়।

টেস্টগুলো হলো:

  • CBC
  • Urine R/M/E
  • S.Creatinin
  • RBS
  • Chest P/A View
  • USG of Whole Abdomen
  • SGPT

ঘা এর ট্যাবলেট এর নাম জানতে চাই।?

AlNomanrand1r1
Sep 9, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
সিভিট দিনে ২ টা করে খাবেন। Fungidal HC cream টা ইউজ করতে হবে আক্রান্ত জায়গায় দিনে ২ বার করে ১৪ দিন। ফ্লুগাল ১৫০ ওষুধ টি ৭ দিন পরপর খেতে হয় ১/২ মাস।  অথবা,  আপনি ফ্লুগাল ৫০ মিঃগ্রাঃ প্রতিদিন ১ টি করে ১০ দিন খেতে পারেন। আক্রান্ত জায়গা শুকনো রাখবেন। আন্ডারওয়্যার না পরাই ভাল। পরলেও ১/২ দিন পরপর পরিষ্কার করতে হবে। এসব নিয়ম পালন করলেই ক্ষতসহ অন্যান্য সমস্যাও দূর হবে।

Pus cell planty কি?

AlNomanrand1r1
Sep 9, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
এটির মানে হলো প্রসাবে ইনফেকশন হয়েছে। এটি অধিকাংশ সময়ে ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন হয়। 

এটির উপকারিতা হলো শরীরের মাংসপেশি কে অনেক শক্তিশালী বানায়।


এটির অপকারিতা হলো: এটির কারনে কখনো কখনো মাথাব্যথা, গলা বা ঘাড় ব্যথা হতে পারে। তাছাড়া ত্বকে প্রদাহও সৃষ্টি হতে পারে।

এটি ব্যবহারের নিয়ম আছে। হুট করে না জেনে ব্যবহার করা যাবে না।
যেখান হতে কিনবেন সেখান হতে ভালভাবে কলাকৌশলগুলো রপ্ত করে নিবেন।
হস্তমৈথুনের কারনে মুখে ব্রণ হবে না।  তবে, অন্য কোন সমস্যা থাকলে তার দরুন ব্রণ বের হতে পারে।
দুটো দুরকমের ওষুধ। একসাথে খেতে পারবেন যদি চিকিৎসক এই ওষুধগুলো আপনাকে খেতে বলেন। নিজ থেকে ওষুধ খাবেন না। হিতে বিপরীত হতে পারে।
পিপিএ হলো এক প্রকার নিউরোলজিকাল টেস্ট। মস্তিষ্কের কিছু রোগ নির্ণয়ে এই টেস্ট টি করা হয়। এমন অনেক রোগী আছে যারা ব্রেণে সমস্যা থাকার কারনে কথা বলতে পারে না, স্মরণশক্তি খুবই কম....  এরকম সমস্যা নির্ণয়ে উক্ত টেস্ট টি করা হয়ে থাকে।

হতেও পারে আবার নাও পারে।

সর্বাগ্রে, রিপোর্ট দেখতে হবে।

রিপোর্ট দেখে যথাযথ ওষুধ বাছাই করতে হবে।

যা একজন রেজিস্টার্ড চিকিৎসক  দ্বারা সম্পন্ন হবে।

নিজ থেকে এন্টিবায়োটিক গ্রহণ ভয়াবহ বিপদ ডেকে আনতে পারে।


উল্লেখ্য, গনোরিয়া যতদিন ভাল হয় নি ততদিন স্ত্রী সহবাস নিষিদ্ধ।  এবং গনোরিয়া আক্রান্ত হবার পর সহবাস করলে স্বামী স্ত্রী দুজনকেই একসাথে চিকিৎসা নিতে হবে। 
Dengue NS1 টেস্টের মাধ্যমে ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়। তাছাড়া, এটির পাশাপাশি CBC টেস্টও করা লাগে। 
রোগীর শরীরে রক্তস্বল্পতা রয়েছে। এবং এই রক্তস্বল্পতা দীর্ঘদিনের।  একারনে, রোগীর শ্বাসকষ্ট হতে পারে, বুক ধড়পড় করতে পারে, শারীরিক শক্তি কমতে পারে। রিপোর্ট টি দেখে আরো অনুমান করতে পারছি যে, রোগীর শরীরে ব্যথা বা প্রদাহ বা হালকা ইনফেকশন রয়েছে। রোগীর বয়স অনেক।  হয়তো, বাত ব্যথা থাকতে পারে তার। রোগীর শরীরে Vitamin B12, Folic Acid & Iron এর অনেকটা অভাব রয়েছে। এই ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবারগুলো রোগী কে বেশি করে খাওয়াতে হবে নিয়মিত। ডিম, গরুর মাংস/কলিজা, কচু শাক নিয়মিত খেতে হবে।   এবং চিকিৎসক এর দেয়া ওষুধ খেতে হবে ও চিকিৎসক এর নিকটে কিছুদিন পরপর যেতে হবে। তাছাড়া, এই রোগীর কিডনি ফাংশন টেস্ট ও ইউরিন টেস্ট করা প্রয়োজন।  সর্বোপরি, রোগী ভাল হবেন। রিপোর্টে তেমন জটিল কোন সমস্যা নেই। 

বিবাহ সম্পর্কিত আইনের দলিল?

AlNomanrand1r1
Sep 7, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন

না, এমন কোন চুক্তি আমাদের দেশে নেই।

তথা, বৈধভাবে এমন চুক্তি সম্পাদন করা সম্ভবপর নয়।

তবে, অবৈধভাবে হতে পারে।


কিন্তু, অবৈধভাবে হলেও তখন রিস্ক এর পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।
তাছাড়া, এমন পরিস্থিতিতে মৌলভী ডেকে এনে বিয়েটা পড়িয়ে রাখা যেতে পারে। তবে এই বিয়ে পড়ানোটা আইনের কাছে অর্থহীন।

কিসের লক্ষণ?

AlNomanrand1r1
Sep 7, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
পরিপাকতন্ত্রের সমস্যা হতে পারে। ভাজাভুজা খাবার খাবেন না। ব্যায়াম করবেন। ইসবগুলের ভুসি ২ বেলা করে খাবেন। পানি খাবেন পরিমিত পরিমাণে। ৩ দিনের ভেতর উন্নতি না হলে একজন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ কে দেখাবেন।

জানা থাকলে দয়া করে বলবেন?

AlNomanrand1r1
Sep 6, 2019-এ উত্তর দিয়েছেন
পুরো রিপোর্ট টি দেখা লাগতো। বিভিন্ন কারনে প্রসাবে এলবুমিন যেতে পারে। এখন আপনার রিপোর্টে সেই মাত্রাটা দেখা প্রয়োজন। যৎসামান্য গেলে কোন সমস্যা নেই। জ্বর, ইনফেকশন,  অতিরিক্ত পরিশ্রম,  উচ্চরক্তচাপ, ডায়াবেটিস ইত্যাদি রোগে প্রসাবে এলবুমিন যেতে  পারে। যথাযথ ওষুধ ( এন্টিবায়োটিক লাগতেও পারে )  প্রয়োগ করা লাগতে পারে একটি নির্দিষ্ট ডোজে। রিপোর্ট টি নিয়ে একজন মেডিসিন বিশেষজ্ঞের নিকটে যাবেন। শাক সবজি, ফলমূল বেশি করে খাবেন। নেশা করবেন না। লবণ না খাওয়া ভাল। ফাস্টফুড খাবেন না। তবে মাঝেমাঝে নুডুলস খেতে পারেন। পানি পরিমিত পরিমাণে খাবেন। সব ঠিক হয়ে যাবে।

আপনি কিভাবে বুঝলেন আপনার ভেরিকোস ভেইন এর সমস্যা আছে?


প্রশ্নে উল্লেখিত টেস্ট দুটো কী চিকিৎসক করতে দিয়েছেন?


আমার জানা মতে, এ রোগে Doppler test & colour duplex ultrasound scan এ দুটো টেস্ট করাই এনাফ।

কারন, এ দুটো টেস্ট হতে শিরা সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায় ভাল।

যেমন, শিরায় রক্ত প্রবাহ কেমন চলছে বা শিরায় কোন অস্বাভাবিকতা রয়েছে কিনা।

এগুলো জেনে চিকিৎসা দেয়া সহজতর হয়।

MRI এর প্রয়োজন নেই। 


উপদেশ :

নিয়ম মেনে আপনাকে ব্যায়াম করতে হবে নিয়মিত।

ওজন বেশি থাকলে অবশ্যই কমাবেন।

প্রয়োজনে ব্যায়ামের জন্য একজন ফিজিওথেরাপিস্টকেও দেখাতে পারেন। 


Loading...