Jannatul jannat

Jannatul jannat

Other no: 33180
300 consultation fee
5 Followers | 216 Views
Rated 5 / 5 based on 13 reviews

Jannatul jannat

হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক। DHMS(বোর্ড স্ট্যান্ড)।স্ত্রী, চর্ম,যৌন,শিশু,মানসিক রোগ এ অভিজ্ঞ।অনিয়মিত ঋতুস্রাব, বন্ধ্যাত্ব,নাকের মাংসবৃদ্ধি,পাইলস,শুচিবাই, ব্রেস্টটিউমার সহ সকল ধরনের টিউমার এর সুচিকিৎসা ও পরামর্শ প্রদান করা হয়।

  • Female | Married | Islam

Chamber

  • রংপুর হোমিও হেলথ্ কেয়ার

  • Addess: মাহিগঞ্জ,রংপুর
  • Appointment Number: 01785368713

Services

Medicine Expert, Child Disease Expart, Gyne And Infertility Expart, Skin VD And Sexology Expart

  • Starts from 300
  • আল্লাহর রহমতে অতি অল্প সময়ে গ্যারান্টি সহ নাকের পলিপাস ও বন্ধ্যাত্বের সুচিকিৎসা দেওয়া হয়। আল্লাহর রহমতে অতি অল্প সময়... see more

Work Experience

  • চিকিৎসক

  • রংপুর হোমিও হেলথ্ কেয়ার
  • 2019-present

Language

Bengali/Bangla English

Training

Education

Rangpur Homeopathic medical College and hospital

  • D.H.M.S, BHB (Dhaka)
  • DHMS
  • 2014-2017
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 0 বার দেখা হয়েছে | এই মাসে 0 বার
0 টি প্রশ্ন দেখা হয়েছে 0 বার
0 টি উত্তর দেখা হয়েছে 0 বার
0 টি ব্লগ | 0 টি মন্তব্য | 0 টি প্রিয়

Blogs

Recent Q&A

Urethritis (মূত্রথলীর প্রদাহ)

Urethritis ( ইউরেথ্রাইটিস ):-

ইউরেথ্রাইটিস হলো মূত্রনালীর প্রদাহ। এ ক্ষেত্রে মূত্রনালীর মুখে অর্থাৎ লিঙ্গমণ্ডুর ছিদ্রে ব্যথা অনুভূত হয়। এই ব্যথা প্রস্রাব করার সাথে সাথেই অনুভূত হয়। সাধারণত প্রস্রাব করা শেষ হয়ে গেলে অনেকের একটু পর ব্যথা চলে যেতে দেখা যায়- মলদ্বার থেকে ব্যাকটেরিয়া মূত্রনালী ছড়িয়ে যখন Urethritis সাধারণত সৃষ্টি হয়. সংক্রমণ মূত্রাশয়, প্রস্টেট গ্রন্তি এবং জননাঙ্গের অন্যান্য অসুখে ও প্রভাবিত করতে পারে।এটি যৌন রোগের কারনে হতে পারে (Bruising) যা মুলত সব বয়সের পুরুষ এবং মহিলাদের মধ্যে ঘটতে পারে –

লক্ষণ এবং উপসর্গ :- 

প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া। প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া সৃষ্টি করার প্রধান জীবাণুটি হলো ব্যাকটেরিয়া। তবে অনেক ছত্রাক বা ফাঙ্গাস এ ধরনের প্রদাহ ঘটিয়ে থাকে । মেয়েদের মূত্রনালী পায়ুপথের খুব কাছে থাকে বলে সহজেই জীবাণু প্রবেশ করতে পারে। ই-কলাই নামক জীবাণু শতকরা ৭০-৮০ ভাগ প্রস্রাবের প্রদাহের কারণ।অনেক সময় পানি শূন্যতা দেখা দেওায়া বা অনেক সময় কিডনির নিঃসৃত পানি গরম থাকার জনা মুত্র নালীর প্রদাহে অনেক সময় জ্বালা পোড়া দেখা দিতে পারে, তবে তা সবাময়িক ইহা তে ঘাবড়ানোর মত কিছুই নাই তবে বারে বারে যাতে না হয় সে জন্য প্রচুর পরিমাণে পানি বা ঐ জাতীয় কিছু পান করা।

মহিলাদের বেলায় urethritis এ যে সব উপসর্গ থাকে,

 পেটের ব্যথা বেদনাদায়ক মূত্রত্যাগ-অস্বাভাবিক যোনি স্রাব–জ্বর এবং শরীর ঠান্ডা হয়ে যাওয়া-ঘন ঘন প্রস্রাব বা মূত্রত্যাগ এবং তখন প্রস্রাবের প্রচণ্ড চাপ অনুভব–তল পেটে স্বাভাবিকভাবে অথবা চাপ দিলে ব্যাথা অনুভব করেন সেই সাথে অনেকের কোমরের পাশের দিকে অথবা পিছনে মাঝামাঝি অংশে ব্যাথা বা খিল ধরার মত কিছু মনে হয় –মাঝে মাঝে বমি হতে পারে। নববিবাহিত মেয়েদের প্রস্রাবের প্রদাহ হতে পারে। সহবাসের পর জীবাণু মূত্রনালী দিয়ে মূত্রথলিতে প্রবেশ করে বেশির ভাগ মহিলাদের – তবে ছত্রাক বা ফাঙ্গাস জনিত কারনে হলে অবশ্যই মুত্র নালীর মুখ বা ভ্যাজাইনাতে চুলকানি লক্ষণ থাকবেই – বা প্রেগন্যান্ট মায়েরা দ্বিতীয় বা তৃতীয় ট্রাইমিস্টারে (১২/১৬ সপ্তাহ পর)ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে মুত্র নালীর যন্ত্রণা দেখা দিতে পারে (সে সময় চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া এন্টিবায়োটিক ব্যাবহার করবেন না কারন অনেক এন্টিবায়োটিক ভ্রুনের বাচ্চার জন্য ক্ষতিকারক) – কিছু কিছু মহিলাদের হরমোন জনিত ঔষধ সেবন করার কারনে ব্যাকটেরিয়া সৃষ্টি হতে পারে তবে তা মাত্র ২% অথবা মেনোপজ এর সময় একটু বেশি হওয়ার সম্ভাবনা আছেই । এলার্জি জনিত কারনে হলে অবশ্যই যোনি মুখের আশ পাশ লাল হয়ে ফুলে যাওয়া ও উষ্ণ চুল্কানির লক্ষণ থাকবেই – যারা অপরিষ্কার ভাবে স্পার্মিসাইড বা কৃত্রিম যৌনমিলন করলে তাদের বেলায় একটু ঝুঁকি বেশি আছেই। 



পুরুষদের বেলায় যে সব উপসর্গ থাকতে পারেঃ শুধু প্রস্রাবে জ্বালাপোড়াই করে না, বার বার প্রস্রাবের বেগ হয়, ফোঁটায় ফোঁটায় প্রস্রাব পড়ে। প্রস্রাবের রঙ ধোঁয়াটে, দুর্গন্ধযুক্ত ও পরিমাণে কম হয়। মাঝে মাঝে তলপেটে ব্যথা হতে পারে। যৌনকাজে অনিচ্ছা জাগে-শিশ্ন থেকে পুঁজ বা সাদাটে শ্লেষ্মা স্রাব দেখা যায় –লিঙ্গ খোলার চারপাশে জ্বালাপোড়া, চুলকানি থাকতে পারে –প্রস্রাব বা বীর্য মধ্যে রক্তের কিছু স্পট – প্রোস্টেট গ্লেন্ড বা নালীর ইনফেকশনে ও অনেক সময় মুত্র নালিতে সংক্রামিত হতে পারে।অমুসলিমদের মুত্রনালীর অগ্রাভাগ সর্বদা ফোটিয়ে পরিষ্কার করা উচিত। মুসলমানি না করা হলে লিঙ্গের অগ্রভাগের ত্বকের ভাঁজের ভেতর ব্যাকটেরিয়া জমে প্রদাহ সৃষ্টি করতে পারে। বিশেষ করে মূত্র নালীতে জীবাণু আটকে ঘা বাড়াতে পারে–শারীরিক পরিশ্রমের কারণে মূত্রথলি বা মূত্রনালীতে চাপ পড়লে অনেক সময় হতে পারে ইত্যাদি।

পুরুষ এবং মহিলা উভয়ের ক্ষেত্রে, সিফিলিস, গনোরিয়া, হারপিস ভাইরাস বা এইচআইভি এবং এইডস হিসাবে যৌন রোগে জাতীয় সেক্সুয়েল ট্রান্সমিটেড ডিজেজ থাকলে মুত্র নালীর প্রদাহ সব সময় লেগেই থাকবে যতক্ষণ পূর্ণ চিকিৎসা করানো হয়েছে – আবার অনেকের যৌন সঙ্গমের কারণেও জীবাণু মূত্রনালীতে প্রবেশ করে প্রদাহ করতে দেখা যায় – এই জীবাণু গুলো জীবাণু মূত্রনালীপথে মূত্রথলিতে ও শেষ মেষ কিডনিতে প্রবেশ করে তার পর সারা শরীরের রক্তে ছড়িয়ে যেতে পারে- বিশেষ করে অবৈধ সম্পর্ক জড়িত বা বহু পুরুষ বা মহিলাতে আসক্ত ব্যাক্তিদের এই ধরনের অসুখ থাকবেই অথবা সমকামীদের বেলায় ৯৯% এ জাতীয় অসুখ থাকবে । যা মুলত কখন, প্রথম অবস্তায় বুঝা যায়না বা অনেকে লজ্জায় প্রাথমিক ভাবে লুকিয়ে রাখতে চায়, এট কখন ও ঠিক না চিকিৎসকের কাছে খোলামেলা সব বলতে হবে। 

 মুত্র নালীর সাথে সম্পর্ক যুক্ত যে কোন অংশে ব্যাক্টোরিয়ার আক্রমণ করলে মুত্র নালী তে প্রদাহ হতেই পারে – যৌন বাহিত রোগ ছাড়া ও অন্যান্য যে সব কারনে পস্রাব করতে কষ্ট বা যন্ত্রণা হতে পারে যেমন – প্রোস্টেটাইটিস (প্রোস্টেট গ্রন্থিপ্রদাহ ), এপিডিডাইমাইটিস (নালী যেখানে অণ্ডকোষের শুক্রাণু জমা থাকে।), সিস্টাইটিস ( মুত্র থলির প্রদাহ ), নেফ্রাইটিস ( কিডনির প্রদাহ ) ইত্যাদি উপরের কারণগুলো ছাড়াও প্রস্রাব করার সময় আর যে যে কারনে ব্যথা হতে পারে, যেমন-মূত্রথলিতে অথবা মূত্রনালীতে ক্যান্সার–মূত্রপথে প্রতিবন্ধকতা–কিডনিতে অথবা মূত্রথলিতে পাথর- তবে এই সব কারনে মুত্র পথে জ্বালা পোড়া করলে অবশ্যই মেজর এই সব রোগের আর অন্যান্য লক্ষণ সঙ্গে যোক্ত থাকবেই যার কারনে অসুখের প্রথমেই এত ডিপে যাওয়ার প্রয়োজন মনে হয়না। 

প্যাথলজিক্যাল পরিক্ষা (Investigation):- ইউরিনের রুটিন পরীক্ষাকরা দরকার। C/S করালে কোন জীবাণুর দ্বারা হলে তা সহজেই ধরা পড়বে – সেই সাথে ব্লাড পরীক্ষা করালে অবশ্যই আর ও ভাল হয় – ইউরিন সিএস টেস্ট নামে পরিচিত বা আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ অনুসারে আর অনেক ধরনের পরীক্ষা করাতে পারেন যেমন (Cystoscopy –Blood Cultures) ইত্যাদি।

চিকিৎসা:- এর জন্য সর্বাধিক কার্যকর চিকিৎসা হলো পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াহীন সর্বাধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা। এই ধরনের সমস্যা দেখা দিলে অভিজ্ঞ রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এর চিকিৎসা নিন, রোগমুক্ত হোন।

প্রয়োজনে,
ডা:জান্নাতুল ফেরদৌসী 
ডি,এইচ,এম,এস(বোর্ড স্ট্যান্ড).
বি,এইচ,বি(ঢাকা) 
চেম্বার :রংপুর হোমিও হেলথ্ কেয়ার। 
মাহিগঞ্জ, রংপুর। 
মোবাইল:01785368713 0 likes | 2 views

Gastritis

Gastritis (উদরশূল)

আজকে আমার বহুল পরিচিত রোগ বর্তমানে ঘরে ঘরে বিদ্যমান সেই Gastritis (উদরশূল) নিয়ে আলোচনা করবো। 

Gastritis সাধারণত অম্লরোগ বা এসিডিটি নামে পরিচিত।

 Gastritis এর কারণ, 
কোন বীজাণুর সংক্রমণে পাকস্থলীতে অতিরিক্ত মাত্রায় অম্ল বা এসিড সৃষ্টি হলে এই রোগের জন্ম ঘটে। খাবার হজম করার জন্য পাকস্থলীতে যে পাচকরস নির্গত হয় তাতে হাইড্রোক্লোরিক এসিড থাকে।এই ভহাইড্রোক্লোরিক এসিড বিভিন্ন কারণে অধিক পরিমাণে নির্গত হতে পারে যেমন দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকা,বা অতিরিক্ত খাবার খাওয়া ইত্যাদি কারণে অতিরিক্ত মাত্রার পাচকরস নির্গত হয় যার ফলে পাকস্থলী উত্তেজিত হয়ে Gastritis দেখা দেয়।আবার অনেক ক্ষেত্রে অনেকের অতিরিক্ত অম্লঘটিত খাদ্যগ্রহন,দীর্ঘদিন ধরে আমাশয় বা উদারাময়,অতিরিক্ত মাত্রায় চা,কফি পান,তামাক,জর্দা ইত্যাদি সেবন করা।অতিরিক্ত মশলাযুক্ত খাবার, প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ওষুধ সেবন, না খেয়ে থাকা ইত্যাদি কারণে Gastritis (উদরশূল), এসিডিটি হতে পারে।

Gastritis এর লক্ষন,
#অম্লভাব,গলা বুকে জ্বালাপোড়া ভাব।
#পেটে জ্বালা ভাব সহ ব্যাথা এবং টিপলে খুব ব্যাথার সৃষ্টি। 
#সবসময় পেট,পাকস্থলী ভারবোধ মনে হয়।
#পানি খেতে ইচ্ছে হয় কিন্তু অনেক সময় বমি হয়ে যায়।
#বমি বমিভাব বা বমি হয়।
#মূখের স্বাদ বিস্বাদ হয়ে যায়,খাবারের ইচ্ছে থাকে না।
#জিহবায় সাদা অথবা হলদে ময়লার দাগ দেখা যায়।
#শরীর দূর্বল, অবসন্নতা, মাথাঘোরানো ইত্যাদি দেখা যায়।
#দীর্ঘদিন এ রোগে ভূগলে ক্ষুধাহীনতা,আলসার সৃষ্টি হতে পারে। 

Gastritis (উদরশূল) থেকে পরিত্রাণের উপায়, 
প্রয়োজন অনুপাতে পর্যাপ্ত পানি পান করা,পঁচা বাসি খাবার পরিহার করা,পর্যাপ্ত ঘুমানো,অতিরিক্ত তেল মসলাদার খাবার এড়িয়ে চলা ও প্রচুর শাকসবজি গ্রহন করা।পরিমিত খাবার খাওয়া এবং শরীরচর্চা করা।

আর যদি Gastritis রোগ শরীর এ দেখা যায় তবে একজন অভিজ্ঞ রেজিস্টার্ড চিকিৎসক এর পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ সেবন করতে হবে। 0 likes | 8 views

ইউরিন C/S টেস্ট কি?

0 likes | 14 views

আমার দির্ঘদিন থেকে কাশিতে ভুগেতেছি, ডাঃ দেখানোর পরেও আরাম পাচ্ছি না। কি করব?

1 likes | 22 views

আমার ৩৫দিন হলো মাসিক হচ্ছে না অথচ মাসিকের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে এবং মাঝে মাঝেই সাদা স্রাব হচ্ছে কী করণীয়?

0 likes | 54 views

আসসালামু আলাইকুম স্যার আমার বউ এর আধকপালি রোগ আছে এখন মাথা ব্যাথা সারাতে কি ঔষধ খাওয়া উচিত

0 likes | 8 views

মলদ্বারের পাশে একটু ফুলে গেছে। একেবারে ভালো হওয়ার জন্য সমাধান কি?

0 likes | 12 views