Ratul Hasan

Ratul Hasan

0 Views
Rated 5 / 5 based on 0 reviews

Ratul Hasan

  • 2023 – Present at Dhaka
  • Male | Single | Islam

Chamber

Services

Work Experience

  • Student

  • Student
  • 2023-present

Skills

Video Editing

Language

Bengali/Bangla

Training

Education

narikelbaria degree college

  • H.S.C
  • Humanities
  • 2022-present
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 0 বার দেখা হয়েছে | এই মাসে 0 বার
0 টি প্রশ্ন দেখা হয়েছে 0 বার
0 টি উত্তর দেখা হয়েছে 0 বার
0 টি ব্লগ | 0 টি মন্তব্য | 0 টি প্রিয়

Blogs

Recent Q&A

"উপসর্গের অর্থবাচকতা নেই, কিন্তু অর্থদ্যোতকতা আছ |" আলোচনা করো।?

উঃ : উক্তিটি বিশ্লেষণ: যেসব অব্যয় মূল শব্দ বা ধাতুর সঙ্গে মিলে বা ধাতুকে অবলম্বন করে ওই ধাতুর নানা অর্থের সৃষ্টি করে, তাদের উপসর্গ বলা হয়। বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত উপসর্গগুলোর কোন অর্থবাচকতা নেই, শুধু মূল শব্দ বা ধাতুর আগে এরা ব্যবহৃত হলেই এদের অর্থদ্যোতকতা শক্তি দৃষ্ট হয়।


উদাহরণ হিসেবে বলা যায়: 'অনা' একটি উপসর্গ। এর নিজের কোনো অর্থ নেই। কিন্তু 'আবাদ' শব্দের আগে 'অনা’ শব্দটি ব্যবহৃত হয়ে ‘অনাবাদ', অর্থাত্ 'আবাদ নেই যার ’ অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে। তেমনি এটা আচারের পূর্বে ব্যবহৃত হয়ে অনাচার (আচার বহির্ভূত অর্থে) এবং সৃষ্টির আগে ব্যবহূত হয়ে অনাসৃষ্টি (অদ্ভুত অর্থে)। এরূপে ভিন্ন ভিন্ন অর্থদ্যোতকতা সৃষ্টি করেছে। সুতরাং, দেখা যাচ্ছে যে উপসর্গসমূহের নিজস্ব কোনো বিশেষ অর্থবাচকতা নেই, কিন্তু অন্য শব্দের আগে যুক্ত হলেই এদের অর্থদ্যোতকতা বা সংশ্লিষ্ট শব্দের নতুন অর্থ সৃজনের ক্ষমতা সৃষ্টি হয়।

0 likes | 5 views