ড্রাই আই সিনড্রোম (চোখের শুষ্কতা) কি?
চোখ শুকিয়ে খটখটে। মনে হয় কিছু একটা চোখে পড়েছে। কখনো চুলকায়। আলো লাগলে আরও বেশি যেন খচখচ করে। এই সমস্যার নাম ড্রাই আই সিনড্রোম বা শুষ্ক চোখ। চোখের ওপর চোখের পানির একটা পাতলা আস্তরণ আছে। জল, তেল, পিচ্ছিল মিউকাস আর জীবাণুরোধী অ্যান্টিবডি দিয়ে তৈরি এই চোখের পানি। চোখের গ্রন্থি থেকে কোনো কারণে এই পানি নিঃসরণ কম হলে চোখ শুষ্ক হয়ে পড়ে, অর্থাৎ চোখে যথেষ্ট পানি তৈরী হয় না বা দ্রুত বাষ্পীভূত হয়ে যায়। তখনই এসব সমস্যা দেখা দেয়।

ড্রাই আই সিনড্রোমের প্রধান লক্ষণ ও উপসর্গগুলি কি কি?
ড্রাই আই সিনড্রোম বা চোখের শুষ্কতার উপসর্গগুলি ব্যথার তীব্রতা বা প্রচন্ডতার উপর নির্ভর করে। কিছু উপসর্গ নিচে দেওয়া হলো:

  • শুকনোভাব।
  • ফোলাভাব।
  • চুলকানো।
  • জ্বালাভাব।
  • লালচেভাব।
  • অস্থায়ী আবছা দেখা যেটা চোখের পিটপিট করলে ঠিক হয়ে যায়।
  • ব্যথা।
  • পানি পড়া।
  • চোখের পিছনে ভারীভাব অনুভব করা।

কোনো শুকনো জায়গায় বা দূষিত পরিবেশে এই উপসর্গগুলো আরো খারাপ আকার নেয়। এর সাথে চুলকানোও বাড়তে পারে।

ড্রাই আই সিনড্রোমের প্রধান কারণগুলো কি কি?
ড্রাই আই সিনড্রোম বা চোখের শুষ্কতার প্রাথমিক কারণ হলো চোখের পানি কম তৈরী হওয়া, যার জন্য চোখের জলীয় ভাব কমে যায়। নানা কারণে ড্রাই আই হতে পারে। ড্রাই আই সিনড্রোম বা চোখের শুষ্কতার অন্যান্য কারণগুলো হলো-

  • অ্য়াকোয়াস টিয়ার ডেফিসিয়েন্সি। যাকে কেরাটো কনজাংটিভাইটিস সিক্কা বা জেগরেনস সিনড্রোম বলা হয়।
  • ভিটামিন-এ-র অভাবে যখন গবলেট সেল যখন ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তখন দেখা দিতে পারে এই ড্রাই আই।
  • স্টিভেনস জনসন সিনড্রোম।
  • ট্র্য়াকোমা।
  • অকুলার পেমফিগয়েড।
  • চোখে অ্য়াসিড বা ক্ষার ঢুকে যাওয়া।
  • কন্ট্যাক্ট লেন্সের ব্যবহার।
  • গরম আবহাওয়া।
  • প্রচন্ড ঝোড়ো আবহাওয়া।
  • চোখের পাতার প্রদাহ।
  • ওষুধ, যেমন অ্যান্টিহিস্টামাইনস, অ্যান্টিডিপ্রেস্যান্টস, কন্ট্রাসেপটিভ পিল এবং ডায়ুরেটিকস।
  • মেনোপস বা গর্ভাবস্থার সময় হরমোনের পরিবর্তন।

বয়সের সাথে সাথে ড্রাই আই সিনড্রোম বা চোখের শুষ্কতার উপসর্গগুলো বাড়ে, এবং পুরুষদের চাইতে মহিলাদের মধ্যে এই উপসর্গগুলো বেশি দেখা যায়।

ড্রাই আই সিনড্রোম কিভাবে নির্ণয় ও চিকিৎসা করা হয়?
চোখের শুষ্কতার চিকিৎসায় শুরুতেই কারণ নির্ণয় করা দরকার। চোখের পরীক্ষা চিকিৎসককে ড্রাই আই সিনড্রোম বা চোখের শুষ্কতা নির্ণয় করতে সাহায্য করে। সাধারণত পরীক্ষার দরকার পরে না।

অন্তর্নিহিত কোনো রোগ থাকলে তার চিকিৎসা করতে হবে। ড্রাই আই সিনড্রোম বা চোখের শুষ্কতার চিকিৎসা এর উপসর্গগুলোর উপর নির্ভর করে। কারণ অনুসারে ওষুধ ব্যবহার করলে আরোগ্য লাভ হয়। অপারেশনের মাধ্যমে চোখের শুষ্কতা দূর করা যায়। সব ক্ষেত্রেই কৃত্রিম চোখের পানি ব্যবহার উত্তম। মিথাইল সেলুলোজ, সফট কন্টাক্ট লেন্স, প্যারোটিভ ডাক্ট প্রতিস্থাপনের মাধ্যমেও চোখ শুকানোর প্রতিকার করা যায়। তৎক্ষনাৎ আরামের জন্য চিকিৎসক আপনাকে নিম্নলিখিত ওষুধগুলি দিতে পারেন:

  • আই ড্রপস।
  • চোখকে মসৃণ রাখার জন্য মলম।
  • জ্বালাভাব কমানোর ওষুধ।

চিকিৎসক আপনার খাদ্যতালিকার পরিবর্তন করতে পারেন, যেমন আপনার চোখকে মসৃণ রাখার জন্য ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড যুক্ত খাবার খেতে বলতে পারেন। কিছু জীবনাচরণ পদ্ধতির পরিবর্তন করা যায়। যেমন দীর্ঘ সময় কম্পিউটার স্ক্রিনে চোখ না রেখে মাঝে মাঝে বিরতি নেওয়া। ঘরে হিটার বা এসি ব্যবহার করলে আর্দ্রতা রক্ষা করার চেষ্টা করা। স্নায়ু রোগের চিকিৎসা করা। পাশাপাশি চক্ষু চিকিৎসক কৃত্রিম চোখের পানি বা অন্য কোনো ড্রপ দিতে পারেন। রাতে বেশি শুকিয়ে গেলে চোখ বন্ধ রাখার ব্যবস্থা বা অয়েন্টমেন্ট দিতে পারেন। চোখের শুষ্কতা এড়াতে ধুলো ও ধোঁয়ার পরিবেশ এড়িয়ে চলুন ও প্রচন্ড রোদে রোদচশমা ব্যবহার করুন। শুষ্ক চোখের চিকিৎসা না করা হলে এ থেকে প্রদাহ হতে পারে।