বিজয় দিবসের কবিতা ইউনিক কবিতা চাই?
 (26631 পয়েন্ট) 

জিজ্ঞাসার সময়

১৬ ডিসেম্বর উপলক্ষে কবিতা

কপি না করে নিজের লেখা প্রতিটি উইনিক কবিতা কফি, আইস-ক্রিম পাবে। সর্বোত্তম কবিতার কবিকে বার্গার দেয়া হবে।

6 Answer

 (56 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

স্বাধীনতার জয়                                                                                                                 বিজয় তুমি ১৬ই ডিসেম্বর, লাখ শহীদের রক্ত মাখা প্রাণ—
বিজয় তুমি শাশ্বত বাংলার সোঁনালী ফসল-সরষে ফুলের ঘ্রাণ।
বিজয় তুমি সুন্দর বনের চিত্রাহরিণ আর দোয়েল,শ্যামা,টিয়া—
বিজয় তুমি উত্তাল সমুদ্র ঘেরা, সেন্ট মার্টিন-কুতুবদিয়া।
বিজয় তুমি শীতের সকালে শিশির ভেজা ঘাস,
বিজয় তুমি বিশ্বখ্যাত বাংলার সোনালী আঁশ।
বিজয় তুমি জেমসের সোনার বাংলা-আমি তোমায় ভালবাসি,
বিজয় তুমি হায়দার হোসেনের গণতন্ত্রের হাসি।
বিজয় তুমি লাখ শহীদের রক্তভেজা দান,
বিজয় তুমি লাখ বাঙালীর মুক্তি কামী প্রাণ।
বিজয় তুমি জর্জ হ্যারিসানের স্বপ্নের বাংলাদেশ—
বিজয় তুমি লজ্জাবতী পল্লী তরুনীর মেঘবরন কেশ।
বিজয় তুমি বিশ্ব মানচিত্রে নতুন একটা দেশ—
বিজয় তুমি ছিনিয়ে এনেছ সোনার বাংলাদেশ।

 (118 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

বীরাঙ্গনা

সাতচলি’শে দেশ ভাগ হয়ে গেলো,

জন্ম নিলো দু’টি দেশ।

আমি বীরাঙ্গনা বলছি,

আমিই ছিলাম স্বাধীন বাংলাদেশ। 

সকাল সন্ধ্যাগুলো কেটে যাচ্ছিল নির্বিবাদে,

ওড়নায় তখনো কারো ভালোবাসা জমেনি।

ঘুরে বেড়াতাম প্রজাপতির মত ব্যালকনিতে, ছাদে,

বড় হওয়ার তীব্র বাসনা ঋতু বেদনায় কখনো কমেনি।

চারিদিকে শোরগোল পড়ে যায়, মুহুর্মুহু গুলি,

দূর হতে ভেসে আসা ভয়ার্ত সারমেয় সাইরেন।

খটাখট বুটের হায়েনার মত শব্দ,

দিন তখনো চুকায়নি রাতের লেনদেন।

স্তব্ধ হয়ে দেখি বাবার রক্তাক্ত লাশ,

বুলেটের গর্জনে কাঁপতে থাকা আলমারির কবাট,

ছেঁচড়ে যাওয়া অচেতন পাজামার ফাঁস,

আর দরিদ্র, নিঃস্ব দেহে ব্যথার জমাট।

সাতচল্লিশে দেশ ভাগ হয়ে গেলো,

জন্ম নিলো দুটি দেশ।

আমি বীরাঙ্গনা বলছি,

আমিই ছিলাম স্বাধীন বাংলাদেশ।

দিনগুলো বেশ ছিলো কলসি কাঁখে নিয়ে,

সময়াবর্তে কত সময় গেছে বয়ে।

এইতো সেদিন পুতুলের সাথে বিয়ে,

চলছে যুদ্ধ, সময় গেছে ক্ষয়ে।

সকালে চারিদিকে মাতম শুরু হয়,

পশ্চিমের স্কুল থেকে রাইফেলের আওয়াজে কেঁপে ওঠে বাতাস।

কিছু কুমিরের মত নিঃশব্দ পায়ের চলাচল রয়,

ঈশানকোণে ঝুলে থাকে মৃত্যুর পূর্বাভাস।

আমি মৃত বাচ্চাটিকে দেখি,

বেয়নেটে ক্ষতবিক্ষত স্বামীর কাঁপতে থাকা কায়া,

গীতার পুণ্য কিংবা ওদের কুরআনের নেকী,

অবহেলায় নিক্ষিপ্ত শাড়ি আর অবিন্যস্ত ছায়া।

এরপর কত দিন আর রাতের হিসেবে গণ্ডগোল হয়,

কত সময় বয়ে যায় অত্যাচারের গর্ভে।

কত চোখের জল ঝরে যায় মরে যাওয়ার শর্তে,

স্বপ্ন তবু বাঁচিয়ে রাখে সোনার বাংলা গড়তে।

 

ডিসেম্বরে দেশ স্বাধীন হলো,

জন্ম নিলো ঝলমলে শিশু, কোমল দেশ।

বাংলাদেশ, বাংলাদেশ।

 (2550 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

স্বাধীনতারে

তুমি আমার স্বাধীনতা 

তুমি আমার প্রাণ।

পাকিস্তানি শক্রুদের থেকে যে,

অনেক কষ্ট করে পেয়েছি যে তোমায়।

তাই তুমি আমার প্রাণ। 

মায়ের কোল খালি করতে চেয়েছিল যে তারা

কিন্তু পারে নি, পারে নি তারা।

৯ মাসের  যুদ্ধ করে পেয়েছি তোমায়।

যুদ্ধে যে হারিয়েছি অনেক প্রাণ, অনেক রক্ত।

তাই তুমি আমার প্রাণ।

 

 

 (28 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

তোমার জন্যেই স্বাধীনতা

 

- ইউসুফ বিন ইনতাজ

হে প্রিয় স্বাধীনতা!
তোমার জন্যেই উড্ডীন লাল সবুজের এক পতাকা,
তোমার জন্যেই পৃথিবীর বুকে একটি মানচিত্র আঁকা।
তোমার জন্যেই সহস্র জীবন অকাতরে বিলিয়ে দেওয়া,
তোমার জন্যেই কতশত বোন সতীত্বহারা হওয়া।
তোমার জন্যেই কতশত মায়ের ইজ্জত লুন্ঠিত হওয়া,
তোমার জন্যেই কত নির্ঘুম রজনী অশ্রুতে প্লাবিত হওয়া।
তোমার জন্যেই কত নববধুর সিঁথির সিঁদুর মুছে যাওয়া,
তোমার জন্যেই কতশত গ্রাম আগুনে পুড়ে যাওয়া।
তোমার জন্যেই কত সম্প্রীতির শহর বিরান হয়ে যাওয়া।
তোমার জন্যেই হে শাশ্বত বাংলার প্রিয় স্বাধীনতা,
নিজের সর্বস্ব বিলিয়ে দিয়ে আজ নিঃস্ব হওয়া।

 (5837 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

একতার আহ্বানে 

এফ. রহমান

সেদিন বিজয়ের তৃষ্ণা ছিল সাড়ে সাত কোটি প্রাণে

সেদিন জেগেছিল নতুন পল্লব বিজয়ের আহ্বানে,

৯ মাসের পরীক্ষার পর ফল প্রকাশের দিনে

বিজয় এসেছিল ৩০ লক্ষ রক্তজবার ঋণে ,

হয়তো সেদিন বাঙ্গালীর প্রাণ স্বাধীনতার সুরে

বেজেছিল এক হয়ে বিজয়ের রোদ্দুরে,

আজ তবে কেন এত হানাহানি

এত বিভেদের বাণ?

চল এক হই স্বাধীনতার সুরে

একতার আহ্বান।

আর নয় হানাহানি ,প্রাণ নেয়ার তরে

গড়ব স্বদেশ এক হয়ে ভালোবাসার খড়ে,

ও পৃথিবী এবার এসে বাংলাদেশ নাও চিনে

গড়েছি আমার আপন ভূমি রক্তদানের ঋণে।

 

 

 

 

 

 (60 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

স্বাধীনতার গান

একাত্তরের কালো রাতের বুলেটের আঘাত

ক্ষত করেছে কত মায়ের কোল কত বোনের হাত।

বেয়নটের আঘাতে আহত হয়েছে আমার ভাই

আমার কত বোন দিয়েছে প্রাণ তার ইয়োত্তা নাই।

স্বাধিনতা তবু তুমি আমার প্রিয় সুঘ্রাণ

তোমার জন্য যদিও ঝরেছে লক্ষ তাজা প্রাণ।

স্বাধীনতা তুমি আমার গর্ব; তুমি আমার অহংকার

তোমাই আমি করবো স্মরণ পুরো জীবনভর।

Recent Questions
Loading interface...