ব্রণের বিষয়ে পরামর্শ চাই?

ব্রণের বিষয়ে পরামর্শ চাই?ঢাকা স্কয়ার হাসপাতালে চর্মরোগ এর ডাক্তারকে দেখানোর উপর উনি স্কিন পরীক্ষা করে ডক্সিক্যাপ ক্যাপস্যুল এবং মাখার মলম হিসেবে রেটিন A 0.05 দিয়েছিলেন।  বলেছিলেন যে মলম মাখার পর যদি লাল হয় কিংবা ফুলে যায় তাহলে মলম অফ করে দিতে এবং শুধু ক্যাপস্যুল টি নিতে।আমার লাল হয়নি,ফুলেও যায়নি। তবে ব্রণের জায়গায় ব্যবহার করার ফলে চামড়া উঠে যাচ্ছে। খসখসে হয়ে গেছে ফেস এর চামড়া এবং কালো কালো হয়ে গেছে। এখন আমি কি মলম টি ব্যবহার বন্ধ করে দিবো? আমার করণীয় কি? মুখে পাউডার বাদে আর কিছু ব্যবহার করতে বারণ করেছিলেন উনি। আমিও ওনার কথা মেনে চলেছিলাম। আগে আমি গোল্ডেন পার্ল নাইট ক্রিম ব্যবহার করতাম।
বিভাগ: 
Share

4 টি উত্তর

আপনার উচিৎ ব্রনের জন্য কোনরকম ক্রিম ব্যবহার না করা কেননা ক্রিম ব্যবহারের ফলে উপকারের চেয়ে অপকারই বেশি হয়।  যেহেতু মলমটি ব্যবহারের ফলে মুখের চামড়া কালো ও খসখসে হয়ে গেছে তাই আপনার উচিৎ মলমটি ব্যবহার না করা আপনি শুধু ডাক্তারের দেয়া ক্যাপসুল টি সেবন করুন। আর বেশি বেশি পানি পান করুন। মুখে নিম পাতা বেটে দিতে পারেন।
ব্রনের বিষয়ে পরামর্শ: 1/ প্রতিদিন 12গ্লাস পানি পান করতে হবে। 2/ হাতের নখ কেটে রাখতে হবে। ব্রনে খোটাখুটি করা যাবেনা। এতে দাগ পড়ে যাবে। 3/ প্রতিদিন হিমালয়া নিম ফেসওয়াশ দিয়ে মুখমন্ডল ধৌত করতে হবে। দৈনিক দুইবার। সকাল+দুপুর। 4/ মুখমন্ডলের ব্রনের জন্য ' ফোনা প্লাস জেল, ক্রিম ব্যবহার করতে হবে। সকাল +রাএে। 5/ মুখমন্ডলের ব্রনের জায়গায় পেঁয়াজের রস লাগাতে পারেন হাল্কা করে। এতে ব্রনের জীবানু মরে যাবে।
কোনো মলম, ক্রিম বা ঔষধ ব‍্যবহারের প্রয়োজন নেই। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। যেমনটা আপনার ক্ষেত্রে হয়েছে। আপনি যেভাবে আপনার মুখের ব্রণ দূর করবেন এবং মুখের ত্বক উজ্জ্বল ও ঝকঝকে করবেনঃ ১। নিমপাতা বা নিমফলের বীচি পানিসহ বেঁটে ৪-৫ দিন ব্রণে ব‍্যবহার করতে হবে। এতে মুখের ব্রণ যেমন দূর হবে, তেমনি মুখের ত্বক উজ্জ্বল ও ঝকঝকে হবে। ২। শিমুলের ছাল বেঁটে ব্রণের উপর লাগালে ব্রণ সেরে যায়। ৩। ব্রণ ও ব্রণের চুলকানি দূর করার জন‍্য প্রতিদিন পানিতে কয়েক ঘন্টা কিছু চিরতা ভিজিয়ে রেখে, সেই চিরতার পানি খাবেন নিয়মিত কয়েকদিন। ৪। নিয়মিত মাছ দিয়ে কালোজিরার ভর্তা বানিয়ে ভাত খাবেন। হাদীসে কালোজিরাকে মৃত‍্যু ব‍্যতীত সকল রোগের মহৌষধ বলা হয়েছে। আশা করি, উপরোক্ত নিয়মগুলো অনুসরণ করলে আপনার সমস্যা খুব শ্রীঘ্রই দূর হয়ে যাবে ইন শা আল্লাহ। ধন‍্যবাদ।


আপনি ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলুন এবং নিচের কিছু কাজ করুন-
১. আধা কাপ মধুর সঙ্গে ১ কাপ ওটমিল মিশিয়ে ব্রণের উপর লাগান। আধা ঘণ্টা অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলুন।
২ টেবিল চামচ পুদিনা পাতা কুচির সঙ্গে ২ টেবিল চামচ টক দই ও ২ টেবিল চামচ ওটমিল গুঁড়া মেশান। মিশ্রণটি ১০ মিনিট ত্বকে লাগিয়ে রেখে মুখ ধুয়ে ফেলুন।
3. অ্যালোভেরার পাতা থেকে জেল সংগ্রহ করে সরাসরি ত্বকে লাগান। আধা ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন। সারারাত রেখে দিলেও উপকার পাবেন দ্রুত।
৪. লেবুর রসে তুলার টুকরো ডুবিয়ে ব্রণের উপর লাগান। কিছুক্ষণ পর ধুয়ে ফেলুন। দিনে ২ বার ব্যবহার করুন। ব্রণ দূর হয়ে যাবে।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ