সুরা বাক্বারাহ নামের অর্থ কি ও কেনো?

 (26847 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

1 Answer

 (26847 পয়েন্ট) বিস্ময় ডট কম এর প্রতিষ্ঠাতা। দেশের জন্য বাংলা ভাষায় কিছু করার উদ্যোগেই যাত্রা শুরু করে বিস্ময় ডট কম।

উত্তরের সময় 

বাক্বারাহ শব্দের অর্থ গাভী (The Cow). এই সুরাতে একটি গাভী জবাই করার ঘটনা বলা হয়েছে, এই জন্য সাহাবীরা এই সুরার নামকরণ করেছিলেন বাক্বারাহ বা গাভী। উল্লেখ্যঃ অনেক সময় সুরার মাঝে বর্ণিত ঘটনা বা কোনো চরিত্রের নাম অনুযায়ী সুরার নামকরণ করা হতো, যাতে করে মনে রাখতে সুবিধা হয়। গাভীর ঘটনাটি এইরকমঃ মুসা (আঃ) এর যুগে বনী ঈসরাইলীদের মধ্যে এক লোক ছিলো যার কোনো ছেলে-মেয়ে ছিলোনা। তার অনেক সম্পদ ছিলো যা উত্তরাধিকার সূত্রে পেতো তার এক ভ্রাতুষ্পুত্র। তার সেই ভাইয়ের ছেলে দ্রুত তার চাচার সম্পত্তি পাওয়ার জন্য একদিন রাতের বেলা তার চাচাকে খুন করে ফেলে। খুনের দায় থেকে বাঁচার জন্য সে গ্রামের অন্য একটি লোকের বাড়ির সামনে লাশ ফেলে রাখে। পরদিন সকাল বেলা সে ঐ লোকের বাড়ির সামনে গিয়ে তার চাচাকে হত্যা করার জন্য ঐ লোকের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনে। ঐ লোক পাল্টা অভিযোগ আনে, আর এভাবে দুই পক্ষের লোকেরা পাল্টাপাল্টি অভিযোগ এনে একদল আরেকদলের সাথে মারামারি করে খুনাখুনি করতে উদ্যত হয়। তখন তাদের মধ্য থেকে বিচক্ষণ এক লোক বললো, আমাদের মাঝে আল্লাহর রাসুল মুসা (সাঃ) আছেন। তার কাছে বিষয়টা নিয়ে গেলে এই খুনাখুনি বন্ধ হবে। তখন মুসা (আঃ) এর কাছে নিয়ে গেলে তিনি তাদেরকে বলেন, আল্লাহ্‌ তোমাদেরকে একটা গরু জবাই করতে বলেছেন। মূর্খ ঈসরাইলী জাতির লোকের বললো, আপনি কি আমাদের সাথে ঠাট্টা করছেন? এর পরে তারা রাজি হয় কিন্তু গরু কেমন হবে সেটা নিয়ে বারবার প্রশ্ন করতে থাকে। তারা একেকবার প্রশ্ন করে আর আল্লাহ্‌ তাদের জন্য খুজে পাওয়া কষ্ট হয় এমন গরুর বর্ণনা দিতে থাকেন। কিন্তু তারা যদি অতিরিক্ত প্রশ্ন না করে প্রথমেই যেকোনো একটা গরু জবাই করতো সেটাই ঠিক হতো। কিন্তু তারা আসলে আল্লাহর আদেশ মানতে তালবাহানা করছিলো - যেটা বনী ঈসরাইলী জাতির চিরদিনের স্বভাব। তাই আল্লাহ্‌ শেষ পর্যন্ত এমন শর্ত জুড়ে দেন যে গরুই খুজে পাওয়া অনেক কঠিন হয়ে যায়। শেষে তারা অনেক টাকা দিয়ে সেই গরু কিনে তাকে জবাই করে। আর গরুর গোশতের একটা অংশ দিয়ে মৃত ব্যাক্তিকে আঘাত করলে সেই লোক জীবিত হয়ে উঠে আর তার খুনি কে সেটা বলে দেয়। এর পরেই সে আবার মারা যায়। এই ঘটনাটি বর্ণিত হয়েছে মুসনাদে ইবনে আবী হাতেম। মূলঃ তাফসীর ইবনে কাসীর থেকে নেওয়া, ১ম খন্ড পৃষ্ঠা ২৮৫। সুরাটিতে যেই আয়াতগুলোতে এই ঘটনা বর্ণিত হয়েছেঃ ৬৭. যখন মূসা (আঃ) স্বীয় সম্প্রদায়কে বললেনঃ আল্লাহ তোমাদেরকে একটি গরু জবাই করতে বলেছেন। তারা বলল, তুমি কি আমাদের সাথে উপহাস করছ? মূসা (আঃ) বললেন, মূর্খদের অন্তর্ভুক্ত হওয়া থেকে আমি আল্লাহর কাছে আশ্রয় প্রার্থনা করছি। ৬৮. তারা বলল, তুমি তোমার পালনকর্তার কাছে আমাদের জন্য প্রার্থনা কর, যেন সেটির রূপ বর্ণনা করা হয়। মূসা (আঃ) বললেন, তিনি বলছেন, সেটা হবে একটা গাভী, যা বৃদ্ধ নয় এবং কুমারীও নয়। বার্ধক্য ও যৌবনের মাঝামাঝি বয়সের। এখন আদিষ্ট কাজ করে ফেল। ৬৯. তারা বলল, তোমার পালনকর্তার কাছে আমাদের জন্য প্রার্থনা কর যে, তার রঙ কিরূপ হবে? মূসা (আঃ) বললেন, তিনি বলেছেন যে, গাঢ় হলুদ বর্ণের গাভী যা দর্শকদের চমৎকৃত করবে। ৭০. তারা বলল, আপনি প্রভুর কাছে প্রার্থনা করুন তিনি বলে দিন যে, সেটা কিরূপ? কেননা, গরু আমাদের কাছে সাদৃশ্যশীল মনে হয়। ইনশাআল্লাহ এবার আমরা অবশ্যই পথপ্রাপ্ত হব। মূসা (আঃ) বললেন, তিনি বলেন যে, এ গাভী জমি চাষ ও জল সেচনের কাজে অভ্যস্ত নয় এবং সেটা হবে নিষ্কলঙ্ক, নিখুঁত। ৭১. তারা বলল, এবার সঠিক তথ্য এনেছ। অতঃপর তারা সেটা জবাই করল, অথচ জবাই করবে বলে মনে হচ্ছিল না। ৭২. যখন তোমরা একজনকে হত্যা করে পরে সে সম্পর্কে একে অপরকে অভিযুক্ত করেছিলে। যা তোমরা গোপন করছিলে, তা প্রকাশ করে দেয়া ছিল আল্লাহর অভিপ্রায়। ৭৩. অতঃপর আমি বললামঃ গরুর একটি খন্ড দ্বারা মৃতকে আঘাত কর। এভাবে আল্লাহ মৃতকে জীবিত করেন এবং তোমাদেরকে তাঁর নিদর্শণ সমূহ প্রদর্শন করেন-যাতে তোমরা চিন্তা কর। সুরা আল-বাক্বারাহ, আয়াত ৬৭-৭৩।
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...