Share

3 টি উত্তর

নিজের ইচ্ছায় মৃত্যুকে গ্রহন করাকে সেচ্ছা মৃত্যু বলে। একে আত্যহত্যা ও বলা যায়। বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী এটি একটি দন্ডনীয় অপরাধ।
স্বেচ্ছা মৃত্যু হলো নিজ ইচ্ছায় মৃত্যুবরণ করা বা আত্মহত্যা করা । ইসলামিক দৃষ্টিতে এই স্বেচ্ছা মৃত্যু বা আত্মহত্যা করা একদম পাপ । আল্লাহ তার জন্য শাস্তির ব্যাবস্থা করে রেখেছেন ।
স্বেচ্ছা শব্দের অর্থ হচ্ছে নিজের ইচ্ছায়। নিজের ইচ্ছায় নিজেকে হত‍্যা করা বা নিজের প্রাণনাশ করা হলো স্বেচ্ছা মৃত‍্যু, আত্মহত‍্যা বা আত্মহনন। কেউ যদি স্বাভাবিকভাবে মৃত‍্যুবরণ না করে, অস্বাভাবিকভাবে নিজেকে নিজে হত‍্যা করে ফেলে বা খুন করে ফেলে, তখন সেটাকে স্বেচ্ছা মৃত‍্যু বা আত্মহত‍্যা বলে। যেমনঃ স্বেচ্ছায় নিজের গলায় নিজে রশি লাগিয়ে কোনোকিছুর সাথে ঝুলে নিজেকে হত‍্যা করা, স্বেচ্ছায় বিষ খেয়ে আত্মহত‍্যা করা, স্বেচ্ছায় নদী বা সাগরে ঝাঁপিয়ে আত্মহত‍্যা করা (সাঁতার না জানলে মৃত‍্যু)। তবে কেউ যদি কাউকে বিষ খাইয়ে হত‍্যা করে, ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত‍্যা করে অথবা সাগরে ফেলে দিয়ে হত‍্যা করে, সেটা স্বেচ্ছামৃত‍্যু বা আত্মহত‍্যা নয়। সেটা হচ্ছে খুন, হত‍্যা, জুলুম, অন‍্যায় বা শাস্তি। অর্থাৎ আমি নিজে নিজে বিষ খেয়ে মারা গেলাম, সেটা হলো স্বেচ্ছা মৃত‍্যু বা আত্মহত‍্যা (নিজের ইচ্ছায়) আর আমাকে কেউ বিষ খাইয়ে মারলো, সেটা হচ্ছে খুন বা হত‍্যা (অন‍্যের ইচ্ছায়)। আর আমি রোগ হয়ে মারা গেলাম, সেটা হচ্ছে স্বাভাবিক মৃত‍্যু (স্রষ্টার ইচ্ছায়)। তাই ইসলামে হত‍্যাও মহাপাপ, আত্মহত‍্যাও মহাপাপ, কেবল স্বাভাবিক মৃত‍্যু বৈধ। তবে কেউ কাউকে অন‍্যায়ভাবে হত‍্যা করলে বা খুবই মারাত্মক অন‍্যায় করলে শাস্তিস্বরূপ তাকে শিরঃচ্ছেদ করে, গর্দান কেটে, ফাঁসিতে ঝুলিয়ে, পাথর মেরে বা অন‍্য কোনোভাবে হত‍্যা করা (ইসলামী আইন মোতাবেক), তা ইসলামে বৈধ।