'ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালুকণা, বিন্দু বিন্দু জল, গড়ে তুলে মহাদেশ, সাগর অতল' কথাটির অর্থ কী?

'ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালুকণা, বিন্দু বিন্দু জল, গড়ে তুলে মহাদেশ, সাগর অতল' কথাটির অর্থ কী?
বিভাগ: 
Share

3 টি উত্তর

এই কথাটির অর্থ হচ্ছে অনেক ছোট ছোট জিনিস থেকেই বড় কিছু গড়ে ওঠে। সবকিছুরই একক রয়েছে যা যুক্ত হয়ে সেটি বৃহৎ আকার ধারণ করেছে। 
এ কথাটি দ্বারা বোঝানো হয়েছে ক্ষুদ্র জিনিস হতেই বড় জিনিস তৈরি হয়। ক্ষুদ্র পরমাণুর সমন্বয়ে তৈরি হয় অণু। আর অনেক অণু মিলেই একটি বড় পদার্থ তৈরি হয়। তেমনি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আবিষ্কার থেকেই তৈরি হয় বড় একটি আবিষ্কার। বর্তমান যুগে যাতায়তের জন্য যানবাহন হলো বড় ধরনের আবিষ্কার। কিন্তু যানবাহন এমনি এমনিভাবে তৈরি হয় নি। আরো হাজার হাজার বছর আগে চাকা আবিষ্কার হয়েছিল। তার বহু বছর পর আবিষ্কার হয় ইন্জিন।এভাবেই চাকা, ইন্জিন ,মোটর,লাইট, ব্রেক ,সবকিছু মিলেই একটি গাড়ি। চাকাকে একটি ছোট আবিষ্কার মনে হলেও চাকার অবদান অনেক বেশি কারণ এই ছোট জিনিস চাকা যদি আবিষ্কার না হতো তাহলে আমাদের বড় আবিষ্কার গাড়ি চলতে পারত না। এভাবে ছোট ছোট জিনিসের আবিষ্কারের মাধ্যমেই বড় জিনিসটি আবিষ্কার হলো।  তেমনিভাবে ছোট ছোট বালু মিলেই তৈরি হয় দেশ। আর অনেকটি দেশ মিলেই তৈরি হয় মহাদেশ। তাই বলা যায় কথাটি দ্বারা বোঝানো হয়েছে ক্ষুদ্র জিনিস হতোই বড় জিনিস তৈরি হয়। 
এর অর্থ পৃথিবী ছোট জিনিসও তুচ্ছ নয়।বিন্দু বিন্দু জল মহাসাগরের জন্ম দেয়।ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বালুকণা থেকে মহাদেশের জন্ম হয়।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ