মেয়েদের কী লক্ষণ দেখে বুঝা যায়, যে তারা প্রেমে পরেছে?
2 টি উত্তর
কোন মেয়ে আপনার প্রতি দুর্বলতা থাকলে কি করে তা বুঝবে 1. সে সবসময় আপনার হাত ধরার চেষ্টা করবে। 2. কোন কারন ছাড়াই সে আপনার জন্য ছোট-খাটো উপহার কিনবে। 3. আপনার পরিবারের অন্য সদস্যেদের প্রতি তার আগ্রহ দেখাবে - খোঁজখবর নিবে। কারন একটি মেয়ে যখন তখন মেয়েটি ছেলেটির চারপাশের সবকিছুকে পছন্দ করা শুরু করে। 4. সামনাসামনি বসে কথা বলার সময় সে আপনার দিকে ঝুকে বসবে। 5 .সে আপনার দিকে তাকিয়ে অকারনে (অধিক মাত্রায়) হাসবে। সে আপনার সাথে ঠাট্টা-তামাশা করবে। সে আপনার মন্তব্য কিংবা কৌতুক শুনে অট্ট হাসি হাসবে। সে এমন সব কার্যক্রমের আপনার আগ্রহ আছে - তাহলে সে আপনার সাথে ওই কাজে অংশগ্রহন করতে পারবে (যেমন কোন অনুষ্ঠানে বা কোন বিশেষ রেস্টুরেন্টে খাওয়া)। সে আপনার পাশাপাশি থাকতে চাইবে - অন্য বন্ধুরা যতটা না চাইবে তার চেয়ে বেশি। আপনার সাথে কথা বলার সময় সে তার বান্ধবীর গলা জড়িয়ে ধরে বান্ধবীর পিছে দাড়াবে এবং স্থির না থেকে কিছুটা হেলে-ধুলে কথা বলবে। 6. সে প্রায়ই জিজ্ঞেস করবে নারীদের মাঝে আপনার কি ভাল লাগে এবং নারীর কোন বিষয়টি আপনার ভাল লাগে। 7. কথা বলার সময় সে যদি আপনার আপনি যা করতে পছন্দ করেন তা করা শুরু করে তাহলে এটি খুবই পজেটিভ একটি বিষয় "সে আপনাকে পছন্দ করছে"। 8. সে আপনার সাথে দুপুরের কিংবা রাতের খাবার খেতে আগ্রহ প্রকাশ করবে। 9. তার চেহার রক্তিম আভা ধারন করবে যখন আপনি তার সাথে কথা বলবেন অথবা তার সামনা-সামনি হবেন। 10. সে স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি বার চোখের পলক পেলবে যখন সে আপনার দিকে তাকাবে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন।
মেয়েদের প্রেমে পরার লক্ষণঃ ১. আপনাকে দেখে তিনি অপ্রস্তুতে পড়ে যান খানিকক্ষণ। ধরা পড়ার ভয়ে আপনার চোখের দিকে তাকান না মোটে। মোবাইল নিয়ে খুটুরখুটুর করতে শুরু করেন। লজ্জায় তাঁর গাল লাল হয়ে যায়। ২. সকলের মাঝে বিতর্কিত কোনও বিষয় কথা শুরু হলে আপনার সঙ্গে সবচেয়ে বেশি তর্ক জুড়ে দেন তিনি। ৩. অনেকে আছেন, আড্ডা দিচ্ছেন। আপনি চুপ। আপনার দেখাদেখি তিনিও চুপ। যেই না আপনি মুখ খুললেন, আপনার সঙ্গে তাল মিলিয়ে তিনিও বলে ফেললেন কিছু। ৪. আপনার সামান্যতম ইয়ার্কিতেও তিনি দুঃখ পান। মনে করেন আপনি ইচ্ছে করে তাঁকে দুঃখ দিতে চাইছেন। ৫. আপনি তাঁকে কী চোখে দেখেন, এই নিয়েও তাঁর খুব দুশ্চিন্তা। বাকিদের কাছেও তিনি সেই প্রসঙ্গে কথা উত্থাপন করেছেন। সেসব কথা আপনার কানেও এসেছে। আপনি ভাবছেন, মেয়েটা বুঝি পাগল। আসলে ঠিক তা নয়, মেয়েটা আপনার প্রেমে পাগল। ৬. তিনি লুকিয়ে লুকিয়ে আপনার ব্যাপারে সব ইনফো জোগার করেন। এমনকী, ফেসবুকে আপনার অ্যাক্টিভিটিও ফলো করেন নিয়ম করে। আপনার ব্যাপারে এত কিছু জানেন, যা আপনি নিজেও হয়তো জানেন না। ৭. মাঝেমধ্যে অন্য কাউকে মেসেজ পাঠাতে গিয়ে ‘অনিচ্ছাকৃত’ভাবে আপনাকে মেসেজ করে ফেলেন তিনি। বলে রাখছি, এ সব ছুতো। সব কথা বলার বাহানা। ৮. আপনার বোকা বোকা জোকেও হাহা করে হেসে ফেলেন জাস্ট আপনাকে খুশি করার জন্য। ৯. আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য অনেকরকম নাটকীয় কাণ্ড করেন তিনি। একসঙ্গে কোথাও যাওয়ার হলে হুট করে প্ল্যান ক্যানসেল করে দেন। হঠাৎই কোনও ছুতোয় আপনাকে ডাকেন বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার জন্য। ১০. খেয়াল করে দেখবেন, অন্য কাউকে না, শুধু আপনাকেই বারংবার বাড়িতে চায়ের আমন্ত্রণ জানান তিনি। আপনি না গেলে মুখ হাঁড়ি! ১১. সবার সামনে আপনার সঙ্গে স্বাভাবিক আচরণ করেন, কিন্তু একান্তে থাকলেই তাঁর হাবভাব পালটে যায়। তখন স্বাভাবিকের চেয়ে অস্বাভাবিক হয়ে ওঠে তাঁর আচরণ। হয়তো একটু লাজুক লাজুক হয়ে পড়েন তিনি। নয়তো, মাখোমাখো কথা বলা শুরু করে দেন। ১২. অন্য কোনও মেয়ের সঙ্গে কথা বললে বা পাত্তা দিলে ঈর্ষায় জ্বলে পুড়ে যান তিনি। ১৩. নানা অছিলায় তিনি আপনার সঙ্গে সময় কাটানোর ফন্দি আঁটেন। বাড়ি ফেরার সময় তিনিই আপনার সঙ্গী হতে চান। কারণ একটাই, আপনার সঙ্গে নিভৃতে সময় ব্যয় করাই তাঁর লক্ষ্য। ১৪. বিশেষ বিশেষ দিনে আপনার পছন্দের মতো সেজে আসেন তিনি। আপনি মেয়েদের পরনে যে ধরনের পোশাক দেখতে চান, খেয়াল করে দেখবেন, তিনি সেই ধরনের পোশাক পড়া শুরু করেছেন ইদানিং। ১৫. কোনও কোনও ক্ষেত্রে তিনি আপনাকে নকল করাও শুরু করে দিয়েছেন। যেমন, যে ধরনের শব্দ আপনার মুখে খুব বেশি করে শোনা যায়, তিনিও সেই শব্দগুলো কথা বলার সময় ব্যবহার করেন নিজের অজান্তেই। ১৬. যত বোরিং টপিক নিয়েই আপনি কথা বলুন না কেন, তিনি কিন্তু কখনওই বোর হন না। মন দিয়ে আপনার সব কথা শোনেন। এতেই স্পষ্ট বোঝা যায়, তিনি আপনার প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছেন। ১৭. আপনি তাঁর সঙ্গে যত খারাপ আচরণই করে থাকুন না কেন, তিনি কিন্তু মনে মনে আপনাকে ঠিক ক্ষমা করে দেন। ১৮. তিনি আপনার ব্যাপারে সবসময় খুব চিন্তিত। আপনি ঠিকমতো খেয়েছেন কিনা, আপনার জ্বর হয়েছে কিনা – এসব নিয়ে তিনিই সবচেয়ে বেশি ওয়ারিড!