এসিডে পোড়া দাগ নির্মূল করার উপায় কী?

 (12 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

3 Answers

 (7407 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি রেমি স্পট ক্রিমটি ব্যাবহার করে দেখতে পারেন। আশা করি ফল দেবে।
 (8088 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি ডাক্তারের পরামর্শে বেটনোভেট সি ক্রীমটা ব্যবহার করতে পারেন।
 (32139 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

 দাগ দূর করার কিছু সহজ উপায় তুলে ধরা হয়। আলু: রয়েছে ‘ক্যাটেকোলেইস’ নামের একটি এনজাইম যা প্রাকৃতিক ব্লিচিং উপাদান হিসেবে পরিচিত। আলু পাতলা করে কেটে পোড়া অংশের উপর ঘষে নিন। দিনে তিনবার এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন। দাগ দূর করার পাশাপাশি আলুর রস হালকা পোড়া ক্ষত সারিয়ে তুলতেও সাহায্য করবে। টমেটো: এই লাল সবজিতে আছে পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন এ এবং সি। এই সবগুলো উপাদান দাগ হালকা করতে সাহায্য করে এবং ত্বকে আর্দ্রতা যুগিয়ে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে। টমেটোর রস ত্বক শীতল করে। তাই অল্প পোড়াভাব সারিয়ে তুলতে পারে। দিনে দুবার পোড়া অংশে টমেটো কেটে এর রস হালকা করে ঘষে নিলে উপকার পাওয়া যাবে। মেথি: রয়েছে প্রচুর পুষ্টিগুণ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ত্বক সুস্থ করে দাগ দূর করতে সাহায্য করে। আধা কাপ মেথি সারা রাত পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। সকালে ভেজানো মেথির মিহি পেস্ট তৈরি করে আধা ঘণ্টা ত্বকে লাগিয়ে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফলাফলের জন্য দিনে দুবার ব্যবহার করুন। লেবু ও বাদাম তেল: অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন ই-তে ভরপুর বাদাম তেল। লেবু প্রাকৃতিক ব্লিচিং উপাদান হিসেবে পরিচিত। আর এই দুই উপাদানের মিশ্রণ ত্বকের পোড়া দাগ দূর করতে সাহায্য করবে। দুতিন ফোঁটা বাদাম তেল সমপরিমাণ লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে দাগের উপর লাগান দিনে দুবার। এভাবে নিয়মিত ব্যবহারে দাগ হালকা হয়ে আসবে। তবে এই মিশ্রণ পোড়া ত্বক পুরোপুরি শুকিয়ে যাওয়ার পরই ব্যবহার করতে হবে। ক্যামোমাইল চা: রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং পরিষ্কারক উপাদান। যা ত্বক সুস্থ করার পাশাপাশি দাগ হালকা করতে সাহায্য করে। প্রাকৃতিক ব্লিচ হওয়ার পাশাপাশি অল্প পোড়া ও কাটাছেড়া সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে এই চা। গরম পানিতে ক্যামোমাইল চা ফুটিয়ে ঠাণ্ডা হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ত্বকে চা লাগিয়ে পাঁচ মিনিট অপেক্ষা করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন ব্যবহারে উপকার পাওয়া যাবে।
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...