প্রসাবের কতটুকু পরিমাণ ফোঁটা শরীর/কাপড়ে লাগলে কাপড় নাপাক হয়ে যায়?অনিচ্ছাকৃত প্রসাব ও প্রসাবের ফোঁটা লাগলে শরীর নাপাক হয় কি না?

প্রসাবের কতটুকু পরিমাণ ফোঁটা শরীর/কাপড়ে লাগলে কাপড় নাপাক হয়ে যায়?অনিচ্ছাকৃত প্রসাব ও প্রসাবের ফোঁটা লাগলে শরীর নাপাক হয় কি না?প্রসাবের কতটুকু পরিমাণ ফোঁটা শরীর/কাপড়ে লাগলে কাপড় নাপাক হয়ে যায়?অনিচ্ছাকৃত প্রসাব ও প্রসাবের ফোঁটা লাগলে শরীর নাপাক হয় কি না? যদি নাপাক হয়ে যায় তখন পাক হওয়ার উপায় কি?পাক হওয়ার উপায় না থাকলে তখন কি করতে হবে?
বিভাগ: 
Share

1 টি উত্তর

ইচ্ছাকৃত অনিচ্ছাকৃত প্রসাবের ফোঁটা শরীর বা লাগলেও তা নাপাক হয়ে যায়। প্রসাবের ছিটা থেকে বেঁচে থাকা তা হতে সতর্ক না থাকা ব্যাপারে হাদিসে এসেছে,


ইবনে আব্বাস (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম একদা দুইটি কবরের পাশ দিয়ে অতিক্রম করছিলেন। এ সময় তিনি বললেনঃ এদের আযাব দেয়া হচ্ছে, কোন গুরুতর অপরাধের জন্য তাদের শাস্তি দেয়া হচ্ছে না। তাদের একজন পেশাব হতে সতর্ক থাকত না। আর অপরজন চোগলখোরী করে বেড়াত। তারপর তিনি একখানি কাঁচা খেজুরের ডাল নিয়ে ভেঙ্গে দুইই ভাগ করলেন এবং প্রত্যেক কবরের উপর একখানি গেড়ে দিলেন। সহাবীগণ জিজ্ঞেস করলেন, হে আল্লাহর রাসূল! কেন এমন করলেন? তিনি বললেনঃ আশা করা যেতে পারে যতক্ষণ পর্যন্ত এ দুইটি শুকিয়ে না যায় তাদের আযাব কিছুটা হালকা করা হবে। ইবনুল মুসান্না (রহঃ) আ‘মাশ (রহঃ) বলেনঃ আমি মুজাহিদ (রহঃ) হতে অনুরূপ শুনেছি। সে তার পেশাব হতে সতর্ক থাকত।

(সহীহ বুখারী, হাদিস নম্বরঃ ২১৮)


কাপড়ে লাগলেই তা নাপাক হয়ে যায়। তবে বিশেষ ক্ষেত্রে কি পরিমাণ নাপাকি নিয়ে সালাত আদায় করা যাবে তা নিয়ে ইমামদের মতের অমিল রয়েছেঃ


শরীর বা কাপড় যদি নাপাক হয়ে যায় তখন পাক হওয়ার উত্তম মাধ্যম হলো পানি। যদি পানি দিয়ে পাক হওয়ার উপায় না থাকে সেক্ষেত্রে তায়াম্মুম এর বিধান রয়েছে।


সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ