মনোযোগ হারিয়ে যায়।?

 (12430 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

লেখা পড়ার প্রতি আমার মনোযোগ হারিয়ে যায় বার বার। অনেক কষ্ট করে মনোনিবেশ করি লেখা পড়াতে,,,,কিন্ত যদি কোন কারণে ১ দিন পড়তে না বসি বা যে রুটিন টা ফলো করি সেই রুটিন টা ফলো করা না হয়।তাহলে মনোযোগ হারিয়ে যায়। এই সমস্যার জন্য কি করতে পারি।

4 Answers

 (4272 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি নিয়মিত পড়ুন।তা নাহলে অভ্যাস নষ্ট হয়ে যায়। আর মনোযোগ নষ্ট হয়ে গেলে ফানি টাইপের মজাদার কিছু পড়ুন মন সতেজ হবে।আশা করি পড়াতে মনোযোগ বসবে।
 (173 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

লেখাপড়াকে আপনি আপনার ফোনের মতোই প্রয়োজনীয় মনে করে নিন মন থেকে গ্রহন করে ফেলুন এবং আপনার যে যে টাইমে পড়তে ভাল লাগে সেই টাইম অনুযায়ী পছন্দমাফিক একটা রুটিন তৈরি করুন যেটা প্রতিদিন ফলো করতে কোনো প্রবলেম না হয়।আর পড়ার সময় যে টুকু টাইমই পড়েন না কেনো সে টাইমটুকু নিরবিচ্ছিন্নভাবে শুধু বইতেই মন লাগান।আশাকরি মনোযোগ পাবেন।
 (4742 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি মূলত অন্যকাজে মজা বেশি পান।তাই কিছুক্ষণ পড়ে অন্যকাজে সময় ব্যয় করেন।এজন্য আপনার উচিত পড়াটাকেই মজাদার করে নেয়া।আর নিয়মিত পড়ুন,তবেই মনযোগটা ধরে রাখতে পারবেন।
 (4942 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

এরকম প্রব্লেম প্রায় স্টুডেন্টের হয়ে থাকে। পড়তে বসে কিন্তু কোনো পড়াশুনা হয় না। শুধু বসে থেকেই শেষ। আপনারওও ক্ষেত্রে এমনটা হওয়া স্বাভাবিক। তবে এরকম হওয়ার জন্য কতগুলো কারণ দায়ী। সেই কারণগুলো সলভ করতে পারলেই হয়ে গেল। যাহোক, এর জন্য আমি কিছু টিপস দিলাম।


★প্রথমে উপলব্ধি করুন, একজন কৃষকের কাজ কি, তারা কি করে, তারা কি ঠিকভাবে কাজটা সম্পাদন করে??

আরো উপলব্ধি করুন একজন চাকরিজীবী এর কাজ কি, চাকরিজীবী কি তার কাজ ঠিক ভাবে করে??

এভাবে উপলব্ধি করতে করতে নিজের ব্যাপারে একবার ভাবুন। আপনি কে??.আপনার কি করা উচিত, আপনি কি করতেছেন!!  অবশ্যই আপনার কাছে উত্তর আসবে আমি একজন ছাত্র/ছাত্রী। এক্ষেত্রে একজন ছাত্র/ছাত্রীর কি করা দরকার তা আপনি করতেছেন কি না সেটা নিজে নিজেই বিবেচনা করুন।  যদি আপনি সেই কাজগুলো না করে থাকেন তাহলে কেন করতেছেন না, এটা বের করুন। যে সমস্ত কাজের কারণে আপনি পড়াশুনা করতে পারতেছেন না সেই সমস্ত সমস্যার সমাধান করলেই হয়ে গেল। 


*আপনি যখন পড়তে বসবেন তখন একবার ভেবে দেখুন এই মুহূর্ত আপনার মনে কি জিনিস খেলা খেলতেছে। আর একবার ভেবে দেখুন সেগুলোর কারণে আপনার স্টাডি এর কোনো প্রব্লেম হতে পারে কি না!!

অবশ্য এক্ষেত্রে আপনি আপনার নিজের বিশেষ মেধা কাজে লাগাবেন। যদি ভেবে পান যে এই মুহূর্তে যে বিষয় গুলো আমার মাথায় খেলা করতেছে তা আমার স্টাডিতে প্রভাব ফেলবে তাহলে সেগুলো যেভাবেই হোক ইগ্নোর করুন। যখনন পড়তে বসবেন তখন নিজেকে ব্যস্তহীন রাখার ট্রাই করবেন।

**যখনই পড়তে বসবেন সাথে সাথে পড়ায় মনযোগী হবেন, কারণ প্রথম অবস্থায় মনোযোগী হতে পারলে পরবর্তীতে এমনিতেই মনোযোগ আসবে। প্রথমে মনোযোগ না আসলে খাতা কলম বের করে একটু একটু লিখবেন। দেখে দেখে না লিখে না দেখে বানায় লিখবার চেষ্টা করবেন।

** যখন কোনো কিছু খাবেন তখন একবার ভেবে দেখুন সেটা আপানার স্বাস্থ্যের জন্য প্রব্লেম করতে পারে কিনা। অনেক সময় খাবারে ভেজাল থাকলে পড়াশুনায় মন বসেনা। 


**সময়ের কাজ সময়ে করার চেষ্টা করবেন। পরে করার জন্য রেখে দিবেন না। কারণ সেটা রেখে দিলে আপানার পড়ার সময় সেটা খেয়াল আসতে পারে যা পড়ায় বেঘাত ঘটাবে। 


** পড়াশুনায় মনোযোগী হওয়ার জন্য পড়ার প্লেস বা জায়গাটা অনেক ভুমিকা পালন করে। তাই এমন জায়গায় পড়তে বসবেন যেখানে বাইরে থেকে কোনো শব্দ না আসে, আলো বাতাস যাতে পর্যাপ্ত পরিমানে আসতে পারে।  আপনার ঘরের বাল্বটা ঠিক আপনার টেবিলের উপর বরাবর রাখবেন। তাহলে দেখতে কোনো প্রকার সমস্যা হবে না। এতে অনেকটা মনোযোগ ফিরে আসবে। 


**অবসর টাইম এর পরিমাণ অনেকাংশে কমায় দিবেন। সব সময় নিজেকে ব্যস্ত রাখতে চেষ্টা করবেন। অবশ্য ঝুঁকিপূর্ণ কাজ যেগুলোতে বেশি পরিমাণে শক্তি সেগুলো করবেন না। কারণ অত্যাধিক পরিশ্রম হলে পড়াশুনায় মন বসেনা। 


**অবসর সময়টা আপনি আপানার পরিবারের সাথে গল্পগুজব, হাসি ঠাট্টা করে কাটাতে পারেন। অবশ্য কেউ কেউ বলে যে অবসর টাইম কাটানোর উপযুক্ত মাধ্যম হচ্ছে অনলাইন বা ফেসবুক। আমি কিন্তু এর একেবারে বিরুদ্ধে। কারণ অনলাইনে ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিটের মত মনে হয়। খুব দ্রুত সময় চলে যায়, কোনো প্রকার তৃপ্তি পাওয়া যায় না। তাই আপনি অনলাইনে টাইম পাস করার সিদ্ধান্ত নিবেনন না। বাড়ির ছোট ভাই বোন কে নিয়ে খেলা করবেন, তাদেরকে নিয়ে পড়াতে বসবেন, দেখবেন অনেকটা মজা পাবেন।


***সারাক্ষণ শুধু পড়লেই হবে না, স্বাস্থ্যের প্রতিও খেয়াল রাখতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমানে ঘুমাবেন, রাত্রে তারাতারি ঘুমাতে যাবেন আর সকালে তারাতারি জাগার চেষ্টা করবেন। সেই সাথে আপনাকে নামাজ টা আদায় করে নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।


 

এভাবে আপনার লাইফকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবেন, আশা করি পড়াশুনাও হবে সব কিছুই হবে। জানিনা আমার পরামর্শ টি আপনার কত টুকু কাজে আসতে পারে।!!!!

ধন্যবাদ।

সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...