ছোট পাথর কিভাবে বড় হয়? তার তো কোন জীবন নেই?
3 টি উত্তর
পাথরের উপর পানি পড়ে। আবার সূর্যালোকের প্রভাবে পাথরের প্রসারণ ঘটে।এভাবে পাথর বড় হয়
পাথর নানা প্রকার খনিজের সমন্বয়ে গঠিত।পাথর এর আকার পরিবর্তন বা ছোট থেকে বড় হওয়া সাধারণত হাইড্রেশন এর কারণে ঘটতে পারে।পাথরের মধ্যে থাকা খনিজ পদার্থ যখন পানির স্পর্শে বিশেষভাবে পরিবর্তিত হয়,তখন তাকে হাইড্রেশন বলে। এছাড়া,অন্যভাবে পাথর আকারে বড় হতে পারে।যেমন দিনের বেলায় সূর্যের তাপে পাথরের ওপরের স্তর উত্তপ্ত হয়।উত্তপ্ত হওয়ার কারণে তা আয়তনে বৃদ্ধি পায়। তুষারের কারণেও পাথর বড় হয়।উচ্চ পার্বত্য অঞ্চলে বৃষ্টির পানি বা তুষার গলা পানি পাথরের ফাটলে প্রবেশ করে এবং রাতের বেলা অধিক শীতের কারণে তা বরফে পরিণত হয়।পানির তুলনায় বরফ আয়তনে ১০% গুণ বৃদ্ধি পায়।সুতরাং,পানি থাকা অবস্থায় শিলার ওপর যে চাপ পড়ে,রাতে বরফে পরিণত হলে তা পাথরের মধ্যে আরো বেশি পরিমাণ চাপ তৈরি করতে পারে।যা পাথরকে আরো খানিকটা বড় করে।
আপনার প্রশ্নটি যথাযথ বোঝা যাচ্ছেনা, এক কথায় যা বলেছেন সেই ভিক্তিতে বলার চেষ্টা করছি। প্রথমত, আগ্নেয়শিলা বা রক শিলা হিসাবে যে পাথর দেখা যায় তা বাড়েনা, বরং ক্ষয় হতে থাকে। যে পাথর গুলো বাড়তে দেখা যায় সে শিলা গুলো মুলত বেলেমাটিযুক্ত, কাকরযুক্ত জিপসাম ও ক্যালসিয়ামযুক্ত মাটির পাথর। এগুলো বাড়ার কারন হচ্ছে পাথরে প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকে এছাড়া মাটি থেকে ক্যালসিয়াম আয়ন পাথরের গায়ে(মাটিসহ পাথর একত্র পড়ে থাকে এই অবস্থা) লেগে থাকে। বাতাসের আদ্রতা, মাটির পানি প্রভুতি পাথরকে সিক্ত রাখে এই অবস্থায় বাতাসের কার্বনডাইঅক্সাইড ও পাথরগাত্রের ক্যালসিয়াম বিক্রিয়া করে ক্যালসিয়াম কার্বনেট তৈরি করে, এটি নুড়িকাকরসহ জিপসামের সাথে পাথর গায়ে কেলাস তৈরি করার প্রভাব দেখায় ফলে পাথর গায়ে জমে শক্ত হয় এবং রুপান্তরিত পাথর হিসাবে বৃদ্ধি পায়। এই কারনেই পাথর বড় হতে দেখা যায়।