বাংলাদেশে কোন ফোন বেশি ব্যাবহার করা হয়?

বাংলাদেশে কোন ফোন বেশি ব্যাবহার করা হয়?
বিভাগ: 
Share

9 টি উত্তর

বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি symphony mobile ব্যবহার করা হয়।
symphony... bese babohar hoi ..karon ai mobile. er dam ..kob kom .tai ate sobar kace jonopreou hoice ...
কোন ফোন বেশি ব্যবহার করা হয় তা বলা মুশকিল । তবে বর্তমানে বাংলাদেশের অধিক লোকই সিম্ফনি ব্রান্ডের নানান মডেলের মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে ।
বাংলাদেশে কোন মোবাইল বেশি ব্যবহার করা হয় তা নিশ্চিত করে বলা মুশকিল। তবে আপাত দৃষ্টিতে দেখলে দেখা যায় অধিকাংশ মানুষ বিভিন্ন মডেলের সিম্পনি ফোন ব্যবহার করে
আমার মতে symphony  মোবাইল বেশি ব্যবহার হয় কারন এইটা দামেকম খুব টেকসই।
প্রশ্নকর্তার প্রশ্ন অনুযায়ী ~~~~বিভিন্ন কোম্পানির বাটন ফোন বেশি ব্যাবহার করা হয় । তবে সিম্পনী কোম্পানির এন্ড্রয়েট ফোনগুলির ব্যাবহারকারির সংখ্যা বেশি ।।।বাটন ফোনের কোম্পানির নাম উল্লেখ করা মুশকিল।।।
বাংলাদেশে Wolton,symphony বেশি ব্যবহার হয়
টাস ফোন এর ভিতরে এখন SymphoneআরSamsamphone গুল বেশি ব্যাবহার হচ্ছে|আর বাটাম ফোন বিভিন্ন তা ব্যবহার হচ্ছে|

সিম্ফনি মোবাইল বাংলাদেশের সবচাইতে জনপ্রিয় ব্রান্ডের স্মার্টফোন, যদিও সিম্ফনি বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় কোন ব্র্যান্ড নয় তারপরেও বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান মোবাইল ব্র্যান্ড হিসেবে সিম্ফনি জায়গা করে নিয়েছে। বাংলাদেশের মার্কেটে সিম্ফনির বাজারজাতকৃত বিভিন্ন ধরণের স্মার্টফোন রয়েছে।

মোবাইল বাজারে সক্রিয় অবস্থান টিকিয়ে রাখতে মোবাইল ফোনের দাম  তুলনামূলক কম রেখে চলেছে সিম্ফনি। বেশির ভাগ সিম্ফনি মোবাইলের দাম অন্যান্য স্মার্টফোনের তুলনায় অনেক কম, যার ফলে বাংলাদেশি ক্রেতারা এর প্রতি বেশি আকৃষ্ট হচ্ছে। আমি মনে করি, সিম্ফনি মোবাইল রিভিউ অনুসারে অন্যান্য নামিদামি বিশ্বব্যাপৃত স্মার্টফোন ব্র্যান্ড যেমন-সনি, স্যামসাং এসবের সাথে এর গুনগত মানের তুলনা করা যায়।

সিম্ফনি বাংলাদেশের মোবাইল বাজারের প্রায় ৪০% তাদের আয়ত্ত্বে নিয়ে এসেছে (২০১৬)।

http://productreviewbd.com/%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B0%E0%A6%BE-%E0%A7%A7%E0%A7%A6-%E0%A6%9F%E0%A6%BF-%E0%A6%AE%E0%A7%8B%E0%A6%AC/

বাংলাদেশে সিম্ফনী মোবাইল সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় বা সবচেয়ে বেশি ব‍্যবহার করার কারণ:

১। দেশীয় মোবাইল ফোন ব্র‍্যান্ড।

২। নিম্ন ও মধ‍্যবিত্ত আয়ের মানুষের ডিজিটাল জগতে যুক্ত হওয়ার ব্র‍্যান্ড।

৩। বিশ্বখ‍্যাত স্মার্টফোন ব্র‍্যান্ডগুলোর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।

৪। সাশ্রয়ী ও সুলভ মূল‍্য, (৫০০০-১৫০০০) টাকা।

৫। উন্নত বিক্রয়োত্তর সেবা।

http://www.ittefaq.com.bd/science-and-tech/2017/10/10/130720.html

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ