৫-৬ ঘন্টা ঘুম?

 (12430 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

এক জন মানুষ এর ৫-৬ ঘন্টা ঘুমানোর প্রয়োজন হয়। মনে করেন আমি ঃ রাতে ১ ঘন্টা আর দিনে ৫/৬ ঘন্টা ঘুমাইলাম। তাহলে কী কোন সমস্যা হবে!?? একটু জরুরী উত্তর টা জানা প্রয়োজন।

7 Answers

 (3533 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আপনি যদি একটানা প্রতিদিন এরকম ঘুমান, তাহলে শরীর সয়ে যাবে..... যেমন:- প্রথম প্রথম খারাপ লাগতে পারে। কয়েকদিন পর পুরোপুরি হেবিটে পরিণত হবে... আর কোন সমস্যা হবেনা.... যেমন, যারা বিদেশে নাইট ডিউটি করে তারাও এমন করে...
 (2614 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

মানব শরীরকে যথাযথভাবে ফাংশন করতে হলে প্রয়োজন নিয়মিত বিশ্রাম, ঘুম। প্রতিদিন কমপক্ষে ৬-৭ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। আর পরিমিত ঘুম হলে শরীর, মন, মস্তিষ্ক স্বাভাবিকভাবে কাজ করার জন্য প্রস্তুত হয়। ফলে কাজের পারফরম্যান্স বা আউটপুট ভালো হয়। আর আপনি যে নিয়মে বলতেছেন কোন সমেস্যা নেই,,তবে ৬-৭ ঘন্টা হতে হবে।
 (5629 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

জি! সমস্যা হতে পারে। দিন আর রাতের ঘুমের মাঝে অনেক পার্থক্য বিদ্যমান। রাতে যতটুকু ফ্রেশ ঘুম হয় দিনে কিন্তু ততটা ফ্রেশ ভাবে ঘুমাতে পারবেন না । আর দিনের বেলা বেশি ঘুমালে আপনার শরীরে অবস্বাদ সৃষ্টি হতে পারে। যার ফলে বলহীন মনে হতে পারে। তাছাড়া, মাথা ব্যথা, ঝিমুনী সহ মুখে মেছতার প্রভাবও দেখা দিতে পারে।
 (1659 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

আমি মনে করি, রাতের ঘুম স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকার। কারণ রাতে আপনার চারপাশে সবকিছুই নিরব থাকে এতে আপনার ঘুম ভাল হবে। দিনে যতই ঘুমান না কেন এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য বেশি উপকার করবে না।ভাই,তাই দিনে ঘুম পারার চেষ্টা করুন।
 (2169 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

একটা কথা বলি কিছু মনে করবেন না । প্রকৃতির নিয়ম ই হলো রাতে ঘুমানো । সেই আদিকাল থেকেই মানুষ রাতে ঘুমাচ্ছে । আর আমাদের শরীর ও সেই ভাবেই তৈরি । আপনি দেখবেন একটি শিশু রাত হলেই ঘুমায় পরবে আর দিনের বেলা অনেক প্রানচঞ্চল। রাতে আপনি যখন ঘুমান তখন শরীর ইচ্ছাকৃত ভাবে ঘুমায় আর দিনে সেটি আপনি জোর করে ঘুমাচ্ছেন । দিনের বেলা আপনি ঘুমাতে যাচ্ছেন আর রাতে ঘুম আপনার কাছে আসছে । বৈজ্ঞানিক ভাবেও প্রমাণিত রাতের ঘুম দিনের ঘুমের চাইতে বেশি প্রয়োজনীয় ও উপকারী । আর দিনের ঘুম এ আপনি অলস হয়ে পড়বেন । সারারাত ফোন টিপে যদি কেউ দিনে ঘুমায় তাহলে তার শরীরে বিরুপ প্রভাব পড়বে । সে  শুকায় যাবে চোখের নিচে কালী পড়বে অবসাদ গ্রস্থ হবে কাজ করতে ইচ্ছা করবে না । কর্মঠ হওয়া থেকে বিরত থাকবেন এই ঘুমের জন্যই । দিনের ঘুম এর কারণে আপনার বার বার দিনেই শুয়ে থাকতে ইচ্ছা করবে কাজে মনোযোগ বসবে না । পড়ালেখা খারাপ হবে এবং শরীর ভেঙ্গে পড়বে । মানব মস্তিষ্কের ক্ষতি সাধন হবে ।  আপনি রাতের ঘুম সারাদিন ঘুমিয়েও পূরণ করতে পারবেন না । কোনো বেলার ঘুম ই কখনো কোনো বেলার ঘুমের পরিপূরক হতে পারে না । আশা করি আপনাকে বুঝাতে পেরেছি । 
 (2900 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

বোন, আপনি এমন একটা রুটিন তৈরি করলেন যা আমার ধারণাতে ভুল। যাই হোক, আপনি রাতে বেশি না ঘুমিয়ে দিনে বেশি ঘুমাতে চাচ্ছেন। এটা অভ্যস্ত করার র পর কোন সমস্যা হবে না। আপনি একটু চিন্তা করেন যে, রাতের ঘুম কি দিনে তৃপ্তি পাওয়ার মত ঘুমাতে পারবেন। আপনি পারবেন না। কারণ, রাতের তুলনায় দিনের বেলায় যে ঘুমাবেন সেটা কিন্তু আপনার স্বাস্থের পক্ষে ক্ষতিকর,শুধু তাই না আপনার ফ্রেশ মনটা ফিরে পাবেন না, সব সময় অস্বস্থিবোধ করবেন, দিনের বেলায় শান্তিতে ঘুমাতে পারবেন না। পরিশেষে বলতে পারি- এখন এটা আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার। কথা আমার সিদ্ধান্ত আপনার।
 (2351 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

সবার উত্তরে চোখ বুলালাম। এবার আমার মতামত দেই। একজন পূর্ণ বয়স্ক মানুষের জন্য বলছি - 

8 ঘন্টা ঘুম হল একজন মানুষের জন্য Standard. কিন্তু 9 ঘন্টার বেশি ঘুমালে ক্ষতি হবে। আর সময় আরো কমাতে হলে 7 ঘন্টা হল recommended. আর 6 ঘন্টা হল Minimum সময়। এর চাইতে কম ঘুমালে শরীর ভেঙ্গে যেতে বাধ্য। 

আর ঘুম হতে হবে খাঁটি। যারা ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখে অথবা রক্তচাপের সমস্যায় ভোগে তাদের মস্তিষ্কের বিশ্রাম হয়না। তারা 20 ঘন্টা ঘুমালেও কাজে আসবে না। এর চাইতে 5 ঘন্টার সত্যিকারী ঘুমও ভাল। (সময়ের প্রসঙ্গে আসাতে এটি বললাম)

এবার মূল প্রসঙ্গে আসি। আমরা রাতে কেন ঘুমাই। সোজা উত্তর হল আমরা কাজ করি দিনের আলোতে। সারাদিন কাজ করে রাতে বিশ্রাম করি। আর বাকিরাও একই কাজ করে। আর সেজন্যই রাতে সব নীরব হয়ে যায়। ঘুমানোর পরিবেশ তৈরি হয়। 

কিন্ত আপনি যে কোন কারণেই হোক না কেন ঠিক বিপরীত কাজটি করলে কি হবে সেটা জানতে চাচ্ছেন। আমার উত্তর হল যদি আপনি সঠিকভাবে দিনে 6 ঘন্টা আর রাতে 1 ঘন্টা ঘুমান তাহলে short term এ কোন সমস্যা নেই। কিন্তু long term এ সমস্যা হতে পারে। কারণ আপনি প্রকৃতির বিরুদ্ধে গেলেও আপনার দেহ সেটা সহ্য না ও করতে পারে। 

আপনি যদি USA তে চলে যান তাহলে আপনি 2/3 দিনেই সময়ের ব্যবধান Adjust করে নিতে পারবেন। কিন্তু এখানে থেকে আপনার দিনে ঘুম আর রাতে জাগা এটা adjust করতে অনেক সময় লাগতে পারে। 

আর যদি Adjust করেও থাকেন তারপরও আপনি Long term এ কিছু সমস্যার ঝুঁকিতে থাকবেন। যেমন - 

  • অস্থিরতা 
  • ক্লান্তি অনুভব করা
  • ঘুম ঘুম ভাব
  • দেহের অভ্যন্তরীণ প্রক্রিয়া সমূহ  (metabolism) বাধাগ্রস্থ হওয়া
  • মনোযোগ হারিয়ে ফেলা ইত্যাদি। 
এ বিষয়ে এই এই আর্টিকেল টি পড়তে পারেন। ধন্যবাদ। 
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...