কোন প্রাণী যবেহ করার সময় ইচ্ছাকৃত বিসমিল্লাহ না পড়লে সেই পাণী খাওয়া যাবে কি?

কোন প্রাণী যবেহ করার সময় ইচ্ছাকৃত বিসমিল্লাহ না পড়লে সেই পাণী খাওয়া যাবে কি?
বিভাগ: 
Share

4 টি উত্তর

মুসলমানের জন্য আল্লাহর নাম ব্যতীত জবাই করা প্রাণীর গোস্ত খাওয়া হারাম।
 যবেহ করার সময় যে সকল বিষয় লক্ষণীয় যা যবেহ করা হবে তার সাথে সুন্দর আচরণ করতে হবে, তাকে আরাম দিতে হবে। যাতে সে কষ্ট না পায় সে দিকে লক্ষ রাখতে হবে।  যবেহ করার সময় বিসমিল্লাহ বলতে হবে। কারণ আল্লাহ রাব্বুল আলামিন বলেন:— ﴿فَكُلُواْ مِمَّا ذُكِرَ ٱسۡمُ ٱللَّهِ عَلَيۡهِ إِن كُنتُم بِ‍َٔايَٰتِهِۦ مُؤۡمِنِينَ ١١٨﴾ [الانعام: ١١٨]  ‘যার উপর আল্লাহর নাম [বিসমিল্লাহ] উচ্চারণ করা হয়েছে তা থেকে তোমরা আহার কর।’[3] যবেহ করার সময় তাকবীর বলা মোস্তাহাব।  রাসুল্লুলাহ সাল্লালাহু আলাহি ওয়াসাল্লাম পশু যাবেহ করার সময় বিসমিল্লাহ ওয়া আল্লাাহু আকবার বলতেন। কাজেই যদি কেউ ইচ্ছাকৃত ভাবে "বিসমিল্লাহ" না বলে অন্য নিয়তে পশু যাবেহ করে তাহলে সে পশুর গোস্ত খাওয়া জায়েজ নয়। এ মাসআলা শুধুমাত্র যেসব পশু যাবেহ বিষয়ে আপনি জ্ঞাত ও নিশ্চিত। 

উক্ত মাসয়ালায় মধ্যে অল্প মতানৈক্য রয়েছে:-


  • হযরত আলি ও ইবনে আব্বাস (রা) এবং ইমাম আবু হানিফা ও মালেক (র) এর মতে,  ইচ্ছাকৃতভাবে বিসমিল্লাহ্‌ ব্যতীত পশু যবাই করলে, যবাইকৃত পশু হালাল হবে না।
  • আর, ইমাম শাফেয়ী (র) বলেন, ইচ্ছাকৃতভাবে বিসমিল্লাহ্‌ ব্যতীত পশু যবাই করলে, যবাইকৃত পশু হালাল হবে। 

সিদ্ধান্ত :- পরিশেষে প্রমাণিত হয় যে, ইচ্ছাকৃতভাবে বিসমিল্লাহ্‌ বর্জন করলে, যবাইকৃত পশু হালাল হবে না।


তথ্যসূত্র : - শারহে বেক্বায়া

আল্লাহর নাম ব্যতিত যবেহ করা প্রাণীর মাংস হারাম ৷৷ হারাম খাওয়া = মানুষের পায়খানা খাওয়া ৷

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ