ব্যাখা পড়ে সকলে উত্তর দেবার চেষ্টা করুন? আমাদের স্কুলে হ্যান্ডবল টিম গঠন হয়েছে। আন্তঃ ক্যান্টনমেন্ট হ্যান্ডবল প্রতিযোগতার জন্য। আমি এতে নাম দিয়েছি। ২৮ তারিখ থেকে খেলা শুরু।  আমাদের ২দিন প্র‍্যাকটিস হয়েছে। ২৫ তারিখ পর্যন্ত প্র‍্যাকটিস হয়ে তারপরে বাছাই হবে। এই প্র‍্যাকটিসেই আমি খেলাটি বেশ আয়ত্ত্বে এনে ফেলেছি। মোটামুটি সব শিখেই গিয়েছি।  কিন্তু ক্লাস ৯-১০ এর আপুদের সিনিয়রগিরি প্রচন্ড সমস্যায় ফেলছে। আমাদের কারো হাতে কখনো বল দেয় না তারা। স্যারের কাছে অভিযোগ দিলে তিনি আরেকটি বল দিয়েছেন। ৯-১০ রা সেটার হাওয়া কিছুটা বের করে তারপরে আমাদের দিয়েছে।  সব দিক দিয়ে মনে হচ্ছে শেষ পর্যন্ত আমাদের কাউকে নেওয়া হবে না। ৯-১০ দের সিনিয়রগিরি বিজয়ী হবে।  কিন্তু স্যার আমাদের কয়েকজনকে দল না ছাড়ার হুমকি দিয়েছেন। আমারো খেলার অনেক ইচ্ছা।  এই মুহূর্তে ৯-১০ দের নির্যাতনের হাত থেকে কিভাবে মুক্তি পেতে পারি?

1 টি উত্তর

হুমম! বহুদিন আগে একটা কৌতুক শুনেছিলাম। কোন এক লোককে জাহান্নাম ঘুরিয়ে দেখানো হচ্ছে। সেখানে দেশ অনুযায়ী জাহান্নামীদের পৃথক ভাবে রাখা হয়েছে এক একটা গর্তে। এবং সব দেশের পাপীদের জন্যই ফেরেশতা রাখা আছে গর্তের মুখে। যাতে কেউ পালাতে না পারে। শুধু বাংলাদেশের গর্তের উপর কোন ফেরেশতা নেই। তো স্বাভাবিক ভাবেই লোকটি প্রশ্ন করল এই দেশের লোকদের জন্য পাহাড়াদার নেই কেন? ওরা কি পালানোর চেষ্টা করে না? 

জবাবে তাকে বলা হল ওরা অবশ্যই পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু পারে না। একজন উঠতে গেলে অন্যজন তাকে টেনে নামায়। নিজেও উঠতে পারে না আর অন্যকেও উঠতে দেয় না! আর তাই পাহাড়া দেবার কোন প্রয়োজন হয় না। 

(গল্পটা পিছন থেকে টেনে ধরা লোকজনকে উদ্দেশ্য করে বলা। এর কোন জাতিগত বা ধর্মীয় ভিত্তি নেই। আমি আমার দেশকে ভালবাসি) 

তো আপনি যাদের কথা বললেন তাদের অবস্থা হল এমন। তারা নিজেদের দূর্বলতা ঢাকতে আপনাদের সাথে দুশমনি করছে। আর দুশমন দমন করার সহজ উপায় জানেন তো? 

বন্ধুত্ব করে নেওয়া। স্যারদের কাছে নালিশ করে হয়ত কিছু সময়ের জন্য ওদের থামাতে পারবেন। কিন্তু ওদের মনের শয়তানী কিন্তু রয়েই যাবে। কিন্তু তাদের মনে কোনভাবে স্থান পেতে চেষ্টা করুন। একসময় দেখবেন আপনার বিপদে ওরাই এগিয়ে আসবে। 

কাজটা হয়তো কিছুটা সময় সাপেক্ষ আর কঠিন। কিন্তু ফল হবে অসাধারণ। এই খেলাই তো শেষ না। গোটা জীবনই একটা খেলা। ওদের সাথে মিশে যান। যদি কটাক্ষ করে কিছু বলে নরম চোখে তাকাবেন। আর স্যরিও বলতে পারেন। আপনি এটাকে একটা experiment হিসেবে নিন। ধরে নিন মানুষের মন নিয়ে ছোট্ট একটা study. কিন্তু ওরা তো আর সেটা জানবে না। ওরা কয়েকবার এরকম আচরণ করে ভাববে - নাহ! জুনিয়রদের সাথে এমন আচরণ করা উচিৎ হয়নি। 

আর স্যারই যেহেতু দলে রাখতে চাইছে তাহলে আশা করি দলেও থাকতে পারবেন। বলটি পাম্প করে নিন। 

উত্তর দিতে গিয়ে তাল হারিয়ে ফেললাম কিনা কে জানে! জটিল প্রশ্ন After all. কিন্তু আমার বিশ্বাস কাজ হতে পারে। ধন্যবাদ।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ