এই ফোন তো আমার জীবন শেষ করে দিল?

এই ফোন তো আমার জীবন শেষ করে দিল?অতিরিক্ত মাত্রায় ফোন টিপি ফেসবুকে কারো সাতে চ্যাট করি না তবুও নিউজ ফিড নিয়া পড়ে থাকি যার কারনে পড়তে ইচ্ছা করে না অনেক বার অনেক ভাবে ট্রাই করেছি কিন্ত ফোন ব্যাবহার কমাইতে পারছি না কী করতাম বুঝতাছিনা। এদিকে পরীক্ষা চলে আসছে কার্যকারী কোন উপায় থাকলে বলুন। ফেসবুক একাউন্ট পর্যন্ত ডিয়েক্টিভ করে রেখেছিলাম কিন্ত আবার এক্টিব করেছি। এখন কি করতে পারি সবার মতামত আশা করছি!?
বিভাগ: 

6 টি উত্তর

ফোন কাছে থাকলে মনে হবে একটু দেখি একটু দেখি এই রকম। আপনি আপনার ফোন টা বাসায় দিয়ে দিন আর শুধু চালানোর জন্য একটা বাটন ফোন নিতে পারেন আর ফোন বাসাই জমা দিলে আপনার ফ্যামিলী এক্সামের আগে আপনার হাতে দিবেনা। কিছু দিন অবশ্য খারাপ লাগবে কিন্তু পরে ঠিক হয়ে যাবে। 

আপনি ফোনটা আপনার বাবার কাছে দিয়ে দিন। তাহলেই হবে।
আপনি চেষ্টা করুন এমবি না কেনার জন্য কারণ এমবি থাকলেই ইচ্ছা করবে ফোন চালাতে।
যে সময়ে আপনি ফেসবুক বা অন্য কিছু ইউজ করেন সেই সময়ে অন্য করজ করার চেষ্টা করুন হয়তো সেটা ঘরের কাজ না হয় অন্য কিছু।
ফোনে টাকা লোড দিবেন না টাকা থাকলেই এমবি কিনতে হবে।
ব্রেনটাকে অন্য দিকে ঘুরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন। লেখাপড়ার দিকে নিতে পারেন।
ভাবুন যে আমি প্রতিদিন যে পরিমান এমবি কিনে টাকা নষ্ট  করি সেটা দিয়ে অন্য কিছু করব তাহলে এমবি কেনা আগ্রহ কমে যাবে আর নেট ব্যাবহারও।
ভাবুন যে আমি যদি পরীক্ষায় রেজাল্ট খারাপ করি তাহলে তো আমার পরিবার বা বন্ধু বান্ধব খারাপ নজরে তাকাবে এর জন্য লেখাপড়া করতে হবে।
কিছু কিছু ফেসবুক পেজ আছে যেগুলো আগ্রহ বাড়াবে ফেসবুক ব্যাবহারের প্রতি সেগুলো আলফ্লো করুন।
হয়তো একটু হলেও আপনার নেশা কমতে পারে ফেসবুক থেকে।
এই,প্রেক্ষিতে আমি নিজে যে,ট্রিপ্স টা ফলো করি ,সেটাই,আপনাকে দিচ্ছি,তা হলো ,আপনি কথা,বলার,জন্য আরেক টা,নরমাল,ফোন ইউস করেন,যেখানে অনলাইনে ডুকার অপসন না,থাকে, এভাবে নিয়ম মেনে সকাল দুপুর বিকালে নেটা চালিত ফোন চালাবেন,অন্য সময় নরমাল টা,চালাবেন,আর নিজেকেও,কিছু কন্ট্রোল করে হবে,আশা,করি কিছু হলেও ফল পাবেন

এটার সম্পূর্ণ রুচি একান্তই আপনার নিজের উপর।চেষ্টা করলে এটা অসম্ভব কোনকিছু না।মোবাইল বন্ধ করে রেখে দিন।

পরীক্ষা তাই অ্যাকাউন্ট ডিঅ্যাক্টিভ করে দিন,ফেসবুক চালানোর জন্য হাতে বহুত সময় পাবেন  কিন্তু পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট না করতে পারলে সেটা আপনাকে সবসময় প্যারা দিবে।পরীক্ষা বার বার আসেনা আর  সেই পরীক্ষাতেই যদি একটি মানসম্মত ফলাফল না পাওয়া যায় তাহলে সত্যিই বিষয়টা অনেক দুঃখের।যদি সেখানে সামনে পরীক্ষা রেখে ফেসবুকে সময়টুকু ব্যয় করেন তাহলে তো মানসম্মত ফলাফল অর্জন করাটা বেশ টাপ।তাই বলবো সময়কে এখনো কাজে লাগান পড়াশুনায় তাহলে পড়াশুনায় আপনাকে কাজে বড় ভূমিকা রাখবে মানসম্মত রেজাল্টে।বইকে ভালোবাসুন তাহলে দেখবেন পরীক্ষাতে বইও আপনাকে ভালোবাসবে।সামনে আপনার জীবনের অন্যতম একটি কঠিন সময় অপেক্ষা করছে সেটাকে পাড়ি দিতে হলে এখন থেকেই নিজেকে প্রস্তুত করে তুলুন।ফেসবুক চালানোর জন্য যথেষ্ট পরিমাণ সময় পাবেন পরীক্ষার পরে।তখন মোবাইল

চালানোর জন্যও অনেক সময় পাবেন। 

সব কিছু নিজের মনের উপর নির্ভর করে। আপনি সংকল্প করুন, পরীক্ষা শেষ না হওয়া পর্যন্ত মোবাইল ধরবেন না। তাহলেই তো হলো। শুধু সংকল্প দৃঢ় হতে হবে ।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ