পায়খানা করার পর জালাপোড়া করে সমস্যা কি? এবং এর প্রতিকার কি?
masudrana123
জিজ্ঞাসা করেছেন
3 টি উত্তর
দিয়েছেন
আপনার কোষ্ঠকাঠিন্য হয়েছে। ফলে মল ত্যাগ করতে আপনার যন্ত্রণা হয়। এর প্রতিকার হলোঃ আপনাকে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে, প্রতিদিন কমপক্ষে ১০ থেকে ১২ গ্লাস পানি। আমিষ ও শর্করা জাতীয় খাবার কম খেয়ে সবুজ শাকসবজি ও ফলমুল গ্রহণ করুন। ভাজি পোড়া খাবার ত্যাগ করে, রসালো তরকারি গ্রহণ করুন। আশা করি সমাধান হবে।
দিয়েছেন
কৃমির উপদ্রব বৃদ্ধি পেলে মলদ্বারে জ্বালা করতে পারে|কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণে মলত্যাগের সময় মলদ্বার ফেটে যেতে পারে| তাই মলত্যাগের পর মলদ্বার জ্বালাপোড়া করতে পারে|মলদ্বারে চুলকানি বা জীবাণুর কারণেও জ্বালাপোড়া করতে পারে| এ থেকে পরিত্রাণ পেতে কোষ্ঠকাঠিন্য, চুলকানী বা কৃমি সমস্যা সমাধান করতে হবে|তাই এ সম্পর্কে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া ভালো|
দিয়েছেন
প্রতিকার ::::;--- চিকিৎসককে প্রথমে অবশ্যই চুলকানির সাধারণ কারণগুলো নিমর্ূল করতে হবে। এজন্য প্রকটোস্কপের সাহায্যে পরীৰা করে দেখতে হবে। প্রয়োজনের সিগময়ডোস্কপি অথবা কলোনস্কপি পরীৰার প্রয়োজন হতে পারে। চিকিৎসা শুরম্ন করার আগে সব অস্বাভাবিকতা নির্মর্ূল করতে হবে। হেমোরয়েড বা অর্শ থাকলে লাইগেট ও ইনজেকশন দিতে হবে। ফিশার থাকলে তার চিকিৎসা করতে হবে। কলাইটিস বা অন্ত্রের প্রদাহ থাকলে অবশ্যই চিকিৎসা করতে হবে। থ্রাশ থাকলে এ্যান্টি মনিলিয়াল (এ্যান্টি থ্রাশ) ক্রিমের সাহায্যে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনা যেতে পারে। চুলকানি বা জ্বালাপোড়া যত দ্রম্নত সম্ভব থামাতে হবে। যদি চুলকানি না থামে এবং ক্রমাগত বাড়াতে থাকে তাহলে স্বল্পকালীন স্টেরয়েড ও চুলকানিবিরোধী মলম ব্যবহার করা যেতে পারে। এসব ৰেত্রে স্থানিক এ্যানেস্থেটিক ক্রিমগুলো ৰতিকর। মনে রাখবেন পায়ুপথে চুলকানি কোন ছোট উপসর্গ নাও হতে পারে। যদি চুলকানি অবিরাম থাকে তাহলে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন। বিভিন্ন রোগের উপসর্গ হিসেবে এইসব উপসর্গ দেখা দিতে পারে। মলদ্বারের চারপাশের পশম নিয়মিত কাটার অভ্যাস করতে হবে। মলদ্বারে কোন সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার না করা।
Download Bissoy Answers App Bissoy Answers