আমি এক মেয়ের সাথে যেনা করেছি।কিন্তু এখন আমি তাকে বিয়ে করতে চাই না।এতে আল্লাহ কি আমাকে ক্ষমা করবেন?যদি এই মেয়ে ক্ষমা না করে?

আমি এক মেয়ের সাথে যেনা করেছি।কিন্তু এখন আমি তাকে বিয়ে করতে চাই না।এতে আল্লাহ কি আমাকে ক্ষমা করবেন?যদি এই মেয়ে ক্ষমা না করে?
বিভাগ: 
Share

4 টি উত্তর

ইসলামের দৃষ্টিতে বিয়ের আগে শারীরিক সম্পর্ক করা সম্পূর্ণ হারাম। আপনি যেনা করে থাকলে একা করেননি দু'জনেই যেনা করেছেন তাই অপরাধ দুজনেরই। আপনি যদি আপনার ভুল বুঝতে পারেন এবং আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান এবং তওবা করেন সে ক্ষেত্রে আপনি ক্ষমা পাবেন। কিন্তু আপনি যদি মেয়েটিকে বিয়ে করার আসস‍্যাস দিয়ে তার সর্বনাশ করে থাকেন তাহলে তাকে বিয়ে করতে হবে তানাহলে ক্ষমা পাবেন না। আর যদি সে আপনাকে ক্ষমা করে তাহলে তওবা করার কারণে ক্ষমা পাবেন। কিন্তু যদি কাজটি পূণরায় করেন তাহলে কোন ক্ষমা নেই।

কখোনোই না বিয়ের আগে এই সব কাজ সেটা আপনি খুব

ভালোমতো জানেন।

যেনাকারীর জন্য ভয়াবহ শাস্তি হবে।

আপনি মেয়েটিকে বিয়ে করে নিন

এবং মহান আল্লাহতালার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন

নামায পড়ুন ৫ ওয়াক্ত,রোজা রাখুন,তাহাজ্জত এর নামায

আদায় করে নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত হয়ে

ক্ষমা চান আল্লাহতালার কাছে নিশ্চয় আল্লাহ্‌ ক্ষমা করবেন

*মহান আল্লাহ্‌ ক্ষমাশীল ও দয়ালু*

আপনি যে মেয়ের সাথে যেনা করেছেন তাকে বিয়ে করলেও ঐ যেনার গুনাহ হবে না করলেও ঐ যেনার গুনাহ হবে। এখন আপনি খাটি মনে আল্লাহর কাছে তওবা করুন । আল্লাহ ক্ষমাশীল।

মেয়েটি ক্ষমা করবে কি? পাপ কি শুধু পুরুষের হয়? নারি পুরুষ উভয়েই ই সমান সমান পাপ। 

আপনি এখন যেমন অনুশোচিত হচ্ছেন মাত্র একটি জেনার কারনে ঠিক একই ভাবে কি নামাজ ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুতপ্ত হয়েছিলেন কখনো  ? এক বার জেনা করার পাপ বেশী নাকি এক ওয়াক্ত নামাজ ছেড়ে দেবার পাপ বেশী, কোনটা? 

কোরআন এ পাক এ নামাজের তাগিদ দেওয়া হয়েছে ৮০ বার আর ব্যভিচার থেকে বিরত থাকার কথা বলা হয়েছে বড় জোর ১/২/৩/বার। 

নামাজ পড়িনা ভুলেই গেছি হয়ত কিন্তু জেনা নিয়ে এতো ঘাবড়ে গেলে তো চলবে না। 

পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ ধরুন জেনার গুনাহ নিমিষেই মুছে যাবে কারন, নামাজ পাপকে নিশ্চিহ্ন করে দেয়। 

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ