উৎপাদন কেন্দ্র থেকে যে বিদ্যুৎ আমরা পাই এখানে কারেন্ট এর সাথে ভোল্টেজের সম্পর্ক টা মূলত কি?আর যদি ভোল্টেজ ৩৩কেবি হয় তাহলে কারেন্ট কত হবে?
3 টি উত্তর

কারেন্টর আর ভোল্টেজ এর সম্পর্ক ভালো মন্দ হওয়ার জন্য আরো একটা জিনিস আছে সেটা রোধ ।একটি 100w এর বাতি এর ভোল্ট 220 হলে এর এর রোধ হবে 484 ohm 220ভোল্টে ঐ বাতির ভিতর দিয়ে 0.454 A কারেন্ট যাবে আরও বেশি ভোল্ট হলে বেশি কারেন্ট যাবে । এটাই সম্পর্ক

কারেন্ট হচ্ছে ইলেকট্রনের প্রবাহ। একটি পরিবাহীর মধ্যদিয়ে একটি নির্দিষ্ট দিকে ইলেকট্রন প্রবাহ হলে একে কারেন্ট বলে।

আর আমরা জানি কোনো স্হির বস্তুুুকে গতিশীল করতে হলে বল বা চাপ প্রয়োগ করতে হবে।

তাই ইলেকট্রনকে প্রবাহিত করতে যে চাপ প্রয়োগ করা হয় তাকে ভোল্টেজ বলে। ছুট করে বলা চলে বৈদ্যুতিক চাপকে ভোল্টেজ বলে।

উৎপাদন কেন্দ্রে পাওয়ার উৎপাদন করা হয়। আর পাওয়ারের মধ্যে তিনটি জিনিস থাকে, সেগুলো হলো- ভোল্টেজ, কারেন্ট, এবং পাওয়ার ফ্যাক্টর। ট্রান্সমিশন এবং ডিস্ট্রিবিউশন এর  সুবিধার জন্য, ভোল্টেজকে বাড়ানো কমানো হয়ে থাকে। এবং বিভিন্ন লোডে ব্যাবহার যোগ্য করার জন্য, এই ভোল্টেজকে ৪০০ ভোল্ট বা ২২০ ভোল্ট করা হয়। আর কারেন্ট নির্ভর করে লোডের ওয়াটের উপর। কারন ভোল্টেজ আর পাওয়ার ফ্যাক্টর তখন ফিক্সড হয়ে যায়।