বুঝতে পারছি না কী করবো মরে যাবো নাকী সে যা বলছে তাই মেনে নেবো...?

বুঝতে পারছি না কী করবো মরে যাবো নাকী সে যা বলছে তাই মেনে নেবো...?

এই বিষয় এ এর আগেও আমি প্রশ্ন করেছিলাম

কিন্তূ সেই রকম কোন উত্তর  পাই নাই

এক জনার কাছে আমার বাজে কিছ্য ছবি আছে

সে দেশের বাইরে থাকে

আগামী শুক্রবার সে দেশে আসবে

এখন  সে আমাকে বলছে ১৫-২০ মিনিট  এর জন্য

তার হয়ে যেতে মানে তার সাথে আপত্তিকর  সম্পর্কে

জড়ানে তা না করলে তার যা ইচ্ছা সে ছবি গুলা নিয়ে

তাই করবে

কিন্তূ আমি তার সাথে এই রকম সম্পর্কে জড়াতে

চাই না

এখন কী করবো আমি

মরে গেলে কী এর সমাধান হবে????

মরন ছাড়া আর কোন পথ খোলা ননাই আমার

সামনে

এখন আমি কী  করবো.?????

বিভাগ: 
Share

4 টি উত্তর

আমার ধারনা , আপনার মাথা ঠিকমতো কাজ করছে না। আপনি কোন ভাবেই ওই লোকের কথায় খারাপ কাজে জড়াবেন না। আপনি তাকে পুলিশের ভয় দেখান। এছাড়া তাকে বলুন যে , ওই ছবি আপনার না। ওই লোকের উপর দোষ চাপিয়ে দিন । তাকে বলুন সে photoshop দিয়ে এই খারাপ ছবি বানিয়েছে। তাহলে সে ভয় পেয়ে চুপ হয়ে যাবে। ভুলেও কোনদিন আত্মহত্যার কথা মাথায় আনবেন না । আত্মহত্যা মহাপাপ

যাবেন না। কারণ সে এসব ছবি দিয়ে বার বার আপনাকে ব্যাবহার করতে পারে.....ধৈর্য ধরে আল্লাহর কাছে সাহায্য কামনা করুন এবং আপনার কোনো বিশ্বস্থ বান্ধবী থাকলে তার সাথে পরামর্শ করুন।মনে রাখবেন আত্মহত্যা মানে নিজের কাছে হেরে যাওয়া আপনি যে কিছুই করতে পারেন না এবং নিজের মনের কাছে বার বার হেরে যান তার প্রমাণই হলো আত্মহত্যা।সুতরাং ঠান্ডা মাথায় ভেবে চিন্তে কাজ করুন এবং আল্লাহর কাছে সাহায্য কামনা করুন আমি ব্যক্তিগতভাবে দোয়া করি আপনাকে যেনো এ বিপদ থেকে উদ্ধার করেন। কিন্তু আত্মহত্যা নয় ধন্যবাদ

আপত্তিকর ছবি তোলার মাধ্যমে আপনি ভুল করেছেন,শুধু সেজন্যই অনুতপ্ত হোন। 


কিন্তু কেউ সেই ছবি ব্যবহার করে আপনাকে হয়রানি করার চেষ্টা করছে বলে নিজের জিবন নষ্ট করার কথা ভাবছেন কোন দুঃখে? এখানে আপনার অপরাধ নেই, তাই প্রথম কাজ হলো নিজের মানসিকতা অটল রাখা। আপনার সামান্য দুর্বলতা উক্ত ব্যক্তির জন্য বিশাল অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে।

আপনার পরবর্তী কাজ হলো প্রমাণ জড়ো করা। উক্ত ব্যক্তির দেয়া কুপ্রস্তাব মেসেজের মাধ্যমে পাঠানো হলে স্ক্রিনশট তুলে রাখুন, ফোনকল হলে রেকর্ডিং প্রয়োজন হবে--- পরবর্তী সময়ে যখন কল দিবে তখন অবশ্যই রেকর্ড করার চেষ্টা করবেন।

প্রমাণ যোগানোর পর আপনার কন্ঠ দৃঢ় করুন, তাকে সরাসরি মামলার ভয় দেখান, বলুন যে আপনি জিডি করেছেন। সে ভয় পায়নি মনে হলে সকল সংকোচ ভুলে আপনার ভাই, বড়বোন কিংবা মাকে জানান। তাদের বলবেন যে খারাপ ফটো গুলো এডিট করা।

যেহেতু একই এলাকার তাই আপনার পরিবারই দুর্ঘটনা এড়াতে পারবে আশা করি।


কোনকিছুতে উক্ত ব্যক্তিকে দমানো না গেলে আইনের সহায়তা নিন, বর্তমান প্রেক্ষাপটে এজাতীয় বিষয়গুলো খুব গুরুত্বের সাথে নেয়া হয়। তবুও পুলিশ খামখেয়ালি ভাব দেখালে কোনো মহিলা এডভোকেটের সাহায্য চাইতে পারেন।


সব প্রচেষ্টার পরও যদি আপনার গোপন ফটোসমূহ ফাঁশ হয় তাহলেও দমে যাবেননা। বিদেশে থাকলেও উনি আইনের হাত থেকে বাঁচতে পারবেননা। কিছুই হয়নি এরকম ভাব ধরে কয়েকমাস কাটিয়ে দিন, দেখবেন যতটা উত্তেজনার সাথে ঘটনাটি ঘটেছে ঠিক তত দ্রুততার সাথেই এটি হাওয়ায় মিলিয়ে গেছে।

আপনি ৫ ওয়াক্ত নামাজ পড়ুন নিয়মিত এবং আল্লাহর কাছে দোয়া করুন।ইনশাল্লাহ সমাধান করবে মহান আল্লাহ তালা।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ