হিন্দুরা গরু ও মুসলিমরা শুকর খায় না কেন?

হিন্দুরা গরু ও মুসলিমরা শুকর খায় না কেন?
বিভাগ: 
Share

2 টি উত্তর

গরুকে তারা মায়ের স্থান দিয়েছে। কারন একবার ভারতবর্ষ তে দূর্ভিক্ষ হলে গরু তাদের দুধ খাইয়ে বাচিয়েছে। আমাদের মুসলিমদের যদি গরু এভাবে বাঁচাতো হয়ত বা আমরাও গরু জাতীকে সম্মানের স্থান দিতাম। । আর শুকরের মাংস অনেক ক্ষতিকর। তাই আল্লাহ কুরআনে শুকর খেতে মানা করেছেন। তাছাড়া অনেক জ্ঞানী বিধর্মীরাও শুকর খায়না

হিন্দুরা গরু ও মুসলিমরা শুকর খায় না মূল কারণ হল ধর্ম নিষিদ্ধ জন্য।

হিন্দুরা গরু  না খাওয়ার কারণ:

বেদ হিন্দুদের আদি . ধর্ম গ্রন্থ । .বেদে গোহত্যা এবং গোমাংস খাওয়া সম্পূর্ণ

ভাবে নিষিদ্ধ। এটা হিন্দু সমাজ

মেনে চলে কঠোর ভাবে।

কিন্তু কিছুদিন ধরে ইন্টারনেট ফোরাম

গুলো তে হিন্দুদের

বিরুদ্ধে প্রপোগান্ডা চলছে। এরা চায় ১০০ কোটি হিন্দু নিজের বিশ্বাস ত্যাগ

করে তাদের ধর্মে ধর্মান্তরিত হোক

যেটা তাদের মতে সর্বশেষ পথ । বেশির ভাগ

হিন্দুই নিজের ধর্ম সম্পর্কে জ্ঞানী নয় তাই

তারা এই শিকারীদের সহজ শিকারে পরিনত

হচ্ছে । 

মুসলিমরা শুকর খায় না :

পবিত্র কুর'আনে ইরশাদ হয়েছেঃ وَمَا كَانَ لِمُؤْمِنٍ وَلا مُؤْمِنَةٍ إِذَا قَضَى اللَّهُ وَرَسُولُهُ أَمْراً أَنْ يَكُونَ لَهُمُ الْخِيَرَةُ مِنْ أَمْرِهِمْ وَمَنْ يَعْصِ اللَّهَ وَرَسُولَهُ فَقَدْ ضَلَّ ضَلالاً مُبِيناً ) الأحزاب/36 অর্থাৎ, আল্লাহ ও তাঁর রাসূল যখন কোন বিষয়ে ফায়সালা করেন তখন কোন মুমিন নর-নারীর জন্য তাতে নিজস্ব ইচ্ছাধিকার (প্রয়োগের) সুযোগ নেই। আর যে আল্লাহ ও তাঁর রাসূলের অবাধ্য হল সে পরিষ্কার পথভ্রষ্টতার শিকার হল''।(সূরা আহযাবঃ৩৬) 

পবিত্র কুর'আনে শূকরের মাংশ স্পষ্টভাবে হারাম করা হয়েছে। ইরশাদ হয়েছেঃ ( إِنَّمَا حَرَّمَ عَلَيْكُمُ الْمَيْتَةَ وَالدَّمَ وَلَحْمَ الْخِنْزِيرِ ) البقرة/173 অর্থাৎ, তিনি তোমাদের জন্য মৃতপ্রাণী,রক্ত ও শূকরের মাংশ হারাম করেছেন"(সূরা বাকারাঃ১৭৩)। তাই কোন মুসলমানের জন্য কোন অবস্থাতেই শূকরের মাংশ গ্রহন করা বৈধ নয়।(তবে খাদ্যাভাবে মরনাপন্ন অবস্থায় জীবন বাচানোর স্বার্থে সামান্য গ্রহনের অনুমতি রয়েছে)। 

অমুসলিম গবেষক ও চিকিৎসকদের মতামতঃ 


১= প্রাচীন চীনের স্বনামধন্য চিকিৎসক চাং চি মাও (যিনি ততকালীন রাজপরিবারের সন্তান ছিলেন এবং তাকে প্রধানমন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দেয়া হলে তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছিলেন) তাঁর বইয়ে লিখেনঃ '' শূকরের মাংশ সুস্থতা লাভের পর মানুষের শরিরে পূনরায় রোগের প্রত্যাবর্তনে সাহায্য করে। এছাড়াও Asthma (হাপানি রোগ) ও বন্ধ্যত্ব সৃষ্টি করে"। 

আধুনিক চিকিৎসাবিজ্ঞান তাঁর এ বক্তব্যের অকাট্যভাবে সমর্থন দিয়েছে। 


২= চীনের রাজপরিবারের আরেকজন চিকিৎসক লি সুন চাং (যিনি তাঁর গোটা জীবন চিকিতসাবিষয়ক গবেষণায় ব্যয় করেছেন এবং ৫০খন্ডে এর উপর কালজয়ী গ্রন্থ রচনা করেছেন যা চীনে সমধিক প্রসিদ্ধ গ্রন্থ) তিনি বলেনঃ " শূকরের মাংশের গন্ধ অরূচিকর। এটি রান্নার সময় এক ধরণের ঘন পদার্থ বের হয় যা মানুষের শরিরে বিষাক্ত ক্রিয়া সৃষ্টি করে''। 


৩= সাম্প্রতিক সময়ের প্রসিদ্ধ চিকিৎসক Sean John তাঁর " মাংশ খাওয়ার সমস্যা" নামক বইয়ে লিখেনঃ" শূকরের মাংশ খাওয়ার দরুণ স্মৃতিশক্তি লোপ পায় এবং মাথার চুল ঝড়ে পড়ে''। 

আধুনিক চিকিতসাবিজ্ঞানও এটা স্বীকার করে যে শূকরের মাংশ খাওয়া মাথায় টাক হওয়ার অন্যতম কারণ। 


৪= Dr. Glen Shepherd ওয়াশিংটন পোস্ট ৩১মে ১৯৫২ তে the dangers of eating pork শিরোনামে এক নিবন্ধে বলেনঃআমেরিকা ও কানাডায় প্রতি ছয়জনে একজন তাদের মাংশপেশিতে বিভিন্ন জিবাণুতে আক্রান্ত। শূকরের মাংশ খাওয়ার দরুণ (তাদের গায়ে) এক ধরণের কীট সংক্রামিত হয়। কিন্তু তাদের অধিকাংশই এই রোগের উপসর্গ ধরতে পারেনা। আক্রান্তদের কেউ কেউ খুব ধীরলয়ে সুস্থ হয়, কেউ মারা যায়, কেউ বা স্থায়ী কোন দুর্যোগের শিকার হয়। এ রোগে আক্রান্তদের সকলেই শূকরের মাংশভোগী''। 

তিনি আরো বলেনঃ এদের কারোর মধ্যেই এ রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা থাকেনা। কেননা এন্টিবায়টিক,ভ্যাকসিন বা অন্য কোন ঔষধ এই প্রাণঘাতী কীটগুলোর উপর কোন ক্রিয়া সৃষ্টি করেনা। এই রোগ উপশমের একমাত্র পথ হল শূকরের মাংশ খাওয়া থেকে বিরত থাকা। 

মাংশপেশিতে জন্ম নেয়া এই কীট সংখ্যায় হাজার হাজার বৃ্দ্ধি পায় এবং চল্লিশ বছর পর্যন্ত বাঁচে। এই রোগ সনাক্তকরণ খুব দুঃসাধ্য, কেননা এর উপসর্গ প্রায় ৫০টি রোগের উপসর্গের সদৃশ। 

এই উক্তিগুলোর পাশাপাশি মেডিকেল-সাইন্সের বইয়ে শূকরের মাংশ থেকে উৎপন্ন বিভিন্ন রোগের বিস্তারিত বিবরণ পাওয়া যায়। 

ি আরো বলেনঃ এদের কারোর মধ্যেই এ রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা থাকেনা। কেননা এন্টিবায়টিক,ভ্যাকসিন বা অন্য কোন ঔষধ এই প্রাণঘাতী কীটগুলোর উপর কোন ক্রিয়া সৃষ্টি করেনা। এই রোগ উপশমের একমাত্র পথ হল শূকরের মাংশ খাওয়া থেকে বিরত থাকা। 

তথ্যসূত্রঃ حكمة وأسباب تحريم لحم الخنزير في العلم والدين. د/سليمان قوش 

(দ্বীন ও বিজ্ঞানের আলোকে শূকরের মাংশ হারাম হওয়ার কারণঃ ডাঃ সুলাইমান কাওয়াশ) 



সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ