আমার স্বামীর সাথে শারীরিক সম্পর্ক না থাকা ও কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকার কারনে আমি একজনের বন্ধুত্ব করি। ১ম তা শুধুই বন্ধুত্ব ছিল পরে তা দৈহিক সম্পর্কে গড়ায়। তবে তা শুধু ১বার ই হয়। এখন কোন সম্পর্ক নেই। আমি অনেক অনুতপ্ত বিষয়টা নিয়ে..ইসলাম অনুযায়ী আমার কি করা উচিত?
বিভাগ:
5 টি উত্তর
আল্লাহ আপনার গোনাহ গুলো মাফ করুন। এবং বেশি বেশি আল্লাহর কাছে তাওবা করুন, তাওবা করার নিয়ম হলো ভোর রাতে ফজরের ১ ঘন্টা আগে উঠে দুই রাকাত বা চার রাকাত নামায পড়ে আল্লাহর দরবারে কান্না কাটি করে দোয়া করবেন এ ভাবে , হে আল্লআহ আমি না জেনে না বুঝে গোনাহ করে ফেলেছি তুমি আমাকে ক্ষমা করো ........ ,........ দোয়ার আগে ও পরে দুরুদ শরীফ পড়বেন , আর প্রতি দিন ফজরের নামাযের পরে ১০০ বার ইসতেগফার ও মাগরিবের নামাযের পর ১০০ বার ইসতেগফার পড়বেন এবং সকলের জন্য দোয়া করবেন । ইনশা আল্লাহ অবশই আপনার দোয়া কবুল হবে । আর যদি সম্ভব হয় ৪১দিনে ৪১ বার ছুরায়ে নিসা পড়বেন আর মুনাজাত করতে থাকবেন । আল্লাহ আপনার দোয়া কবুল করুন আমিন । আল্লাহ ক্ষমা করতে ভালবাসেন,নিশ্চয়ই তিনি আপনাকে ক্ষমা করে দেবেন।
আপনি অনেক বড় পাপ করে ফেলেছেন যার কোন ক্ষমা নেই তবুও আপনাকে একটা উপদেশ দিতে পারি সেটা হলো আপনি রোজ পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ুন ইসলাম পুরোপুরি ভাবে মানুন আল্লাহর কাছে অনেকবার তওবা করুন কান্নাকাটি করুন আল্লাহ চাইলে আপনাকে ক্ষমা করতে পারেন তিনি অসীম দয়ালু ক্ষমাশীল

আপনি আল্লাহর কাছে তাওবা করুণ। প্রথমে এ কাজের জন্য আপনাকে অনুতপ্ত হতে হবে। ২ এহেন কাজ আর করবেন না এই প্রতিজ্ঞা করতে হবে। ৩ দুই রাকাত নফল নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে ক্ষমা চান। 

ইসলামের নিয়ম অনুযায়ী

জেনা করার অপরাধে আপনাকে

পাথর নিক্ষেপ করে হত্যা করা উচিত।

আপনি যা করেছেন তা শরীয়তের দৃষ্টিতে হারাম এবং জঘন্য অপরাধ। এর শাস্তি হিসেবে ইসলামে যা আছে তাহল আপনাকে পাথর নিক্ষেপ করে হত্যা করা, যাকে রজম করা বলে। আপনি আপনার স্বামীকে ঠকিয়েছেন। আল্লাহ পাক হয়ত আপনাকে ক্ষমা করতে পারে, তবে আপনার সঙী আপনাকে ক্ষমা করবেন কিনা সেটাই ভাববার বিষয়। তবে আপনি যা করতে পারেন তাহল আপনার এ দোষ আপনি কারো কাছে প্রকাশ না করে গোপন রাখুন। তাহলে আল্লাহ আপনাকে গোপনেই ক্ষমা করে দেবে। আর তওবা করুন এরকম কাজ আর কখনও করবেন না। আল্লাহ চাইলে আপনাকে মাফ করবেন। আল্লাহর ক্ষমার ব্যাপারে কখনও নিরাশ হবেননা।