প্রোটিন গঠন , স্রষ্টার অস্তিত্বের প্রমাণ কি?
 (26716 পয়েন্ট)

জিজ্ঞাসার সময়

1 Answer

 (26716 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

"ঈশ্বর বলে কিছুই নেই !!!!! সব কিছুই কাকতালীয় ভাবে উৎপন্ন হয়েছে। সকল প্রাণী বিবর্তনের ফসল।" উক্তিটি নাস্তিক , বিবর্তনবাদীদের মধ্যে Common একটি কথা । কিন্তু , সামান্য একটি প্রোটিনই এই ধারণাকে ভুল প্রমাণে যথেষ্ট । কারণ কাকতালীয় ভাবে একটি প্রোটিন গঠনের সম্ভাব্যতা হল ১/(১০^৯৫০) !! ১০^৯৫০ মানে হল ১ এর পরে ৯৫০ টা শূন্য বসালে যে সংখ্যা হয়। অর্থাৎ সম্ভাবতা হবে , "." এর পরে ৯৪৮টা শূন্য বসাইয়ে এর পর ১ বসালে যে সংখ্যা হয়। অর্থাৎ কাকতালীয় ভাবে একটি প্রোটিন গঠিত হওয়ার সম্ভাবনা ''০'' ।নিচে এই সহজ গণিতটি তুলে ধরা হল। যারা সম্ভাব্যতা বুঝেন না , আপনারা পারলে অন্য কারো কাছে পরীক্ষা করিয়ে নিতে পারেন । আগে বলে নেই , প্রোটিন গঠনের জন্য তিনটি শর্ত পূরণ করতে হবে ।১ ) সঠিক Amino এসিড নির্বাচন ২) সকল এমিনো এসিড কে অবশ্যই L-এমিনো এসিড হতে হবে । ৩ ) সকল এমিনো এসিড কে অবশ্যই পেপটাইড বন্ড দিয়ে যুক্ত হতে হবে। নিচে ৫০০ এমিনো এসিড বিশিষ্ট প্রোটিন সমূহের সম্ভাব্যতা নিয়ে আলোচনা করা হল ১) সঠিক এমিনো এসিড নির্বাচনঃ প্রকৃতিতে প্রায় ২০ ধরণের এমিনো এসিড পাওয়া যায় যেগুলো প্রোটিন গঠনের জন্য দায়ী।এদেরকে বলা হয় Proteinogenic Amino Acid । একটি নির্দিষ্ট প্রোটিনের জন্য একটি নির্দিষ্ট এমিনো এসিড প্রয়োজন। তাই কাকতালীয় ভাবে ঐ নির্দিষ্ট এমিনো এসিড বাছাই হওয়ার সম্ভাবনা ১/২০ ।সুতরাং প্রোটিনের জন্য ৫০০ টি নির্দিষ্ট এমিনো এসিড বাছাই হওয়ার সম্ভাবনা হল ১/(২০^৫০০) = ১/(১০^৬৫০)। ২। L-এমিনো এসিড হতে হবেঃ শুধুমাত্র একটি L-এমিনো এসিড কাকতালীয় ভাবে পাওয়ার সম্ভাবনা ১/২ । ৫০০ টি L-এমিনো এসিড কাকতালীয় ভাবে পাওয়ার সম্ভাবনা (১/২^৫০০) = (১/১০^১৫০)। [ actually ২^৫০০ > ১০^১৫০ । but হিসাবের সুবিধার জন্য এখানে ১০^১৫০ লেখা হয়েছে। বাকিগুলার খেতরেও এক ই কথা প্রযোজ্য। ] ৩ ) পেপটাইড বন্ড ঃ এমিনো এসিড নিজেদের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের রাসায়নিক বন্ধন গঠন করতে পারে, প্রোটিনের ক্ষেত্রে সেটা অবশ্যই পেপটাইড বন্ড হতে হবে । আর কোন বন্ধন নয় । এখন একটি এমিনো এসিডের আরেকটি এমিনো এসিডের সাথে শুধু মাত্র পেপটাইড বন্ড দ্বারা গঠিত হওয়ার সম্ভাবনা হল ১/২ । ৫০০ টি এমিনো এসিড ই কাকতালীয় ভাবে পেপটাইড বন্ড দ্বারা পরস্পরের সাথে যুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা = ১/(২^৪৯৯) = ১/(১০^১৫০) সুতরাং কাকতালীয় ভাবে একটি প্রোটিন গঠিত হওয়ার সম্ভাবনা = (১/১০^৬৫০) x (১/১০^১৫০) x (১/১০^১৫০) = ১/(১০^৯৫০)!!!!১০^৯৫০ জানেন কত টুকু ??"১00000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000000 " গুনে দেখার দরকার নেই, আমাকে প্রোগ্রামিং করে লিখতে হয়েছে !!!! তাঁর মানে যদি উপরের ,মহা বিশাল থেকে বিশাল সংখ্যক ঘটনা ঘটে তাহলে একবার একটি প্রোটিন গঠিত হবে !!!!একবার চিন্তা করে দেখুন , মানব দেহের একটি কোষে বেশ কিছু প্রোটিন আছে। আবার মানব দেহে কোটী কোটি কোষ আছে । তাহলে সব কোশ ের প্রোটিন একসাথে গঠিত হওয়ার সম্ভাবনা হবে "০"!!! এখন, অনেকে বলতে পারেন , "প্রোটিন এতো সহজে সাথে সাথে উৎপন্ন হয় নি, 'হাজার হাজার বছর ধরে , আস্তে আস্তে' একটি একটি করে এমিনো এসিড যুক্ত হয়ে প্রোটিন উৎপন্ন হয়েছে।" আসলে আমি এখানে সময় নিয়ে কথা বলছি না , সম্ভাব্যতা ও সেটা নিয়ে কিছুই বলছে না। এখানে বলা হচ্ছে , প্রোটিন কি কাকতালীয় ভাবে গঠিত হয়েছে নাকি না। সেটা হতে এক সেকেন্ড লাগুক অথবা এক হাজার বছর । এখন এটা স্পষ্ট যে একটি প্রোটিন অণু কাকতালীয় ভাবে উৎপন্ন হওয়া অসম্ভব। তার মানে অবশ্যই একজন স্রষ্টা আছেন যিনি সব কিছু সৃষ্টি করেছেন । That means No EVOLUTION, and there is a GOD. । links: 1. http://en.wikipedia.org/wiki/Amino_acid 2 http://en.wikipedia.org/wiki/Protein এই লিঙ্কগুলো আমার সরাসরি কাজে লেগেছে। http://en.wikipedia.org/wiki/Chromosomehttp://en.wikipedia.org/wiki/Nucleotideshttp://en.wikipedia.org/wiki/Chromatin http://en.wikipedia.org/wiki/Histone http://en.wikipedia.org/wiki/Mitochondrion http://en.wikipedia.org/wiki/Protein#Biochemistry http://en.wikipedia.org/wiki/Peptide_sequencehttp://en.wikipedia.org/wiki/Proteinogenic_amino_acid http://en.wikipedia.org/wiki/Universal_genetic_code এগুলো সরাসরি লাগে নি , তবে আপনারা আরো জানতে চাইলে দেখতে পারেন ।
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ
Loading interface...
জনপ্রিয় টপিকসমূহ
Loading interface...