চারখানা বড় আসমানী কিতাব কোন কোন ভাষায় নাযিল হয়?
1 টি উত্তর
হযরত মূসা (আঃ) এর সম্প্রদায়ের মাতৃভাষা ছিল ইবরাণী বা হিব্র“। তাই এ ভাষায় ‘তাওরাত’ নাজিল হয়। হযরত ঈসা (আঃ) এর জাতির মাতৃভাষা ‘সুবিয়ানি’ তাই এ ভাষায় তাঁর প্রতি ‘ইঞ্জিল’ অবতীর্ণ হয়। হযরত দাউদ (আঃ) এর গোত্রের মাতৃভাষা ছিল ইউনানী, তাই ‘যাবুর’ ইউনানী বা আরামাইক ভাষায় অবতীর্ণ হয়। বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (দঃ) এর উম্মতের মাতৃভাষা ছিল আরবি, তাই মহাগ্রন্থ আল-কুরআন তাঁর মাতৃভাষা আরবিতে নাজিল হয়।