একটি মেয়ে একটি ছেলের কাছে সব চেয়ে কী কী বেশী প্রতাশা করে থাকে এবং কেন ?

একটি মেয়ে একটি ছেলের কাছে সব চেয়ে কী কী বেশী প্রতাশা করে থাকে এবং কেন ?
বিভাগ: 
Share

2 টি উত্তর

কথায় বলে মেয়েদের মন বড় জটিল। মিথ্যে নয়, ষোলো আনা খাঁটি। তবে আসুন জেনে নেওয়া যাক একটি মেয়ের মন কি চায় একটি ছেলের কাছ থেকে।


প্রেমের ক্ষেত্রে বেশিরভাগ নারীর মত যে পুরুষ সঙ্গীটিই প্রথমে প্রেমের কথা জানাবেন ৷ অনেকে আবার পুরুষের প্রেম নিবেদনকেই নিয়ম বলে ভাবেন ৷ সাধারনত যেকোনও সিনেমাতেও প্রেমের বিষয়ে অগ্রণী ভূমিকায় থাকেন পুরুষই ৷ নায়িকা হিরোকে প্রোপোজ করছেন এমন খুব কম ছবিতই দেখা গিয়েছেন ৷ কিন্তু প্রশ্নটা একটু আলাদা ৷ প্রেমের ক্ষেত্রে মহিলারা প্রথমে তাদের মনের কথা মনের মানুষটিকে জানান না কেন? কি কারণে মনে মনে ভালবাসলেও মনের কথা মুখে আনতে এত দ্বিধা নারীর মনে? আসলে প্রেম নিবেদন করার প্রাকাল্লে মেয়েদের মনে এমন অনেক প্রশ্ন ঘুরপাক খেতে শুরু করে যে মেয়েরা চাইলেও প্রথম প্রেম নিবেদন করতে পারেননা ৷

প্রেমেরনিবেদন করার আগে রিজেক্ট হওয়ার ভয়টা সক্লেরই থাকে ৷ কিন্তু মেয়েদের কাছে সেটা অন্য ধরণের ৷ আসলে কোনও ছেলের কাছে রিজেক্ট হওয়ার বিষয়টা মেয়েরা মেনে নিতে পারেন না ৷ তাই ছেলেটি যদি না বলে দেয় এই ভয়েই মেয়েরা আর প্রেম নিবেদনের দিকে এগোন না ৷

একটা সকলে সকলেই জানেন, তে হল মেয়েদের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বি মেয়েরাই হয় ৷ তাই যাকে প্রেম নিবেদন করতে যাচ্ছি তার যদি প্রেমিকা থাকে, এই ভয়েই মেয়েরা প্রেম নিবেদনের সাহস পাননা ৷ কারণ এক্ষেত্রে সকলে বলতে পারেন, ইচ্ছে করেই মেয়েটি ঘর ভাঙতে চাইছেন ৷ অন্যদিকে ছেলেটির প্রেমিকার কানে একথা গেলে যুদ্ধ বেধে যাবে ৷ এই ভয়েই অনেক মেয়ে ভালবাসার কথা পুরষ সঙ্গীকে বলতে চাননা ৷

প্রেমের ক্ষেত্রে অন্তত মেয়েদের চাইতে ছেলেদের আত্মবিশ্বাস অনেক বেশি থাকে ৷ ছেলেদের আর কিছু থাকুক বা না থাকুক কেবলমাত্র আত্মবিশ্বাসে ভর করেই একটি ছেলে একটি মেয়েকে প্রেম নিবেদন করতে পারে ৷ কিন্তু মেয়েরা আত্মবিশ্বাসের অভাবেই এবিষয়ে মার খান ৷

বর্তমান প্রজন্মের মেয়েরা একটু বেশিই স্বাধীনচেতা ৷ সেই কারণে তারা ভাবেন, প্রেম শুরু করার পর যদি তার স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ শুরু হয় ৷ একথা না মানলেও একটি পুরুষই নারীকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করেন ৷ এই কারণে প্রেম নিবেদনেও পিছিয়ে আসেন মেয়েরা ৷

ছেলেরা কোনও মেয়েকে প্রোপোজ করছেন এটা যতটা স্বাভাবিক একজন মেয়ে কোনও ছেলেকে প্রপোজ করবে সেটা আমাদের দেশে এখনও ততটা স্বাভাবিক নয় ৷ সেকারণেই যেকোনও মেয়ে ভাবে, প্রপোজ করলে ছেলেটি যদি তাকে বেহায়া ভাবে?

অতীত সকলের জীবনেই বর্তমান ৷ কিন্তু অতীতের পিছুটান অত্যন্ত বেদনাদায়ক ৷ দুজনের ব্রেকআপ হওয়ায় পরেও অনেকে নতুন সম্পর্কে জড়াতে ভয় পান ৷ অনেক মেয়েই ভাবেন নতুন কাউকে প্রপোজ করতে গেলে কোনও ভাবে যদি তার প্রাক্তন প্রেমিক নতুন প্রেমিকের বন্ধু হয়? এই কারণেই অনেকে প্রোপোজের দিক থেকে পিছিয়ে আসেন ৷

একজন আদর্শ নারী তার জীবন সঙ্গীনির কাছে বিশেষ কয়েকটা জিনিস চায়- ১. জীবন সঙ্গী সবসময় তাকে ভালোবাসুক। ২. জীবন সঙ্গী ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন হোক। ৩. সবার সাথে মেশার যোগ্যতা।(যেটা অনেকেরই নেই) ৪. শিক্ষার দিক থেকে আগানো।(এটা নিয়ে গর্ভবোধ করতে পছন্দ করে) ৫. আর্থিক সচ্চলতা।(জীবনে চলার জন্য টাকাটা বেশ জরুরি।প্রিয়জনকে ভালোবাসার পাশাপাশি তার চাহিদা পূরন করাই প্রকৃত ভালোবাসা।) ৬. মুসলিম মেয়ে চায়, তার জীবন সঙ্গীর ধর্মীও দৃষ্টিভঙ্গি ভালো থাকুক। (এই বিষয়গুলোই ৮৫% মেয়েদের কাম্য)

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ