খাবারের প্রতি রুচি বারানোর জন্য বাজারে বিভিন্ন মেডেসিন পাওয়া যায়। আমার প্রশ্ন হচ্ছে যে খাবারের প্রতি রুচি কমানোর জন্য কোনো পদ্ধতি আছে কি?
2 টি উত্তর
→খাওয়ার রুচি যেভাবে কমাবেন: আসলে খাওয়ার রুচি কমানো খুবই জটিল একটি প্রক্রিয়া। কোনোভাবেইএকে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয় না কারণ এর সাথে যুক্ত থাকে খাওয়ার ইচ্ছা। তারপরও কিছু চেষ্টা করে যেতে পারেন। - আপনি যদি খাওয়ার রুচি কমাতে চান তাহলে সর্বাগ্রে এবং গুরুত্ব সহকারে যে কাজটি করতে হবে তা হল নিজের মনকে বা ইচ্ছাকে নিয়ন্ত্রণ করা। এই অসাধ্য কাজটি করতে পারলেই আপনি নিঃসন্দেহে খাওয়ার রুচি কমিয়ে আনতে পারবেন। - ভারী খাবার থেকে বিরত থাকুন। - পানীয় খাবার এর পরিবর্তে বেশি করে খেতে পারেন। - কখনই ক্ষুধার্ত অবস্থায় থাকবেন না। অল্প অল্প করে সবসময় খেতে পারেন। এতে করে অন্যান্য শারীরিক সমস্যা দেখা দিবে না। - কোনো ধরনের যেমন ধূমপান বা অ্যালকোহলিক আসক্তি থাকলে তা বাদ দিন। তাহলে আপনার খাওয়ার রুচি কমে নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। - সবশেষে ডাক্তারি পরামর্শ নিতে পারেন। সূত্র : lifescript.com
সবাই রুচি বাড়ানো নিয়ে বলে, আর আপনি কমানোর জন্য বলছেন, তবুও বলি উপায়আছে, তবে একটা না, বেশ কয়েকটি। মিষ্টি স্বাদের ফল রুচিবর্ধক | তাই মিষ্টি স্বাদের ফল এড়িয়ে চলুন | আমলকী, কিশমিশ, মিষ্টি, আচার, সালাদ, পেঁয়াজ ইত্যাদি রুচি বর্ধক খাবার, এদের এড়িয়ে চলুন | প্রথমে পানি ও পানিজাতীয় খাবার খান তারপর মূল খাবার | লবণ মুখের রুচি বাড়ায় তাই খাওয়ার সময় কাঁচা লবণ বাদ দিন | খাবারে বেশী গোলমরিচ যোগ করুন, গোলমরিচ দারুন ভাবে রুচি কমায় | জিরার থাইমোকুইনান হজমে সাহায্য করে, রুচি বাড়ায় | তাই জিরা বাদ দিন | এবং সহজপাচ্য ও মুখরোচক খাবার, ফল বিশেষত টক ফল যেমন আমড়া, বরই, আচার, লেবু ইত্যাদি খেলে মুখে রুচি বাড়ে তাই এগুলা পরিহার করে চলুন ব্যস কাজ হয়ে যাবে আশা করি l ধন্যবাদ