2 Answers

 (2121 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

নারীর গর্ভ থেকে যখনই রক্ত প্রবাহিত হবে তখনই তা ঋতু বা হায়েয হিসেবে গণ্য হবে। চাই সেই ঋতুর সময় পূর্বের ঋতুর সময়ের চাইতে দীর্ঘ হোক বা কম হোক। ঋতু থেকে পবিত্র হওয়ার পাঁচ দিন বা ছয় দিন বা দশ দিন পর পুনরায় স্রাব দেখা গেছে, তবে সে পবিত্র হওয়ার অপেক্ষা করবে এবং নামায পড়বে না। কেননা এটা ঋতু। সর্বাবস্থায় এরূপই করবে। পবিত্র হওয়ার পর আবার যদি ঋতু দেখা যায়, তবে অবশ্যই নামায-রোযা থেকে বিরত থাকবে। কিন্তু স্রাব যদি চলমান থাকে- সামান্য সময় ব্যতীত কখনই বন্ধ না হয়, তবে তা ইসে-হাযা বা অসুস্থতা বলে গণ্য হবে। তখন তার নির্দিষ্ট দিন সমূহ শুধু ছালাত-ছিয়াম থেকে বিরত থাকবে। বিষয়/প্রশ্নঃ (১৭৬) গ্রন্থের নামঃ ফাতাওয়া আরকানুল ইসলাম বিভাগের নামঃ ঈমান লেখকের নামঃ শাইখ মুহাম্মাদ বিন সালিহ আল-উসাইমীন (রহঃ) অনুবাদ করেছেনঃ আবদুল্লাহ শাহেদ আল মাদানি - আবদুল্লাহ আল কাফী
 (375 পয়েন্ট) 

উত্তরের সময় 

সঠিক মাসয়ালা হলো আপনার ওই তিন দিন ইস্তেহাযা হয়েছে অর্থাৎ রোগ কারন দুই হায়েযের মাঝে কমপক্ষে১৫ দিন ব্যবধান থাকতে হয় এটাই সঠিক মাসয়ালা যেহেতু আপনার ৯ দিন পরে হয়েছে এবং এটা ১৫ দিনের কম ব্যবধান তাই এটা হায়েয হতে পারেনা সুতরাংওই তিন দিনের নামাজ কাযা করতে হবে   
সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...