অনলাইন শপিং আজকাল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। বিশেষ করে গত বছরে, অর্থাৎ মহামারী চলাকালীন অনলাইন শপিং অনেক বেড়েছে। এখনই বিভিন্ন বাজার বা মলে যাওয়া নিরাপদ নয়। তাই সবাই অনলাইনে শপিংয়ের উপর নির্ভরতা বেড়েছে।

মাত্র একটি ক্লিকের সাহায্যে আপনার পছন্দের পণ্যটি বাড়ির সামনে উপস্থিত হবে। এত বড় সুযোগ থাকতে শপিংমলে কেনাকাটা করার কোন মানেই হয় না । ঈদ আসছে, সব মিলিয়ে মনে হচ্ছে অনলাইন শপিংয়ের উন্মাদনা ইতিমধ্যে বেড়েই চলেছে।

তবে করোণার এই সময়ে অনলাইনে কেনাকাটা করার সময় খুব সতর্ক হওয়া জরুরি। অন্যথায়, আপনি যতই সতর্ক হন না কেন, করোনার সংক্রমণ দেখা দিতে পারে। কারণ আপনি যদি কোনও পণ্য অনলাইনে অর্ডার করেন তবে তা আপনাকেই ডেলিভারি করা হবে।

ডেলিভারি ম্যান দিয়ে শুরু করে, আপনি যে পণ্যটি কিনেছেন তাতে করোনার জীবাণুও থাকতে পারে। সুতরাং, এখনই কিছু বিশেষ বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। চলুন এর করনীয় সম্পর্কে জেনে আসা যাক ।

>> ডেলিভারি ম্যান থেকে পণ্য সংগ্রহের আগে আপনি একটি মাস্ক এবং গ্লোভস পরেছেন তা নিশ্চিত করুন। তারপরে তার কাছ থেকে পণ্য সংগ্রহ করুন। ডেলিভারি ম্যান এর কাছে অনেওক্ষন থাকবেন না।


Full:https://bn.ahasantech.com/2021/06/coronatime-onlineshop.html




>> আপনি যদি ইতিমধ্যে পেমেন্ট করে থাকেন, তবে ডেলিভারি ম্যানকে আপনার বাড়িতে পণ্যটি রেখে চলে যেতে বলুন। কিছুক্ষণ পরে, দরজাটি খুলুন এবং সাবধানে পণ্যটি তুলুন।

>> পারলে নগদ লেনদেন এড়িয়ে চলুন। আপনার যদি সুযোগ থাকে তবে আপনি মোবাইল ব্যাংকিং(বিকাশ,নগদ,রকেট) পেমেন্ট করতে পারেন। এবং যদি আপনাকে নগদ দিতে হয় তবে পরিশোধ করুন। তার কাছ থেকে কোনও টাকা ফেরত নেওয়া উচিত নয়। এই সময়ে নগদ লেনদেন যতটা না করা সম্ভব ততই ভালো । করোনা ভাইরাসও টাকার মাধ্যমে ছড়িয়ে যেতে পারে।

>> বাইরে পণ্য প্যাকেজ খুলুন। করোনভাইরাস দীর্ঘ সময়ের জন্য প্লাস্টিকে বেঁচে থাকতে পারে। তাই আপনার পণ্যের প্যাকেজিং নির্বিশেষে এটিকে বাড়ি থেকে বাইরে নিয়ে যান। একেবারে ডাস্টবিনে ফেলে দিন।

anon
প্রকাশের সময়
bissoy.com এ মানসম্মত উত্তর দিয়ে জিতে নিন উপহার। উপহারের অর্থমূল্য নিয়ে নিন মোবাইল ব্যাংকিং এ। বিস্তারিত দেখুন এখানে
Download Bissoy Answers App Bissoy Answers