বিজ্ঞাপন

দেশে দেশে ইসলামের পূনর্জাগরণ ইসলামের গোড়াপত্তন

পর্ব:১
"নিশ্চয় আল্লাহর নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন বা জীবন ব্যাবস্থা ইসলাম।"
(সূরা আলে ইমরান-১৯)
ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবন ব্যাবস্থা। ইসলাম সকল যুগের সকল মানুষের পথনির্দেশক। ইসলামে সাদা-কালো,রাজা-প্রজা,ধনী-গরীব সকল মানুষই সমান।ইসলাম সকল মানুষই সমান।ইসলাম প্রতিষ্ঠা করার জন্য আল্লাহ তায়ালা যুগে যুগে অসংখ্য নবী-রাসূল প্রেরণ করেছেন।হযরত আদম (আ) থেকে সর্বশেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা) পর্যন্ত অসংখ্য নবী-রাসূল পরবর্তী পর্যায়ে সাহাবী-আজমাঈন,তাবেঈন-তাবে তাবেঈন,আওলিয়ায়ে কিরাম ও ইসলামী চিন্তাবিদগণ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ইসলামের গোড়াপত্তন করেন।
★যুগে যুগে ইসলামি আন্দোলন :-
হযরত নূহ (আ) আল্লাহর প্রত্যাদেশ প্রাপ্ত ছিলেন তিনি সুদীর্ঘ সাড়ে নয়শ বছর তার জাতির কাছে দ্বীনের দাওয়াত দিয়েছিলেন।তার আহ্বানে অল্প সংখক লোক ঈমান আনে।হযরত ইব্রাহীম (আ) এর সম্প্রদায় ও রাজা নমরূদ ছিল মূর্তিপূজক। এমনি পরিবেশ পরিস্থিতিতে হযরত ইব্রাহীম (আ) নবুওয়াত লাভ করেন এবং তার জাতির লোক জনকে তাওহীদ অনুসরণের আহ্বান জানান।হযরত ইয়াকুব (আ) এর বংশধর বনি ইসরাইল জাতি কয়েক শতাব্দী যাবৎ চরম  লাঞ্ছিত ও শোষিত হয়ে আসছিল।হযরত মূসা (আ) তাওরাত কিতাবসহ প্রেরিত হয়ে নবুওয়তের দায়িত্ব পালন করেন এবং বনি ইসরাইল জাতিকে ফিরাউনের নির্যাতন থেকে মুক্ত করেন।হযরত দাউদ (আ) যাবুর কিতাবের অমিয় বাণী উম্মতের মাঝে প্রচার করেন।ইন্জিল কিতাব ঈসা (আ) এর উপর নাজিল হয় এবং তিনি এই কিতাবের আলোকে সমাজ গঠনে আত্মনিয়োগ করেন।
★ইসলামের সূচনা:-
ইসলামের সূচনা যখন থেকে ইসলামী আন্দোলনের  সূচনাও ঠিক তখনই।হযরত আদম (আ) থেকে মানব সভ্যতার শুরু এবং প্রথম নবী ও প্রথম মানব আদম (আ) থেকেই ইসলামের সূচনা হয়।কাজেই মানব জাতির ইতিহাস যত প্রাচিন ইসলামী আন্দোলনেরর ইতিহাসও ততোটা প্রাচীন।
★বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সা) এর ইসলামি আন্দোলন:-
রাসূল (সা) এর পায়গাম ছিল দুনিয়ারয় এক বিরাট বিপ্লব ও সংষ্কারমূলক আন্দোলন। উল্লেখ্য রাসূল (সা) জন্ম থেলে শুরু করে তার পুরো জীবনটাই অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়।বাল্যকাল থেকেই তার মধ্যে সমাজ সংষ্কারের উদ্দীপনা ছিল।এ কারণে মাত্র ১৫ বছর বয়সে তিনি "হিলফুল ফুযুল" নামক সমাজ সেবা সংঘ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।
★রাসূল (সা) এর আন্দোলনের  চার পর্যায়:-
১ম পর্যায়:অতি গোপনে দাওয়াত।
২য় পর্যায়:নবুওয়াতের প্রকাশ্য ঘোষণা।
৩য় পর্যায়:রাসূল (সা) এবং তার সাহাবাদের ওপর যুলুম-নির্যাতন।
৪র্থ পর্যায়:মদিনায় হিজরত,মদিনায় ইসলামি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা,ব্যাপকহারে জনগণের ইসলাম গ্রহণ ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে অগ্রাভিজান।


পর্ব:১
"নিশ্চয় আল্লাহর নিকট একমাত্র মনোনীত দ্বীন বা জীবন ব্যাবস্থা ইসলাম।"
(সূরা আলে ইমরান-১৯)
ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবন ব্যাবস্থা। ইসলাম সকল যুগের সকল মানুষের পথনির্দেশক। ইসলামে সাদা-কালো,রাজা-প্রজা,ধনী-গরীব সকল মানুষই সমান।ইসলাম সকল মানুষই সমান।ইসলাম প্রতিষ্ঠা করার জন্য আল্লাহ তায়ালা যুগে যুগে অসংখ্য নবী-রাসূল প্রেরণ করেছেন।হযরত আদম (আ) থেকে সর্বশেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা) পর্যন্ত অসংখ্য নবী-রাসূল পরবর্তী পর্যায়ে সাহাবী-আজমাঈন,তাবেঈন-তাবে তাবেঈন,আওলিয়ায়ে কিরাম ও ইসলামী চিন্তাবিদগণ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ইসলামের গোড়াপত্তন করেন।
★যুগে যুগে ইসলামি আন্দোলন :-
হযরত নূহ (আ) আল্লাহর প্রত্যাদেশ প্রাপ্ত ছিলেন তিনি সুদীর্ঘ সাড়ে নয়শ বছর তার জাতির কাছে দ্বীনের দাওয়াত দিয়েছিলেন।তার আহ্বানে অল্প সংখক লোক ঈমান আনে।হযরত ইব্রাহীম (আ) এর সম্প্রদায় ও রাজা নমরূদ ছিল মূর্তিপূজক। এমনি পরিবেশ পরিস্থিতিতে হযরত ইব্রাহীম (আ) নবুওয়াত লাভ করেন এবং তার জাতির লোক জনকে তাওহীদ অনুসরণের আহ্বান জানান।হযরত ইয়াকুব (আ) এর বংশধর বনি ইসরাইল জাতি কয়েক শতাব্দী যাবৎ চরম  লাঞ্ছিত ও শোষিত হয়ে আসছিল।হযরত মূসা (আ) তাওরাত কিতাবসহ প্রেরিত হয়ে নবুওয়তের দায়িত্ব পালন করেন এবং বনি ইসরাইল জাতিকে ফিরাউনের নির্যাতন থেকে মুক্ত করেন।হযরত দাউদ (আ) যাবুর কিতাবের অমিয় বাণী উম্মতের মাঝে প্রচার করেন।ইন্জিল কিতাব ঈসা (আ) এর উপর নাজিল হয় এবং তিনি এই কিতাবের আলোকে সমাজ গঠনে আত্মনিয়োগ করেন।
★ইসলামের সূচনা:-
ইসলামের সূচনা যখন থেকে ইসলামী আন্দোলনের  সূচনাও ঠিক তখনই।হযরত আদম (আ) থেকে মানব সভ্যতার শুরু এবং প্রথম নবী ও প্রথম মানব আদম (আ) থেকেই ইসলামের সূচনা হয়।কাজেই মানব জাতির ইতিহাস যত প্রাচিন ইসলামী আন্দোলনেরর ইতিহাসও ততোটা প্রাচীন।
★বিশ্ব নবী হযরত মুহাম্মদ (সা) এর ইসলামি আন্দোলন:-
রাসূল (সা) এর পায়গাম ছিল দুনিয়ারয় এক বিরাট বিপ্লব ও সংষ্কারমূলক আন্দোলন। উল্লেখ্য রাসূল (সা) জন্ম থেলে শুরু করে তার পুরো জীবনটাই অনুকরণীয় ও অনুসরণীয়।বাল্যকাল থেকেই তার মধ্যে সমাজ সংষ্কারের উদ্দীপনা ছিল।এ কারণে মাত্র ১৫ বছর বয়সে তিনি "হিলফুল ফুযুল" নামক সমাজ সেবা সংঘ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন।
★রাসূল (সা) এর আন্দোলনের  চার পর্যায়:-
১ম পর্যায়:অতি গোপনে দাওয়াত।
২য় পর্যায়:নবুওয়াতের প্রকাশ্য ঘোষণা।
৩য় পর্যায়:রাসূল (সা) এবং তার সাহাবাদের ওপর যুলুম-নির্যাতন।
৪র্থ পর্যায়:মদিনায় হিজরত,মদিনায় ইসলামি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা,ব্যাপকহারে জনগণের ইসলাম গ্রহণ ও সাম্রাজ্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে অগ্রাভিজান।


জিজ্ঞাসা করেছেন
বিজ্ঞাপন
bissoy.com এ মানসম্মত উত্তর দিয়ে জিতে নিন উপহার। উপহারের অর্থমূল্য নিয়ে নিন মোবাইল ব্যাংকিং এ। বিস্তারিত দেখুন এখানে