যদি কোনো ছেলে কোনো বিবাহিত মেয়েকে বিয়ে করতে চায়, তখন মেয়ে কিভাবে আগের স্বামি কে ডিবোর্ছ দিবে এবং ডির্বোজ না দিয়ে কিভাবে ২য় বিয়ে করতে পারবে কি না? মেয়ের ১ম স্বামি যদি ডির্বোজ দিতে না চায় তাহলে মেয়ে কিভাবে ডির্বোজ দিয়ে ২য় বিয়ে করবে? আইন দ্বারা বোঝিয়ে বলবেন কি?

যদি কোনো ছেলে কোনো বিবাহিত মেয়েকে বিয়ে করতে চায়, তখন মেয়ে কিভাবে আগের স্বামি কে ডিবোর্ছ দিবে এবং ডির্বোজ না দিয়ে কিভাবে ২য় বিয়ে করতে পারবে কি না? মেয়ের ১ম স্বামি যদি ডির্বোজ দিতে না চায় তাহলে মেয়ে কিভাবে ডির্বোজ দিয়ে ২য় বিয়ে করবে? আইন দ্বারা বোঝিয়ে বলবেন কি?
বিভাগ: 

3 টি উত্তর

যদি কোন ছেলে বিবাহিত মেয়েকে বিয়ে করতে চাই তাহলে মেয়েকে প্রথমত স্বামীকে ডিভোর্স দিতে হবে। যদি তার স্বামী তাকে ডিভোর্স দিতে না চাই তাহলে কোর্টের মাধ্যমে ডিভোর্স দিতে হবে। তারপর তাকে দ্বিতীয় বিবাহ করতে হবে।
১।তার পূর্বেকার স্বামীর থেকে তালাক নিয়ে আসতে হবে/অথবা স্বামী যদি স্ত্রী কে তালাকের পাওয়ার দিয়ে দেয় তাহলে তার ঐ স্বামী কে তালাক দিয়ে আসতে হবে। ২। ইদ্দত পালণ করতে হবে। (ইদ্দত হলো ৩হায়েজ অর্থাৎ ৩ মাসিক পার হওয়া পর্যন্ত সে তার ঐ স্বামীর বাড়িতে থেকে ইদ্দত পালন করবে। এই ইদ্দত পালন করার সময় তার ঐ স্বামীর সাথে মিলন করতে পারবেনা। ইদ্দত পালন করা শেষ হয়ে গেলে এবার সে মুক্ত এবার সে তার পূর্ব প্রেমিক/অন্য কোন পুরুষের সাথে বিবাহহ বসতে পারে। এতে কোন বাধা নেই। তবে মনে রাখতে হবে তালাক একটি ঘৃণিত জায়েজ কাজ। আল্লাহ তায়ালা অপছন্দ করা স্বত্বে ও এই আইন দিয়েছেন। বিবাহ বিচ্ছেদ খুব খারাপ কাজ
১ম স্বামী যদি তাকে বিয়ে করার সময় রেজিস্ট্রেশন ফরমে  'মেয়ে নিজে তালাক নিতে পারবে ' এই মর্মে  সাক্ষর করে থাকে, বা স্বামি যদি পরবর্তিতে তাকে তালাক নেয়ার অনুমতি দিয়ে থাকে  তাহলেই কেবল মেয়ে আলাদা হতে পারবে, ইদ্দত পালনের পর নতুন বিয়ে করতে পারবে , নতুবা স্বামী তালাক না দেয়া পর্যন্ত  আলাদা হতে পারবে না , যদিও বর্তমানে কোর্টের মাধ্যমে তালাক নেয়া হয় , তবে স্বামী সাক্ষর না করলে, বা স্বামি তালাক না দিলে ততক্ষন পর্যন্ত তালাক হবে না। 

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ