সকালে ব্যায়াম করার জন্য কোন ধরনের পোষাক ভালো হবে? কিছুদিন পর সেনাবাহিনীতে ট্রেনিংএ যোগ দিব এখন সকালে কি খেলে শক্তি বাড়বে আর সকালে জগিং করতে কি ধরনের পোষাক ভালো হবে। তাছাড়া আমিকি এখন কোনো ধরনের ভিটামিন, জিংক,আয়রন ট্যাবলেট খাবো নাকি??
বিভাগ: 
উত্তর বা মন্তব্য প্রদান করতে দয়া করে লগইন কিংবা নিবন্ধন করুন।

4 টি উত্তর

হুম খেতে পারেন এবং আপনি সকালে জুতা জারসি এবং টাওজার পড়তে পারেন..
উত্তর বা মন্তব্য প্রদান করতে দয়া করে লগইন কিংবা নিবন্ধন করুন।

আপনি কোনো প্রকারের ওষুধ সেবন না করে প্রচুর পরিমানে ফলমুল এবং শাক-সবজি খান.........অার ---খেলোয়াড়রা যেসব পোশাক পরিধান করেন,  সকালে ব্যায়াম করার জন্য আপনি সেগুলো ইউজ করতে পারেন।

উত্তর বা মন্তব্য প্রদান করতে দয়া করে লগইন কিংবা নিবন্ধন করুন।
সকালে জগিং করার জন্য হালকা কাপর মানে গেনজি এবং ট্রাউজার পরে ব্যায়াম করাই উত্তম এতে করে আপনি তারাতারি হাপিয়ে উঠবেন না।দীর্ঘ সময় ধরে জগিং করতে পারবেন।ট্যাবলেট না খেয়ে সুষম পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার খান।
উত্তর বা মন্তব্য প্রদান করতে দয়া করে লগইন কিংবা নিবন্ধন করুন।
ব্যায়াম করুন জেনে-শুনেঃ ব্যায়াম করুন জেনে-শুনে – সব কাজেরই কিছু নিয়ম-কানুন রয়েছে। সেগুলো মেনে চললে বিপত্তি ঘটার সম্ভাবনা থাকে খুবই কম। আবার সামান্য অনিয়মে ঘটে যেতে পারে দুর্ঘটনা। শরীর ফিট রাখার জন্য নিয়মিত ব্যায়াম একটি ভালো অভ্যাস। ব্যায়ামেরও রয়েছে কিছু নিয়মকানুন কিন্তু আমরা অনেকেই সেগুলো ঠিকভাবে জানি না। আবার জানলেও তা মানি না। কিন্তু নিজেকে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখতে হলে ব্যায়াম করার নিয়মগুলো ভালোভাবে জানতে হবে এবং মেনে চলারও চেষ্টা করতে হবে। এখানে বলা হলো ব্যায়াম শুরুর এমন কিছু কথা, যা জানাটা জরুরি। ১. ভরা পেটে ব্যায়াম একদমই করবেন না। তবে খুব বেশি খিদে পেলে তো কষ্ট হবেই। তাই শুরুর আগে দুটি টোস্ট বা একটা আপেলের মতো হালকা কিছু খেতে পারেন। ২. খুব টাইট বা শক্ত পোশাক পরে ব্যায়াম করা ঠিক না। টাইট পোশাক পরলে আপনার করা ভঙ্গিমা কোথাও বাধা পেতে পারে। এর ফলে ব্যায়ামের পুরো সুফল পাবেন না। ৩. জোরে হাঁটা, জগিং বা পায়ের ওপর চাপ পড়বে এমন ভারী ব্যায়াম করার আগে অবশ্যই ভালো ট্রেনিং শু পরবেন। তা না হলে পায়ের সন্ধি বা কোষগুলোতে চাপ পড়ে তো ব্যাথা করবেই, সাথে সাথে পিঠেও ব্যাথা হতে পারে। ৪. ব্যায়াম করার সময় নিঃশ্বাস স্বাভাবিকভাবে নেওয়ার চেষ্টা করবেন। কখনও খুব কষ্ট করে নিঃশ্বাস নেবেন না। ভালোভাবে নিঃশ্বাস যেন নিতে পারেন এমন করেই ব্যায়াম করবেন। তবে আসন বা যোগব্যায়ামের সময় নিঃশ্বাস নেওয়ার রীতি অবশ্যই আলাদা। এক্ষেত্রে পুরোপুরি আসনের নিয়ম মানতে হবে।
উত্তর বা মন্তব্য প্রদান করতে দয়া করে লগইন কিংবা নিবন্ধন করুন।

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ