একজন ভালো ফ্রিলান্সার হওয়ার উপায় কি?

আমি বর্তমানে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিচ্ছি, প্রশিক্ষণ সেন্টারের নাম চৌধুরী কম্পিউটার সিটি কিন্তু ঠিক কি বিষয় প্রশিক্ষণ গ্রহন করবো সে বিষয় সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছি, আমি একজন বেকার ছেলে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে বসে রয়েছি, আমার ইচ্ছে আমি কম্পিউটার শিখে একজন ফ্রিলান্সার হবো, যাতে নিজের ও পরিবারের জন্য কিছু আর্নিং করতে পারি, আমার ঠিক কোন বিষয় প্রশিক্ষণ গ্রহন করলে সুবিধা হবে। সকলের সঠিক মতামত চাই।

আমি বর্তমানে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ নিচ্ছি, প্রশিক্ষণ সেন্টারের নাম চৌধুরী কম্পিউটার সিটি কিন্তু ঠিক কি বিষয় প্রশিক্ষণ গ্রহন করবো সে বিষয় সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছি, আমি একজন বেকার ছেলে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে বসে রয়েছি, আমার ইচ্ছে আমি কম্পিউটার শিখে একজন ফ্রিলান্সার হবো, যাতে নিজের ও পরিবারের জন্য কিছু আর্নিং করতে পারি, আমার ঠিক কোন বিষয় প্রশিক্ষণ গ্রহন করলে সুবিধা হবে। সকলের সঠিক মতামত চাই।

জিজ্ঞাসা করেছেন
বিভাগ:
1 টি উত্তর

শুধু ফ্রিল্যান্সার হলেই কিন্তু চলবে না। আপনি ফ্রিল্যান্সার হলেন, কিন্তু কোন ক্লায়েন্ট আপনাকে কাজ দিচ্ছে না- এমনটা হলে ফ্রিল্যান্সিং আপনার জন্যে না। ভালো ফ্রিল্যান্সার হতে হলে আপনাকে বেশকিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। যেমন, মার্কেটপ্লেসে আপনি যখন বিড করবেন, তখন ক্লায়েন্ট আকৃষ্ট হবে আপনার প্রোফাইল দেখে। সেজন্যে প্রোফাইল হতে হবে চমৎকার, যাতে ক্লায়েন্ট দেখেই আগ্রহ প্রকাশ করে কাজ দিতে। বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস ঘুরে, সেখানে ক্লায়েন্টদের চাহিদা বুঝে প্রোফাইল তৈরি করা উচিৎ।


দারুণ একটা প্রোফাইল বানাতে হলে কয়েকটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে। যেমনঃ


১। যেকোন একটা বিষয়ে এক্সপার্ট হতে হবে। বাংলাদেশে আউটসোর্সিং কোচিং সেন্টার আছে, সেখান থেকে এ বিষয়ে শেখা যায়। তাছাড়া নিজে নিজে হাতে কলমে চেষ্টা করাটা খুবই দরকারি। ভিডিও টিউটোরিয়াল দেখেও অভিজ্ঞ হবার পথে এগিয়ে যাওয়া যায়।


২। আপনি যে বিষয়ে এক্সপার্ট হয়েছেন, সে বিষয়টি নিয়ে দুই একটা কাজ করে রাখতে হবে। যেমন, আপনি যদি লেখালেখিতে ভালো হন, তাহলে আপনার লেখা কোন একটা আর্টিকেল প্রোফাইলে যোগ করে দিতে হবে।


৩। oDesk.com, Freelancer.com এর মতো জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেসে ফ্রিল্যান্সিং স্কিল মেজারমেন্ট নামে একটা পরীক্ষা দেয়া যায়। এগুলোতে অংশগ্রহণ করলে সেটি প্রোফাইলের জন্যে মন্দ হবে না কিন্ত!


৪। ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস ছাড়াও আপনার প্রোফাইল আর নৈপুন্য বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ব্লগ আর ফোরামে শেয়ার করতে পারেন। এতে প্রোফাইলের পরিচিতি বাড়বে, ফ্রিল্যান্সিংয়ে যা বেশ গুরুত্বপূর্ণ।


ক্লায়েন্ট পাবার সবচেয়ে সহজ উপায় হলো কারো রেফারেন্সে কাজ পাওয়া।  চমৎকার একটা প্রোফাইল প্রস্তুত করে ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করে থাকতে হবে প্রথম কাজ পাবার জন্যে। এখানেই ধৈর্যের আসল পরীক্ষা শুরু। অনেক অপেক্ষার পর একটা কাজ হাতে পেলে সেটা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নিখুতভাবে শেষ করতে হবে। এতে ক্লায়েন্ট খুশি হয়ে হয়তো পরের কাজটিও আপনাকে দিয়ে দেবে, কিংবা অন্যের কাছে রেফারেন্স করবে আপনার নাম। এভাবেই ফ্রিল্যান্স জগতে আপনি হতে পারবেন পরিচিত মুখ।