পড়ালেখার জন্য রুটিন করি কিন্তু ২ দিন পরেই সে রুটিন মাফিক চলতে পারিনা কেন? এ বিষয়ে করনীয় কী?

পড়ালেখার জন্য রুটিন করি কিন্তু ২ দিন পরেই সে রুটিন মাফিক চলতে পারিনা কেন? এ বিষয়ে করনীয় কী?

অনেককে আমি দেখেছি কয়েকদিন পরপর নতুন রুটিন করে এবং বলে আজ থেকে এই রুটিনমাফিক সবকিছু করব কিন্তু হয়না। সেই রুটিনটা কার্যকর না করতে পারার অনেক কারণ রয়েছে। জীবনটাকে একটি রুটিনের মধ্যে চালিয়ে নেওয়া অনেক কষ্টকর এবং এর জন্য অনেক সংগ্রাম করতে হয়। কিন্তু একটি রুটিন যখন নিত্যদিনের অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায় তখন সেটিই স্বাভাবিক নিয়মের মধ্যে পড়ে যায়। এখানে যদি আমি একটি উদাহরণ দেই; যা আমার জীবনের এটি নিত্যদিনের অভ্যাসে পরিণত হয়ে গিয়েছিল। সারাদিন যা কিছু করি না কেন মাগরিবের নামাজের পর থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত লেখাপড়া করতাম এবং প্রতিদিন ফজরের নামাজের পর থেকে সাড়ে আটটা পর্যন্ত লেখাপড়া করতাম। এটা ছিল আমার নিত্যদিনের রুটিন এটি আমার অভ্যাসে পরিণত হয়ে গিয়েছিল এবং এটি কখনো আমার বিরক্ত লাগত না স্বাভাবিক নিয়মের মতো মনে হতো।

আমরা রুটিন এভাবে করি বাংলা একঘন্টা, ইংরেজি দুই ঘন্টা, গণিত তিন ঘন্টা আসলে এভাবে রুটিন করলে রুটিনটা দু-তিন দিন পর আর কন্টিনিউ হয়না। রুটিন এভাবে করতে হবে আজ দিনে-রাতে আমি সর্বমোট ৮ ঘণ্টা লেখাপড়া করব। যখন পড়তে বসবে তখন একবার হিসাব করে নেবে কোন সাবজেক্টে আজ কি কি পড়তে হবে। যে সাবজেক্ট গুলো একটু কঠিন মনে হয়, মন সবসময় সেগুলো থেকে দূরে থাকতে বলে প্রথমে সেই পড়া গুলো শেষ করবে। সিরিয়াল মোতাবেক সাবজেক্ট গুলো না পড়ে যখন যেটি পড়তে ভালো লাগবে তখন সেটি পড়বেন কিন্তু সব সাবজেক্ট পড়তে হবে এবং সর্বমোট ৮ ঘন্টা পড়তে হবে। লেখাপড়ার জন্য নির্দিষ্ট টাইম ঠিক করে নিতে হবে, এবং সেই টাইম টা শুধু লেখা পড়ার জন্যই হবে, অন্য সবকিছু থেকে দূরে থাকতে হবে যতক্ষণ না পর্যন্ত ওই সময়টা পূর্ণ হয়।

যদি একটি নির্দিষ্ট সময় কে তুমি শুধু লেখা পড়ার সময় বানিয়ে নিতে পারো, এবং অনেকদিন পর্যন্ত চালিয়ে নিয়ে যেতে পার তবে এটা তোমার অভ্যাসে পরিণত হয়ে যাবে। যখন এই রুটিন টা তোমার অভ্যাসে পরিণত হয়ে যাবে তখন সেটা তোমার কাছে নিত্যদিনের একটি স্বাভাবিক কর্ম মনে হবে। রুটিনটা যেন একসাথে এক মাস বা এক সপ্তাহের না হয়। রুটিনটা যেন হয় শুধুমাত্র আজকের দিনের জন্য এবং সেটা পূর্ণ করার জন্য আজকের দিনে সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে। এভাবে ছোট ছোট টার্গেট নিয়ে সেই টার্গেট পূর্ণ করতে হবে। একসময় অভ্যাস গুলো নিত্যদিনের অভ্যাসে পরিণত হয়ে যাবে। তখন আর কোন সমস্যা হবে না, প্রতিদিনের নিয়মে চলতে থাকবে।

লেখকঃ Hamid Suhag


সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ