বিদ্যুৎ কি

 (2 পয়েন্ট)

প্রকাশের সময়

আজ এই মানব সভ্যতার চরম উন্নতির যুগে বিদ্যুতের অবদান সর্বাধিক। তাই আজ আধুনিক যুগকে বিদ্যুতের যুগও বলা হয়। জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে বিদ্যুতের ব্যবহার অপরিহার্য। তারই প্রেক্ষাপটে আজ আমরা আলোচনা করবো বিদ্যুৎ নিয়ে। আলোচনা শেষে আমরা জানতে পারবো,

  • বিদ্যুৎ কি
  • বিদ্যুৎ এর প্রকারভেদ
  • চল বিদ্যুৎ এর প্রকারভেদ
  • বিদ্যুৎ প্রবাহের ফলে সৃষ্ট প্রভাব বা ইফেক্ট

বিদ্যুৎ এমন এক অদৃশ্য বল বা শক্তি যা আলো, তাপ, শব্দ, গতি উৎপন্ন করে এবং অসংখ্য বাস্তব কাজ সমাধা করে।

বিদ্যুৎ মূলত দুই প্রকার। যথা―

১। স্থির বিদ্যুৎ,

২। চল বিদ্যুৎ ৷ 

(১) স্থির বিদ্যুৎ

বৈদ্যুতিক চার্জ যখন উৎপত্তিস্থলেই আবদ্ধ থাকে, চলাচল করতে পারে না তাকে স্থির বিদ্যুৎ বলে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এই স্থির বিদ্যুৎ ঘর্ষণের ফলে উৎপত্তি হয়। যেমন — একটি কাচদণ্ডকে রেশমি কাপড় দ্বারা ঘষলে কাচদণ্ড হতে ইলেকট্রন রেশমি কাপড়ে চলে যায় – ফলে কাচদণ্ড পজেটিভ চার্জ এবং রেশমি কাপড় নেগেটিভ চার্জ প্রাপ্ত হয়। আবার একটি ইবোনাইট দণ্ডকে এক খণ্ড ফ্লানেল কাপড় বা বিড়ালের চামড়া দ্বারা ঘর্ষণ করলে ইবোনাইট দণ্ড নেগেটিভ চার্জ এবং ফ্লানেল কাপড় পজেটিভ চার্জ প্রাপ্ত হয়। উপরোক্ত প্রতিটি ক্ষেত্রে এক বস্তু হতে ইলেকট্রন অন্য বস্তুতে স্থানান্তরিত হয় ফলে বস্তুগুলো চার্জ প্রাপ্ত হয়। অর্থাৎ প্রতিটি বস্তুতে স্থির বিদ্যুতের উৎপত্তি হয়েছে।

(২) চল বিদ্যুৎ

যে বিদ্যুৎ উৎপন্ন স্থানে স্থির না থেকে আলাে, চাপ, তাপ বা আবেশের কারণে পদার্থের মধ্য দিয়ে ধাবিত হয়, তাকে চল বিদ্যুৎ বলে। যদিও বিদ্যুৎ দুই প্রকার, বিদ্যুৎ বলতে চল বিদ্যুৎকেই বুঝায়।


চল বিদ্যুৎ দুই প্রকার। যথা―

(১) এ.সি. কারেন্ট (Alternating Current বা A.C.),  (২) ডি.সি. কারেন্ট (Direct Current বা D.C.)।

১। এ.সি. কারেন্ট ː পরিবর্তী প্রবাহ সময়ের সাথে যে কারেন্টের মান ও দিক উভয়েরই পরিবর্তন ঘটে, তাকে এ.সি. বা অল্টারনেটিং কারেন্ট বলে।     

২। ডি.সি. কারেন্ট ː একমুখী  প্রবাহ সময়ের সাথে যে কারেন্টের মান ও দিক কোনোটিই পরিবর্তিত হয় না, তাকে ডি.সি. বা ডাইরেক্ট কারেন্ট বলে। .............আরও পড়ুন https://www.electricbd.xyz/electricity

সম্পর্কিত প্রশ্নসমূহ

Loading...

জনপ্রিয় বিভাগসমূহ

Loading...