4 টি উত্তর
কোষের সকল জৈবিক কার্যাবলী সম্পাদনের জন্যে প্রয়োজনীয় শক্তি উৎপাদনকারী বিশেষ ধরনের অঙ্গাণুগুলোকেই বলা হয় মাইটোকন্ড্রিয়া। মাইটোকন্ড্রিয়া সাধারনত দন্ডাকার, গোলাকার বা সুত্রাকার হতে পারে। প্রতিকোষে এদের সংখ্যা ২০০-৪০০ টি হয়ে থাকে।
মাইটোকন্ড্রিয়া হলো এক প্রকার কোষীয় অঙ্গানু, যা সুকেন্দ্রিক কোষে পাওয়া যায়। মাইটোকন্ড্রিয়াকে কোষের শক্তি উৎপাদন কেন্দ্র বা পাওয়ার হাউস বলা হয়।
মাইটোকন্ড্রিয়া হলো কোষের পাওয়ার হাউস । এটি দুই স্তরবিশিষ্ট আবরণী বা ঝিল্লি দিয়ে ঘেরা । জীবের শ্বাসকার্যে সাহায্য করা এর প্রধান কাজ । 1898 সালে বেনডা এটি আবিষ্কার করেন ।
মাইটোকন্ড্রিয়া কোষের পাওয়ার হাউস হিসাবে পরিচিত। এগুলি অর্গানেলগুলি হজম পদ্ধতির মতো কাজ করে যা পুষ্টি গ্রহণ করে, তাদের ভেঙে দেয় এবং কোষের জন্য শক্তি সমৃদ্ধ অণু তৈরি করে। কোষের জৈব রাসায়নিক প্রক্রিয়াগুলি সেলুলার শ্বসন হিসাবে পরিচিত।