Share

2 টি উত্তর

উপকরণঃ- একটা হাড়ি (মাটির হলে ভালো হয়), ঢাকনা, এক কাপ দই ( এক কেজির জন্য ), দুধ , পরিমাণ মত চিনি, কাথা( অন্য কিছু ব্যবহার করা যাবে) প্রস্তুত প্রণালীঃ- দুধ আর চিনি একসাথে রান্না করতে হবে, তারপর ঠান্ডা করতে হবে । হাড়িতে এক কাপ দই পুরোটা ঢেলে হাড়ির ভিতরে চারপাশে লাগিয়ে দিতে হবে। তারপর, ঠান্ডা করা চিনি আর দুধের মিশ্রণ হাড়িতে ঢেলে একটা ঢাকনা দিয়ে পুরো হাড়িটা কাথা দিয়ে মুড়ে দিতে হবে, যাতে বাতাস ভিতরে প্রবেশ করতে না পারে। 5-6 hour রেখে দিলেই দই তৈরি হয়ে যাবে।

মিষ্টি দই বানানোর জন্য

  1. এক লিটার দুধ কড়াইয়ের মত পাত্রে উনুনে জাল দিয়ে ৩/৪ লিটার করে ফেলুন
  2. দুধ যাতে উপচে পরে না যায় সে জন্য কড়াই ভাল, ঢাকনা দেবেন না
  3. দেড় থেকে ২ টেবিল চামচ চিনি বা আখের গুড় দিন, যত টুকু মিষ্টি আপনাদের পছন্দ। গুড় ব্যবহার করলে দই এর রং কিছুটা বাদামি হবে। 
  4. Caramel  বা চিনি জাল দিয়ে গলিয়ে সেটাও দিতে পারেন এক বার শেষের দিকে দই পাতবার পূর্বে তাতে দই উপরের রং বাদামি হবে, অনেকে শুনেছি জাল দেয়া ঘি ও এই সময়ে ব্যবহার করেন তবে সুধু দই বানানোর এই step # 4  এর কেরামতিতে না যাওয়াই ভাল, বিশেষ করে নতুনদের জন্য।
  5. জাল দেয়া দুধ এর তাপমাত্রা ৫০ থেকে ৬০ ডিগৃ সেলসিয়াস নামতে দিন, দুধের তাপমাত্রা মাপার, ধাতু দিয়ে তৈরী, যন্ত্র না হাত দিয়ে দুধের পাত্রের তাপমাত্রা পরীক্ষা করতে পারেন।
  6. সে ক্ষেত্রে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে, উনুনের আগুন বন্ধ করে বা দুধের পাত্র উনুন থেকে নামিয়ে ২০ থেকে ৩০ স্বাভাবিক ভাবে ঠান্ডা হতে দিন; হাতে তালু দিয়ে দুধে পাত্রের গায়ে পরিমাপ করুন, তাত যদি ১ বা ২ সেকেন্ড ঐ গরম পাত্রে রাখতে পারেন, তা হলে অনুমান করতে হবে দুধের তাপমাত্রা  ৫০ থেকে ৬০ ডিগৃ সেলসিয়াস এ নেমেছে
  7. এই অবস্থায় এক টেবিল চামচ দই এর বীজ (অনেকে সাচার বলেন) যেই পাত্রে দই বানাবেন বা জমাবেন, সেই পাত্রে দিন
  8. ৫০ থেকে ৬০ ডিগৃ সেলসিয়াস এ জাল দেয়া এবং হিমায়িত দুধ এই পাত্রে ঢেলে দিয়ে নাড়তে থাকুন যাতে করে বীজ দুধের সাথে মিশে যায়  
  9. এখন দই বানানো বা জমানোর এই পাত্রটিতে ঢাকনা দিন, তোয়ালে দিয়ে পুরো পাত্রটি ঢেকে দিন, যাতে করে আর তাপমাত্রা নিঃসরন না হয় তথা তাপমাত্রা আর না কমে।
  10. এই পাত্রটি এমন এক জায়গায় রাখুন যাতে করে কোন বাতাস পাখার মত চলাচল না করে (সুইচ অফ অবস্থায় মাইক্রোওয়েভ ব্যবহার করতে পারেন)।
  11. ৬ থেকে ৭ ঘন্টায় গরমকালে দই হয়ে যাবার কথা, শীত কালে একটু বেশি সময় লাগতে পারে।
  12. "দই মেকার" থাকলে ওটাতে পাত্র টি বসিয়ে ঢাকনা দিয়ে সইচ অন করে দিন, একই সময় লাগবে। দই মেকার ব্যবহার করলে তোয়ালে দিয়ে পাত্র জড়াতে হবে না

  • image ৫০ ডিগৃ সেলসিয়াস = ১২২ ডিগৃ ফারেনহাইট

  • টক দইয়ের ক্ষেত্রে শুধু চিনি দেবার প্রয়োজন নেই আর দুধ একটু কম ঘন করলেও চলবে, বাকি পদ্ধতি একই
  • অতি গরম দুধে বীজ দেবেন না, দই হয় জমবে না, অথবা জমতে ১২ বা ১৪ ঘন্টা লেগে যেতে পারে
  • দই মেকারের দাম ১৫০০ টাকা থেকে ১৬০০ হতে পারে (২০১৯ সালের  estimate)

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ