এক্ষেত্রে আমার কি করা উচিত? প্লিজ দেখুন?

বিস্ময়ে অনেক প্রশ্ন করা হয়ে থাকে যেসব প্রশ্ন আগেই করা হয়েছে তথা ডুপ্লিকেট। যা পরে বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় পুরাতন প্রশ্নটি অর্থাৎ যার ডুপ্লিকেট সেটিতে মানসম্পন্ন উত্তর থাকে না/অতিরিক্ত শর্ট উত্তর থাকে। ফলে প্রশ্নকর্তার চাহিদা পূরণ হয় না। আবার বিস্তারিত ব্যাখা জানলেও ডুপ্লিকেট হিসেবে লুকায়িত হওয়ার ভয়ে উত্তর করি না। এক্ষেত্রে আমার কি করা উচিত?

  1. প্রশ্নটি না দেখার ভান করে এড়িয়ে যাওয়া।
  2. পুরাতন প্রশ্নে যদি মানসম্মত উত্তর না থাকে তখন নতুন প্রশ্নে উত্তর করা।
  3. নতুন প্রশ্নে উত্তর করে পুরাতন প্রশ্নটিই বন্ধ করে দেওয়া।
  4. নতুন প্রশ্নটি পুরাতন প্রশ্নের লিংক দিয়ে বন্ধ করে পুরাতন প্রশ্নে ভালোভাবে উত্তর দেওয়া।
কোনটি সঠিক???? 
2 টি উত্তর
এক্ষেত্রে আপনার করণীয়। ১. অবশ্যই নতুন প্রশ্নটি ডুপ্লিকেট হিসেবে বন্ধ করবেন। ২. পুরাতন প্রশ্নটি এক কথার উত্তরের হলে অবশ্যই সেটাতে উত্তর দিবেন না।যেমন : বাংলাদেশের রাজধানীর নাম কি? উত্তর : ঢাকা। ২. পুরাতন প্রশ্নে সংজ্ঞার ক্ষেত্রে আগের উত্তরটি নিম্নমান হলে আপনি ভাল মানের উত্তর দিতে পারেন।যেমন : রাষ্ট্র কি?বা রাষ্ট্রের সংজ্ঞা দাও। ৩. যে সমস্যাটি পূর্বে ছিল এখন নাই তাতে উত্তর দেবার দরকার নেই।অর্থাৎ,নিত্য ঝুট ঝামেলা,প্রেম-ভালবাসা,অ্যান্ড্রয়েড,জাভা প্রভৃতি বিভাগের অনেক পুরনো প্রশ্নে উত্তর দেবার প্রয়োজন নেই। ৪. খেলা,বিজ্ঞান ও প্রকৌশল,গণিত,আইকিউ প্রভৃতি বিষয়ে কোন রকম দ্বীধা-দ্বন্দ্ব ছাড়াই উত্তর দিবেন।
বিস্ময়ে প্রশ্ন ডুপ্লিকেট হলে বন্ধ করে দেওয়া হয় ঠিক কিন্তু কিছু নতুন প্রশ্নে উত্তর দেওয়া হলে বিশেষ বিবেচনায় সেগুলি লুকায়িত করা হয়না। তাই নির্দিধায় উত্তর দিতে পারেন। কিন্তু এতে চিন্তা ভাবনায় পড়তে হবে যে, আমার উত্তরটি লুকায়িত হয়ে যায় কিনা! তাই চিন্তা ভাবনা না যেয়ে যদি নতুন প্রশ্নটি পুরাতন প্রশ্নের লিংক দিয়ে বন্ধ করে পুরাতন প্রশ্নে ভালোভাবে উত্তর দেওয়া হয় এটাই হবে উত্তম সমাধান। তবে এক্ষেত্রে দেখতে হবে পুরাতুন প্রশ্নের চেয়ে নতুন প্রশ্নে অতিরিক্ত কিছু পয়েন্ট যুক্ত হয়েছে কিনা? অথবা নতুন প্রশ্নের চেয়ে পুরাতুন প্রশ্নে অতিরিক্ত কিছু পয়েন্ট যুক্ত আছে কিনা? যদি পুরাতুন প্রশ্নের চেয়ে নতুন প্রশ্নে অতিরিক্ত কিছু পয়েন্ট যুক্ত থাকে এক্ষেত্রে নতুন প্রশ্নেই উত্তর দিতে হবে। পুরাতন প্রশ্নে মানসম্পন্ন উত্তর বা অতিরিক্ত শর্ট উত্তর থাকলে নির্দিধায় উত্তর দিতে পারবেন। তবে আগে দেখতে হবে তখন প্রশ্নকর্তার চাহিদা পূরণ হয়েছিল কি না? যদি প্রশ্নকর্তার চাহিদা পূরণ হয়ে থাকে তাহলে আর উত্তর দেওয়া যাবে না। অথবা এখন প্রশ্নের উত্তর দেওয়া জরুরি কিনা? উত্তর দেওয়া হলে প্রশ্নকর্তার কোন উপকার হবে কিনা? এসব দিক বিবেচনা করে উত্তর দিতে হবে।