ফেক আইডি প্রসঙ্গে.......? আমি যখন বিস্ময়ে নতুন সদস্য ছিলাম, তখন বিস্ময়ের নিয়মকানুন ও নীতিমালা সম্পর্কে আমার পরিষ্কার ধারণা ছিল না। তখন নতুন সদস্য হিসেবে আমার কার্যক্রম ছিল অগোছালো প্রকৃতির। নিম্নমানের কার্যক্রম করার জন্য যখন আমাকে ১ সপ্তাহ পর ব্লক করা হয়, তখন নীতিমালা সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা না থাকায় আমি বিশেষ সদস্যদের কাছে সুপারিশের জন্য ফেক আইডি খুলেছিলাম। যা পরবর্তীতে আমার সুপারিশে ব্লক করা হয়। এবং এ কাজের জন্য আমি আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ্যে ক্ষমাও চেয়েছিলাম। তারপর থেকে চেষ্টা করেছি যথাসাধ্য নিয়মের মধ্যে কার্যক্রম করতে।কিন্তু কিছু ব্যাক্তি কোনভাবেই আমার পিছু ছাড়ছেন না। সম্প্রতি Sabirul Islam আমাকে জনৈক ইব্রাহীম এর নাম দেখিয়ে অভিযোগ তুলেছেন ঐ ব্যক্তি নাকি আমার ফেক আইডি! অথচ ওই ব্যক্তির কোন এক পোস্টে সালামের জবাব দেওয়া ছাড়া তার সাথে আমার কোন কার্যক্রমও নেই। কিন্তু কি কারণে আমার উপর এ জঘন্য অপবাদ আরোপ করা হলো তা আমি নিজেও জানি না। অবশ্য সাবিরুল ভাইকে আর কি দোষ দেব? একজন শাস্তিপ্রাপ্ত আসামি যদি ভালো হতে চায় তবুও তার কথা কে বিশ্বাস করে? আমি যদি কোন অপরাধ করে থাকি, তাহলে আমাকে যা শাস্তিই দেওয়া হোক না কেন, তাতে কিছুই যায় আসে না। কিন্তু কোন ব্যক্তির উপর যখন মিথ্যা অপবাদ আরোপ করা হয়, তখন তার কষ্ট যে কতটা তা বলে বোঝানো সম্ভব নয়।  যাহোক, আমি বিস্ময়ে কার্যক্রম করলে সেটা যদি আপনাদের ভালো না লাগে, তাহলে এমনিই ব্লক মেরে তাড়িয়ে দিন। কিন্তু কাউকে কখনো মিথ্যা অভিযোগে অপদস্থ করবেন না। 
1 টি উত্তর
আপনার কার্যক্রমের ভিত্তিতে আমি আপনাকে শুধু এতটাই বলেছিলাম। ইব্রাহীম জুলকিফল! এবং সাবাহ আজমান নাহিয়ান এই দুই ব্যক্তিকে আপনি চিনেন? উত্তরেঃ বলেছিলেন না। এরপর আপনাকে বলেছিলাম যেনে রাখবেন আমাদের (সমন্বয়ক প্রশাশকের) কাছে কোন কিছুই গোপন করা যায়না। আমরা অপরাধীদের সনাক্ত করতে পারি। এর বেশি কিছু বলা হয়নি। আর বিস্ময়ে সবচেয়ে বেশি ফেক আইডি আপনার! সেই ফেক আইডি এক করে ব্লকে রাখা হয়েছে। এবং এই অভিযোগের সমাধান ফেসবুকে দিতে চাইছিলাম বিস্ময়ে ব্যক্তিগত বার্তায় ছবি দেয়া যায়না বলে। কিন্ত আপনি ফেসবুকে ফলো না করে অভিযোগ তুলেছেন। এটা ব্যক্তিগত বার্তায় সমাধানন হয়ে যেত।