আসলে সে কি চায়? প্লিজ বুঝিয়ে বলবেন.......? একটি মেয়ে আমাকে শুধু মিথে কথা বলত। আমাকে অনেক ঠকাত। ভালবাসার নামে ছলনা করত। আমার টাকা নিত। আমি তাকে অনেক সুযোগ দিয়েছি কিন্তু সে ঠিক হয় নাই। সর্বশেষ তাকে আমি একটা শর্ত দিই, যে তুমি যদি কোরআন শরীফ মাথায় রেখে বলতে পার যে আমাকে সত্যি ভালবাস এবং আর কাউকে ভালবাসবেনা তবে তোমার সাথে প্রেম করব। কিন্তু সে রাজি হয়না, আবার বলে আমাকে ছাড়া সে থাকতে পারবে না। তার বান্ধবিরা নাকি বলে এতে বিশ্বাস চলে যায়। এরপর সে রাজি হয় তবে কোরআন শরীফ নয় তার মাথায় হাত দিয়ে বলবে যে আমাকে সত্যি ভালবাসে আর তার সাথে সে একটি শর্ত দেয় আমাকে বলার পর সে আর কোনদিন আমাকে তার মুখ দেখাবে না, কোনদিন ফোন দিবে না। সত্যি সে কি চায়? আর তার শপথ বা কছম কি সত্যি না মিথ্যা..... প্লিজ একটু বুঝিয়ে বলবেন।

3 টি উত্তর

মনেহয় মেয়েটি আপনার সাথে প্রেমের নামে ছলনা করতেছে টাকা খাওয়া বা অন্য কোনো সার্থের জন্য। বর্তমানে প্রেম ভালোবাসার নামে যা করে ছেলে মেয়েরা তা হয় যৌন চাহিদা মিটানোর জন্য নয়ত কোনো সার্থের জন্য বা টাইমপাস করার জন্য, হয়ত কিছু আংশিক সত্যিকারে প্রেম করে। তবে বিয়ের আগে বিবাহ ছাড়া কারো সাথে এই ধরনের প্রেম ভালোবাসা ইসলাম ধর্মে সম্পূর্ণ নিষেধ তাই এই ধরনের অবৈধ সম্পর্কে কোনো কল্যাণ নাই তাই এই ধরনের সম্পর্ক ত্যাগ করে, ধর্মীয় বিধান মেনে জীবন পরিচালনা করুন। বিঃদ্রঃ উক্ত মেয়েটি আপনার সাথে প্রতারণা করতেছে সম্ভবত তার সবকিছু ছলনা তাই থাকে ভুলে যাওয়াটাই আপনার জন্য সর্বোত্তম হবে।
দেখুন আমার মনে হয় তিনি সত্যি সত্যিই আপনাকে ভালোবাসেনি।কারণ সত্যি ভালোবাসায় এত ছলনা থাকেনা।সত্যিকার ভালোবাসা তখনই হয় যখন আপনাদের মধ্যে understanding,sharing ইত্যাদি থাকবে।কিন্তু তিনি আপনাকে মিথ্যা বলে,ঠকায়ও।অর্থাৎ আপনাদের মধ্যে কোন understanding নেই।উনার আচরণে আপনার মধ্যেও সন্দেহ জন্মায়,যা সত্যিকার ভালোবাসায় হয়না।তিনি আপনাকে ভালোবাসলে সহজেই কুরআনে হাত রেখে ব্যাপারটা clear করতে পারতেন।কিন্তু তিনি তা না করে আপনাকে উল্টাপাল্টা শর্ত দিয়ে বসলেন।অতএব আমার মনে হয় তিনি আপনাকে use করছেন।তাই আপনাদের relation continue না করাই ভালো।কোন ভুল হলে ক্ষমা করবেন।ধন্যবাদ।          

একটা কথা মনে রাখা উচিত আমার, আপনার,সবার। প্রিয় জনের সাথে কখনই মিথ্যা আর লুকোচুরি খেলতে নেই।

এতে আত্মার সম্পর্ক টা আর আত্মায় থাকে না।

যদি মিথ্যা প্রিয় মানুষটির মন রক্ষার জন্যও বলা হয়, তবুও না বলা চাই। আপনার কথা মতে -সে আপনাকে ঠকিয়েছে,মিথ্যা বলেছে, আপনি শপথের কথা বলায় সে বাহানা খুঁজছে, এসব বিষয় নেগেটিভ দিকেই ইশারা করছে।এমন সব কাজগুলো সে করলো যা আপন মানুষের সাথে করা হয় না। 

হ্যা!!তবে সে যেহেতু আপনাকে ভালোবাসে বলছে। এবং সত্যি সত্যি ভালোবাসে বলে দাবি করছে, আপনি ভালোবাসার খাতিরে এ কথাটা বিশ্বাস করতে পারেন,কিছু শর্তে।   -  ★সে যদি আপনাকে মিথ্যা বলার পর ক্ষমা চেয়েছে এমন হয়৷ ★যদি আপনাকে ঠকানোর পর অনুতপ্ত হয়৷  ★যদি আপনার সাথে শপথে আবদ্ধ না হওয়ার কারণ বলে।★যদি আপনার সাথে দেখা করার মাঝে কোন মহৎ উদ্দেশ্য দেখাতে পারে।????????? এসব শর্তের সবকটি যদি পাওয়া যায় আপনি তার উপর বিশ্বাস করতে পারেন৷ আর না হয় ভুলে যান৷ বড় ধরণের ধোকা খাওয়ার আগে৷               



সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ