1 টি উত্তর

ইসলামে পুরুষ এবং মহিলার গোপনাঙ্গের চুল কাটার বিধান স্বভাবজাত সুন্নাত। ইবনু বায (রহঃ) এর মতে এটা সুন্নাতে মুআক্কাদাহ বা ওয়াজিব।

জনাব! ছেলেদের জন্য গোপনাঙ্গের অবাঞ্ছিত লোম কাটা উত্তম।

তবে মেয়েদের জন্য লোমনাশক ক্রিম বা লোশন ব্যবহার করা ভালো। এছাড়াও যে কোনো উপায়ে পরিষ্কার করলেও হয়ে যাবে।

ওয়াক্সিংয়ের মাধ্যমে লোম একেবারে গোড়া থেকে উঠে আসে। তাই যদি সেভ করেন বা কাঁচি দিয়ে ছেটে ফেলেন বা লোম নাশক ব্যবহার বা চিমটি দিয়ে উপড়ে ফেলেন এই সব গুলিই জায়েজ।

তবে উত্তম প্রতি সপ্তাহে একবার করে কেটে পরিস্কার করা।

ইসলাম মানুষের শরীরের অবাঞ্ছিত লোম, নখ ইত্যাদি বিনা ওজরে চল্লিশ দিন পর কাটাকে মাকরূহ তাহরীমি বা গোনাহর কাজ বলেছে।

এ মর্মে সাহাবী আনাস (রাঃ) বলেন,

অর্থাৎ, গোঁফ ছোট রাখা , নখ কাঁটা, বগলের লোম উপড়িয়ে ফেলা এবং নাভীর নিচের লোম চেঁছে ফেলার জন্যে আমাদেরকে সময়সীমা নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছিল যেন, আমরা তা করতে চল্লিশ দিনের অধিক দেরী না করি। (সহীহ মুসলিমঃ ২৫৮)

সাম্প্রতিক প্রশ্নসমূহ