অলসতা ....... .? অলসতা আমার লাইফটাকে শেষ করে দিচ্ছে। আমি এতই অলস যে, বলে বোঝাতে পারব না। ধরুন, আমার গায়ে একটা মশা বসেছে। কিন্তু আমি সেই মশাটাকে মারার কোনো চেষ্টা করিনা। কারণ মশাটাকে মারতেও আমার কষ্ট হয়। আসলে আমি সত্যি খুব বেশী অলস হয়ে গেছি। অবশ্য আগে এরকম ছিলাম না। এখন ঘুম থেকে উঠে নিজের বিছানাটাও গুছিয়ে রাখিনা। বাসায় কোনো কাজ করিনা। সারাদিন সুয়ে সুয়ে কাটিয়ে দেই। খাওয়া দাওয়ার ব্যপারেও উদাসীন। মোবাইল, টিভি দেখা আর বন্ধুদের সাথে আড্ডা ছাড়া আমার আর কোনো কাজ নেই। আগে খেলাধুলা করতাম, এখন সেটাও করিনা। বাসায় বকা খাইতে খাইতে আমার অবস্থা খুব খারাপ। আমার আম্মু আব্বু আমাকে নিয়ে খুব চিন্তিত। অবশ্য আমি নিজেও চিন্তিত। অনেকবার ট্রাই করছিলাম এর থেকে মুক্তি পেতে। বাট কোনো ভাবেই কাজ হয়নি। দু একদিন পর আবার আগের মতোই হয়ে যাই। এখন কি করব কিছু বুঝতেছি না। সো কিছু টিপস দিয়ে আমাকে হেল্প করুন প্লিজ।

2 টি উত্তর

প্রথমত আপনাকে বলবো,সারাদিন যতটুকু সম্ভব হয় শারীরিক পরিশ্রম করুন। দেখুন,যদি আপনি নিজের মনকে অলসতার দিকে ঠেলে দেন,তাহলে আপনার শরীরও সেদিকেই ধাবিত হবে। কাজেই অলসতাকে প্রশ্রয় না দিলে সারাদিন কোনো না কোনো কাজের মধ্যে,শরীর চর্চার মধ্যে নিজেকে ব্যস্ত রাখুন।।আপনি নিজে যদি এটি কাটাতে না চান,তাহলে দুনিয়ার কেউ পারবে না আপনার এসব দূর করতে। রাতে পর্যাপ্ত ঘুমাবেন এবং যখন ই দিনে ঝিমুনি আসবে কিংবা আলসেমি কাজ করবে তখনই কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ুন। আপনি যত ফিজিক্যাল অ্যাকটিভিটিজের সাথে থাকবেন ততই আপনার আলসেমিরর ভুত পালাবে। ঠিকমত খাওয়াদাওয়া করুন,সেচ্ছাতেই নিজেকে বদলিয়ে ফেলুন।
যে কোন কাজ করতে হলে নিজের মনের জোরটাই হলো সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। নিজের ইচ্ছাশক্তির কাছে সবকিছু মূল্যহীন। তাই প্রথমে আপনাকে নিজের মনের জোর বাড়াতে হবে। সবসময় নিজের মনের সাথে লড়াই করতে হবে। আমি পারবো আমার অলসতাকে জয় করতে এই চিন্তা ভাবনা মনের মধ্যে ধারণ করতে হবে।আর মাথায় রাখুন "অলস মষ্তিস্ক শয়তানের কারখানা"।কাজ না করলে শরীর তথা মনও ভালো থাকবেনা। প্রথমে ছোট ছোট কাজগুলো নিজে নিজে করুন।কাজের মধ্যে নিজেকে ডুবিয়ে রাখুন।পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের কাজে সহায়তা করুন।একটি রুটিন অনুযায়ী চলুন। আপনি বিখ্যাত ব্যক্তিবর্গের জীবনী পড়ুন।তাঁরা পরিশ্রমের ফলেই সফলতা লাভ করেছেন।মনে রাখবেন,"শ্রম বিনা শ্রী হয় না"।সদা কর্মঠ থাকুন,আত্মবিশ্বাস ও মনোবল বাড়ান। "কাজ করতে ইচ্ছা করছে না" এই চিন্তা দ্রুত মাথা থেকে বের করুন।